php glass

সার্ক গণতন্ত্র সনদের খসড়া চূড়ান্ত

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

দক্ষিণ এশিয়ায় গণতন্ত্রের প্রসার ও সংরক্ষণের লক্ষ্যে সার্ক গণতন্ত্র সনদের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। রোববার ঢাকায় দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থাভুক্ত (সার্ক) দেশসমূহের দুই দিনের আন্ত:সরকার বৈঠকের শেষ দিনে এই সনদের খসড়া চুড়ান্ত হয়।

ঢাকা: দক্ষিণ এশিয়ায় গণতন্ত্রের প্রসার ও সংরক্ষণের লক্ষ্যে সার্ক গণতন্ত্র সনদের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে।

রোববার ঢাকায় দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থাভুক্ত (সার্ক) দেশসমূহের দুই দিনের আন্ত:সরকার বৈঠকের শেষ দিনে এই সনদের খসড়া চুড়ান্ত হয়।

বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র সচিব মোহাম্মদ মিজারুল কায়েস এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘সনদে শুধু গণতন্ত্রের মূল্যবোধের কথাই অন্তর্ভূক্ত হয়নি, গণতন্ত্রের প্রসার ও সংরক্ষণের লক্ষ্যে সদস্য দেশগুলো যেন এগিয়ে যেতে পারে তারও নির্দেশনা অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে এতে।’

গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়ার বিষয়টিও খসড়ায় এসেছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

‘অগণতান্ত্রিক শক্তি ক্ষমতা দখল করলে অথবা কোনোভাবে গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রা ব্যহত হলে কি করা হবে?’ বিষয়টি খসড়ায় এসেছে কিনা, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘গণতন্ত্র সংরক্ষণে সব উদ্যেগই এ খসড়ায় রাখার চেষ্টা করা হয়েছে।’

বৈঠকে উপস্থিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, এ সনদ সামরিক বা অন্য কোন অগণতান্ত্রিক শক্তির ক্ষমতা দখল বা অগণতান্ত্রিক চর্চার ক্ষেত্রে শাসকদের বিরুদ্ধে চাপ প্রয়োগ করতে পারবে।

পাশাপাশি মানবাধিকার, ধর্মনিরপেক্ষতা, স্বাধীনতা, শান্তিসহ উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের সঙ্গে সম্পৃক্ত সবগুলো বিষয় আলোচনায় এসেছে বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, ‘এই খসড়া একটি প্রামাণ্য দলিল। এর উপর ভিত্তি করে ভবিষ্যতে গণতন্ত্র সংরক্ষণে পদক্ষেপ নেওয়া যাবে। এছাড়া এ সনদ জাতীয় এবং আঞ্চলিক ক্ষেত্রে গণতন্ত্রের মুল চেতনাকে সমুন্নত করবে। ’

ভুটানে অনুষ্ঠিত ১৬তম সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রস্তাব অনুযায়ী সার্ক গণতন্ত্র সনদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। এবং খসড়া প্রণয়নের দায়িত্ব পড়ে বাংলাদেশের উপর। ঢাকায় দুই দিন ব্যপি বৈঠকে সদস্য দেশগুলো যাছাই বাছাইয়ের পর সনদের খসড়া অনুমোদন করে।

মিজারুল কায়েস বলেন, প্রস্তাবিত সনদ ভবিষ্যতে সার্ককে শক্তিশালী করবে। এ অঞ্চলের উন্নয়নেও এটি ভূমিকা রাখবে কেননা উন্নয়ন এবং গণতান্ত্রিক সরকারের মধ্যে ঘনিষ্ট সম্পর্ক রয়েছে।

তিনি জানান বৈঠকে সদস্য দেশগুলোর প্রতিনিধিরা স্বতস্ফুর্তভাবে সনদটি গ্রহণ করেছে। তারা সবাই বলেছে এখন সার্কভূক্ত সব দেশে গণতান্ত্রিক সরকার দেশ পরিচালনা করছে। সুতারাং গণতন্ত্রের পক্ষে কথা বলার এবং কাজ করার এটাই সবচেয়ে উপযুক্ত সময়।

তিনি বলেন, ‘আগামী নভেম্বরে সার্ক পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে সনদটি চূড়ান্ত হবে। এরপর আগামী বছর এপ্রিলে সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে রাষ্ট্রপ্রধানরা সনদটিকে অনুমোদন দিলে এটি কার্যকর হবে। এ সনদ দক্ষিণ এশিয়ায় গণতন্ত্রের বিকাশ এবং গণতান্ত্রিক চর্চার ক্ষেত্রে একটি ভিত্তি হিসাবে কাজ করবে।’

চূড়ান্তভাবে অনুমোদনের আগে তিনি গণতন্ত্র সনদের বিস্তারিত জানাতে অস্বীকার করেন।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সার্ক ডেস্কের মহাপরিচালক সুফিউর রহমান বলেন, গণতন্ত্র, উন্নয়ন, সুশাসন, ন্যায় বিচার, দারিদ্র দূরীকরণ এসব বিষয় পারস্পরিক  সম্পর্কযুক্ত।

বাংলাদেশ সময় ১৭৩৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১০

আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা
কোহলিদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা 
বিয়ের আসরে বোমা হামলায় সব হারিয়ে নিঃস্ব বর
বিএনপি আদালতে ব্যর্থ, আন্দোলনেও ব্যর্থ: কাদের
ঈশ্বরদীতে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ     


প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে রাজধানীতে শোভাযাত্রা করবে বিএনপি
মঙ্গলবার থেকে মশানিধনে চিরুনি অভিযান
ঝিনাইদহে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন
আসছে ধারাবাহিক নাটক ‘বেমানান’
ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে শরিয়তের বিধান