বর অষ্টমের, কনে ষষ্ঠ শ্রেণির!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: প্রতীকী

walton

খাগড়াছড়ি: খাগড়াছড়ির পানছড়িতে ১৫-২০ দিন আগে কিশোর খোরশেদ আলমের (১৬) সঙ্গে কিশোরী আছিয়া বেগমের (১৪) বিয়ে দেয় দুই পরিবার। দু’জনে পানছড়ির মধ্যনগর মাদ্রাসার যথাক্রমে অষ্টম ও ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী।

এই বাল্যবিয়ে অনেকটা গোপন সারা হলেও নজর এড়ায়নি প্রশাসনের। বিষয়টি জানতে পেরে সোমবার (২৮ অক্টোবর) বিকেলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন পানছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম। বাল্যবিয়ে প্রমাণিত হওয়ায় বর-কনের বাবাকে ৬ মাসের করে কারাদণ্ড দিয়ে জেলহাজতে পাঠান। পাশাপাশি প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত আলাদা থাকার নির্দেশ দেওয়া হয় দুই কিশোর-কিশোরীকে।

বর খোরশেদের দণ্ডপ্রাপ্ত বাবার নাম নজরুল ইসলাম, আর কনে আছিয়ার বাবার নাম আইয়ুব আলী।

সূত্র জানায়, বাল্যবিয়ের বিষয়টি জানতে পেরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা দুই পরিবারের সদস্যদের ডেকে কাগজপত্র যাচাই করেন। তখন দেখেন বর অষ্টম এবং কনে ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া। মাদ্রাসায় ভর্তি রেজিস্টার অনুযায়ী তাদের বয়স যথাক্রমে ১৬ ও ১৪ বছর। পরে ইউএনও ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বর-কনের বাবাকে কারাদণ্ড ও দুই কিশোর-কিশোরীকে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত আলাদা থাকার নির্দেশ দেন।

পানছড়ি থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) খুশী রাম বাংলানিউজকে জানান, কারাদণ্ডপ্রাপ্ত দু’জনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। 
 
বাংলাদেশ সময়: ২১৪৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৮, ২০১৯
এডি/এইচএ/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ভ্রাম্যমাণ আদালত খাগড়াছড়ি
করোনা: ফরজ নামাজের পরেই বন্ধ মসজিদের দরজা
চমেক হাসপাতালে পিপিই দিলো সানশাইন চ্যারিটি
চট্টগ্রামে আরও ১০৪ জনের করোনা পরীক্ষা, আক্রান্ত নেই
করোনা: বাংলাদেশে শুধু বয়স্ক নয়, ঝুঁকিতে সব বয়সীরাই
পুলিশ প্রধান হিসেবে আমি অত্যন্ত গর্বিত ও আনন্দিত: আইজিপি


জাতীয় অধ্যাপক সুফিয়া আহমেদের ইন্তেকাল
কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিকে অ্যাপে নজরদারি করবে পুলিশ
মসজিদে মুসল্লি নিয়ন্ত্রণে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নজরদারি
করোনার মধ্যে বিয়ে: সেই সরকারি কর্মকর্তা চাকরি থেকে বরখাস্ত
ভারতে বাড়ছে লকডাউনের মেয়াদ: মমতা