php glass

‘ক্লাবগুলোর জবাবদিহীতায় আইন পরিবর্তন করা উচিত’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। ছবি: বাংলানিউজ

walton

সিলেট: ক্লাবগুলোকে জবাবদিহীতার মধ্যে যেন আনা যায়। সেজন্য আইন পরিবর্তনের সময় এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি।

শনিবার (১২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম সংলগ্ন আউটার স্টেডিয়ামের উন্নয়ন কাজ পরিদর্শ শেষে ক্রীড়াঙ্গনে ক্লাবগুলোতে ক্যাসিনোর বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ক্রীড়াঙ্গনে কিছু কিছু ক্লাব ক্যাসিনো চালু করেছিল। কিন্তু এগুলো যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধীনে নয়। বাণিজ্যমন্ত্রণালয় এই ক্লাবগুলোর রেজিস্ট্রেশন দেয়। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় হলে আমাদের জবাবদিহীতার আওতায় থাকতো। অবশ্য এখন এই আইন পরিবর্তনের মাধ্যমে ক্লাবগুলোকে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধীনে আনা উচিত। আর যারা  ভালো সংগঠক ও ক্রীড়াঙ্গনকে মনে-প্রাণে ভালবাসেন, এ ধরনের ভাল সংগঠককে ক্লাবগুলোর দায়িত্ব নেওয়া উচিত।

ক্যাসিনো কাণ্ডে বিসিবি’র পরিচালক গ্রেফতার প্রসেঙ্গে তিনি বলেন, খেলোয়াড়রা অন্যায় করলে আমরা অ্যাকশন নিতে পারি। পরিচালকদের ক্ষেত্রে বিসিবি’র অ্যাকশন নেওয়া উচিত। যদি অ্যাকশন না নেওয়া হয় তবে অন্যরা অন্যায় করার সুযোগ পাবে। আর অন্যায়কারীরা যত বড় সংগঠক হোক তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেওয়া প্রযোজ্য।

সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম নাদেল বলেন, প্রায় ২৪ কোটি টাকা ব্যয়ে আউটার স্টেডিয়ামের কাজ চলছে। এটির ‍দুই প্রান্তে সবুজ গ্যালারি থাকবে। আর এখানে যেহেতু প্রেসব্রিফিং রুম নেই তাই মূল স্টেডিয়ামের সঙ্গে ফ্লাইওভারে যুক্ত থাকবে।

বাংলাদেশ সময়: ০০০৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৩, ২০১৯
এনইউ/এমএমইউ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: সিলেট
পাবনায় ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে ২ জনের ফাঁসি
বরিশালে দিনে দুপুরে বাসায় চুরি
আগুন নিয়ন্ত্রণের পর চলছে ডাম্পিং
আসছে ‘মিশন এক্সট্রিম’র প্রথম পোস্টার
কুষ্টিয়ায় পৃথক মামলায় একজনের ফাঁসি, তিনজনের যাবজ্জীবন


দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত রেমিট্যান্সে কাগজপত্র ছাড়াই প্রণোদনা
সাক্ষী নিয়ে হাইকোর্টে ওসি মোয়াজ্জেমের আবেদন খারিজ
‘মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় দুর্বলতা রয়েছে’
যবিপ্রবির ভর্তি পরীক্ষা বৃহস্পতিবার
দেশের ৩৫ ঊর্ধ্ব ১১.৪ শতাংশ মানুষ সিওপিডিতে আক্রান্ত