মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাসীরাই ক্ষমতায় থাকবে, বিরোধী দলেও 

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সংসদ অধিবেশন। ফাইল ফটো

walton

জাতীয় সংসদ ভবন থেকে: মুক্তিযুদ্ধের বিশ্বাসীরাই ক্ষমতায় এবং বিরোধী দলে থাকবে আর পাকিস্তানের বিশ্বাসীদের বাংলাদেশে ঠাঁই হবে না বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক ও সংসদ সদস্য (এমপি) মৃণাল কান্তি দাস।

রোববার (০৯ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন। এ সময় অধিবেশনে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন।

মৃণাল কান্তি দাস বলেন, পাকিস্তানপন্থিদের আর কোনো দিন এ দেশের মানুষ বিশ্বাস করবে না। মুক্তিযুদ্ধে যারা বিশ্বাস করে তারাই ক্ষমতায় থাকবে, বিরোধী দলেও থাকবে মুক্তিযুদ্ধের বিশ্বাসীরা-ই। যারা পাকিস্তানে বিশ্বাস করে, পাকিস্তানিদের পা-চাটা তাদের ঠাঁই বাংলাদেশে হবে না। এদেশের মানুষ তাদের আর বিশ্বাস করবে বলে আমি মনে করি না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের অনেক মায়ের কোল খালি করেছেন খালেদা জিয়া, তার কারণে অনেককে বিধবা হতে হয়েছে। গাজীপুরে আহসানউল্লাহ মাস্টার, শাহ এএসএম কিবরিয়া, মানিক সাহা, হুমায়ূন কবির বালু, শামসুর রহমানসহ ২১ হাজার নেতাকর্মীকে হত্যা করেছে। 

‘সেই খালেদার মুক্তি চাওয়া হয় সংসদে। অত্যাচারী নিষ্ঠুর মানুষ হিসেবে যিনি পরিচিত তার জন্য কেন এতো মায়া কান্না? এতিমের টাকা লুটপাট করে খেয়ে তার সাজা হয়েছে। উচ্চ আদালত সে সাজা দ্বিগুণ দিয়েছেন। তাকে কেন মুক্তি দিতে হবে?’

বিএনপির উদ্দেশ্যে মৃণাল কান্তি দাস বলেন, তারা আইনের প্রয়োগ চায় না। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হোক তা তারা চায় না। খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক রহমানের প্রেসক্রিপশনে সারা দেশে অত্যাচার, নির্যাতন এবং হত্যাকাণ্ড হয়। দেশের বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে দেখেন, এখনও মানুষ কী বলে? 

তিনি বলেন, ‘লন্ডনে বসে তারেক রহমান দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন। আর আমাদের মহান সংসদে বসে তার প্রসংশা করা হয়। তাদের (বিএনপি সংসদ সদস্য) এই আচরণে সভ্যতা লজ্জা পায়।’

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০২০
এসকে/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: সংসদ অধিবেশন
করোনা: দেশীয় স্টার্টআপদের জন্য ভিসিপিয়াবের ৬ প্রস্তাব
সরে দাঁড়ালেন বার্নি স্যান্ডার্স
হাসপাতালে রোগীর খাবার পৌঁছাতে এগিয়ে এলো পুলিশ
গোডাউন থেকে ২১ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার
৪০০ পরিবহন শ্রমিককে খাবার দিলেন ফারাজ করিম


সার্কভুক্ত দেশের বাণিজ্য ক্ষতি পোষাতে ৫ সুপারিশ
ইসরায়েলে করোনা আক্রান্ত বেড়ে প্রায় ১০ হাজার, মৃত্যু ৭১
করোনা প্রতিরোধে দোষারোপ নয়, একযোগে কাজ করতে জাসদের আহ্বান
বিশ্বকাপ ফাইনালের ম্যাচসেরা অনুপ্রেরণা হিসেবে দেখছেন আকবর
গৃহহীনদের অস্থায়ী আবাসনের দাবি গণসংহতি আন্দোলনের