php glass

বিচার প্রার্থীদের সঙ্গে সহনশীল আচরণ করতে হবে: রাষ্ট্রপতি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ

walton

কিশোরগঞ্জ: জনগণের ওপর আস্থা রেখে মামলা পরিচালনায় বিচার প্রার্থীদের সঙ্গে সহনশীল আচরণ করতে হবে। বিচারপ্রার্থীরা যাতে ন্যায্য বিচার পায় সেভাবেই আইনের সেবা দেওয়ার জন্য আইনজীবীদের কাজ করে যেতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে কিশোরগঞ্জ জেলা জজ কোর্ট প্রাঙ্গণে জেলা আইনজীবী সমিতির সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এসব কথা বলেন।
 
রাষ্ট্রপতি বলেন, আইনজীবীরা সমাজে ইদানিং পিছিয়ে রয়েছেন। জাতীয় সংসদসহ সবখানে তাদের প্রতিনিধির সংখ্যা দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে। জনগণের সঙ্গে তাদের আচরণগত কারণে দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছে। অথচ আইনজীবীরা সমাজের গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ।

তিনি আরও বলেন, কিশোরগঞ্জ আদালতে বারের কোনো আইনজীবী বা তার আত্মীয়ের নামে মামলা হলে বাদীপক্ষকে কোনো আইনজীবী আদালতে আইনি সহায়তা দেন না। এটা হতে পারে না। এটা অন্যায়। বাংলাদেশের কোথাও এমন কোনো নিয়ম নেই।

সাধারণ মানুষেরা যাতে সহজে আদালতের মাধ্যমে সেবা পেতে পারেন সেজন্য জেলা বারের প্রতি ওকালতনামার ফি কমানোর পরামর্শ দেন রাষ্ট্রপতি।
 
জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট মিয়া মোহাম্মদ ফেরদৌসের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কিশোরগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদ, সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো. সায়েদুর রহমান খান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. জিল্লুর রহমান, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শহিদুল আলম সহিদ, সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এহতেশামুল হক জুয়েল, অ্যাডভোকেট নাযমুন নাহার মলি প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মো. আফজাল হোসেন, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন, জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী, পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ, জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) শাহ আজিজুল হক, স্পেশাল পিপি এম এ আফজল, জেলা আইনজীবী সদস্যসহ বিভিন্ন সামরিক, বেসামরিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
 
অনুষ্ঠানে আইনজীবী সমিতি ও স্থানীয় বিচারকদের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদকে ক্রেস্ট ও মানপত্র দেওয়া হয়।

এর আগে রাষ্ট্রপতি আদালত প্রাঙ্গণে জেলা আইনজীবী সমিতির ১০তলা বিশিষ্ট ‘রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ’ ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। পরে তিনি জেলার বিচারকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

সাত দিন সফরের দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) বিকেলে রাষ্ট্রপতি জেলা শহরের শ্যাম সুন্দর আখড়া পরিদর্শন শেষে পূজা উদযাপন পরিষদের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। পরে সন্ধ্যায় সার্কিট হাউসে গণ্যমান্য ব্যক্তি ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করার কথা রয়েছে। পরে রাষ্ট্রপতি নিজ বাসায় রাত্রিযাপন করবেন।

বুধবার (৯ অক্টোবর) রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলা সফর করেন। এরপর রাষ্ট্রপতি মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) পর্যন্ত কিশোরগঞ্জ সদর, মিঠামইন, ইটনা ও অষ্টগ্রাম উপজেলা সফর করবেন। এসময় তিনি বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ পরিদর্শন, সুধী সমাবেশে বক্তব্য প্রদান, মতবিনিময় সভায় অংশ নেওয়াসহ বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত সময় কাটাবেন।
 
বাংলাদেশ সময়: ২০১৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ১০, ২০১৯
এসএইচ

মালিক-শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান
আর্থিক খাতের রিট শুনানি: দুদকের আইনজীবী বদল
তেঁতুলিয়ায় চা বাগান থেকে দেহবিহীন মাথা উদ্ধার
গোপালগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৩ জনকে কুপিয়ে জখম
শীতের শুরুতেই বিতরণ হবে ৬ লাখ কম্বল


চুয়াডাঙ্গায় স্বর্ণ পাচার মামলায় একজনের যাবজ্জীবন
তিন হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ঘোষণা বুধবার
লঞ্চ ক্যাফের খাবারের দাম বেশি, অভিযোগকারী পেলেন ৩৭৫০ টাকা
‘হোটেল মুম্বাই’ আমাকে সবার উপরে মানবতা শেখায়: অনুপম খের
পোশাক কারখানা পরিদর্শনে নিরাপন’র কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞা