আম্পান: বাগেরহাটে সাড়ে ৪ হাজার কাঁচাঘর বিধ্বস্ত

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে বিভিন্ন এলাকা

walton

বাগেরহাট: ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আঘাতে বাগেরহাটে ৪ হাজার ৬৮৬টি কাঁচাঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। মাঠে থাকা সবজি, আমনের বীজতলা, পাকা ধানসহ ১৭শ’ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে।

এতে কৃষকদের সাড়ে ৬ কোটি ৪০ লাখ ৭৫ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে। বিধ্বস্ত ঘরগুলোর মধ্যে চার হাজার ৩৩৯টি ঘর আংশিক এবং ৩৪৭টি ঘর সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী, নগদ টাকা ও টিন বিতরণ শুরু করেছে জেলা প্রশাসন।

এছাড়া বাগেরহাট জেলার শরণখোলা উপজেলার বগী-গবতলা, দক্ষিণ সাউথখালী এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুই কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ৪ হাজার ৬৩৭টি মাছের ঘের ভেসে গেছে। এতে ২ কোটি ৯০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

শরণখোলার বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে বগী, গাবতলা, চালিতাবুনিয়া, খুড়িয়াখালীসহ বিভিন্ন এলাকা। বৃহস্পতিবার (২১ মে) দুপুরে জোয়ারের সময়ও বাঁধের ভাঙা অংশ নিয়ে নতুন করে পানি ঢুকেছে লোকালয়ে। এছাড়া জেলার সদর উপজেলা, মোরেলগঞ্জ ও মোংলা উপজেলার বিভিন্ন এলাকা জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে। বগী-গাবতলা এলাকার অনেক পরিবার এখনও পানিবন্দি রয়েছে।

দক্ষিণ সাউথখালী গ্রামের জাহাঙ্গির হাওলাদার ও ফারুক মল্লিক বাংলানিউজকে বলেন, রাতে বাঁধ ভেঙে পানি ঢুকতে শুরু করে লোকালয়ে। বাঁধের ভেতরে থাকা দোকান এবং এলাকার অনেকের ঘর ডুবে গেছে। কারও কারও ঘরের মাঝখানের মাটি পানির সঙ্গে ভেসে গেছে। অনেকর ঘরের টিনের চালা উড়ে গেছে।

এর বাইরে বাগেরহাট সদরের ভৈরব ও দড়াটানা নদীর তীরের বিভিন্ন এলাকায় অন্তত ১৫টি স্থানে নদী সংলগ্ন সড়ক ভেঙে জোয়ারের পানি ঢুকছে। এতে জোয়ারের সময় পানিবন্দি হয়ে পড়ছে কয়েক হাজার মানুষ। রান্নার জন্য চুলা জালানোর মত অবস্থাও নেই ওই সব এলাকায়।

পানি উন্নয়ন বোর্ড বাগেরহাট কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী নাহিদুজ্জামান খান বলেন, বাগেরহাট জেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩০০ মিটার বেড়িবাঁধ সম্পূর্ণ এবং ৮ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শরণখোলায় বলেশ্বর তীরে বাঁধের সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত অংশে দ্রুত নতুন একটি রিং বাঁধ নির্মাণ কার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত অন্য বাঁধগুলোও দ্রুত সংস্কার করা হবে।

জেলা প্রশাসক মামুনুর রশিদ বলেন, করোনার এই পরিস্থিতিতে আম্পান পরবর্তী সময়ে মোরেলগঞ্জ শরণখোলাসহ জেলার সব উপজেলায় ত্রাণ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত ৪০০ পরিবার খাদ্য সহায়তা এবং ৫০টি পরিবারকে ঢেউটিন দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩২ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২০
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ঘূর্ণিঝড় আম্পান
Nagad
 হেফাজতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবে না: আল্লামা শফী
জার্মান বিনিয়োগকারীদের গুরুত্বপূর্ণ গন্তব্য হবে বাংলাদেশ
স্বাস্থ্যসুরক্ষায় ডিআরইউর নতুন সংযোজন অক্সিজেন কনসেনট্রেটর
নোয়াখালীতে করোনায় আরো একজনের মৃত্যু, মোট ৫৩
১২ জুলাইয়ের আগে নিয়মিত কোর্ট খোলার দাবি আইনজীবীদের


৯ জুলাই থেকে দুবাই-আবুধাবি রুটে ফ্লাইট চালাবে বিমান 
শৈলকুপায় করোনা উপর্সগ নিয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু 
সিরাজগঞ্জে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৪০
অবশেষে করোনা পজিটিভ ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট বোলসোনারো
ডিএসসিসিতে প্রথমবারের মতো ৩ প্যানেল মেয়র