php glass

সাংবাদিককে চ্যালেঞ্জ করে ফেঁসে গেলেন খোকন!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বাজেট ঘোষণা অনুষ্ঠানে মেয়র সাঈদ খোকন। ছবি: বাংলানিউজ

walton

ঢাকা: ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) বাজেট ঘোষণায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিককে চ্যালেঞ্জ করে ফেঁসে গিয়েছেন মেয়র সাঈদ খোকন। চলাচলের অনুপযোগী সড়ক চিহ্নিত করার চ্যালেঞ্জ দিলে সাংবাদিকের বক্তব্য সঠিক বলে মন্তব্য করেন ডিএসসিসিরই এক কাউন্সিলর।

রোববার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ডিএসসিসি নগর ভবনে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা করেন সাঈদ খোকন। বাজেট ঘোষণা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নোত্তর পর্ব শুরু হয়। এসময় ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস পত্রিকার প্রতিবেদক কামরুন নাহার তার প্রশ্নে বলেন, আপনি (খোকন) বক্তব্যে দাবি করেছেন যে, আপনার এলাকার ৯০ শতাংশ সড়ক চলাচলের উপযোগী। কিন্তু, বাস্তবতা ঠিক উল্টো।’ এসময় প্রশ্নকর্তাকে থামিয়ে দিয়ে মেয়র বলে ওঠেন, ‘আপনি প্রমাণ করতে পারলে যা চাইবেন তাই পুরস্কার দেবো।’ 

প্রতিবেদক তখন বলেন, ‘আমার পুরস্কার লাগবে না। আমি কাঠালবাগান, কলাবাগান এলাকায় থাকি। সেখানে প্রায় পুরো এলাকাতেই সড়কের বেহাল দশা। বিশেষ করে বয়োজ্যেষ্ঠ ও গর্ভবতী নারীদের রিকশা নিয়েও চলাচল করতে কষ্ট হয়।’ 

মেয়র এ অভিযোগকে প্রত্যাখ্যান করে বক্তব্য দিলে কামরুন নাহার আবার বলে ওঠেন, ‘আপনার কাউন্সিলর ওই এলাকায় উন্নয়নের জন্য কোনো বরাদ্দ পান না বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।’ মেয়র বলেন, ‘এমনটা হতে পারে না। এখানে ওই এলাকার কাউন্সিলর আছেন। তাকে এখনই জিজ্ঞেস করা হোক।’

তাৎক্ষণিক ওই এলাকার কাউন্সিলর (ডিএসসিসি-১৭) সালাউদ্দিন আহমেদ ঢালী সাংবাদিকের বক্তব্যকে সমর্থন করে বলেন, কথা সত্য। আমার এলাকায় রাস্তাঘাট উন্নয়নে বরাদ্দ পাচ্ছি না।

কাউন্সিলরের এ বক্তব্যে উত্তেজিত হয়ে সাঈদ খোকন ওই এলাকার (অঞ্চল-১) নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে এর কারণ জানতে চান। একই সঙ্গে তাকে মৌখিকভাবে কারণ দর্শানোরও নোটিশ জারি করেন। কারণ সন্তোষজনক না হলে ওই প্রকৌশলীকে বরখাস্তের জন্য অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আসাদুজ্জামানকে নির্দেশও দেন তিনি। 

একই অনুষ্ঠানে মেয়রের উদ্দেশে একটি অনলাইন পত্রিকার প্রতিবেদক শাহেদ শফিক ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন রাখেন। সিটি করপোরেশনের মশা নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমে ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের সেভাবে সক্রিয় হতে দেখা যায় না। তাহলে মেয়র সামনের দিনগুলোতে ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কীভাবে কাজ করবেন- এমন প্রশ্ন করতেই মেয়রের উপস্থিতিতেই উত্তেজিত হয়ে ওঠেন কাউন্সিলররা। প্রশ্নকারী সাংবাদিকের প্রতি অসৌজন্যমূলক ও উদ্ধত আচরণ করেন তারা। 

অনুষ্ঠানে উপস্থিত অন্য সাংবাদিকরা এর প্রতিবাদ করলে তাদের অডিটোরিয়াম থেকে বের হয়ে যেতে বলা হয়। মারমুখী আচরণে একপ্রকার ঝাঁপিয়ে পড়তে উদ্যত হন কাউন্সিলররা। এসময় ইউটিলিটি বিটের সাংবাদিকদের সংগঠন ডুরা’র সভাপতি মশিউর রহমানসহ অন্যরা মেয়রের উপস্থিতিতে কাউন্সিলরদের এমন আচরণের প্রতিবাদ করেন।

পরে, সাঈদ খোকনের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়। কাউন্সিলরদের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি বলেন, তাদের (সাংবাদিক) সঙ্গে এমন আচরণ কেন করছেন? তারা আমাদের অতিথি, আমাদের নিমন্ত্রণে এসেছেন। তাদের সঙ্গে এমন আচরণ আপনারা কীভাবে করতে পারেন? 

এমন পরিস্থিতির পর সংবাদ সম্মেলনে তাৎক্ষণিক স্থগিত করা হয়। 

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০১, ২০১৯
এসএইচএস/একে

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ডিএসসিসি
ksrm
বগুড়ায় জালিয়াতি চক্রের ৫ সদস্য আটক
মুক্তিযুদ্ধস্মৃতির স্থান চিহ্নিত হবে গুগল ম্যাপে
যেকোনো মূল্যে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফেরানোর চেষ্টা চলছে
অবৈধ বালাইনাশক বিক্রির দায়ে শিবগঞ্জে ২ দোকানকে জরিমানা
যাত্রাবাড়ীতে লেগুনা-ট্রাকের সংঘর্ষ, আহত ৩


স্বাধীন সাংবাদিকতার দাবিতে জাবিতে মানববন্ধন
মার্কিন-আফগান বিমান হামলায় ‘ভুলে’ ৩০ কৃষক নিহত
লেবু-জাতীয় ফসলের আমদানি নির্ভরতা কমাতে হবে: কৃষিমন্ত্রী
তামাকের বিজ্ঞাপন অপসারণের নির্দেশ রাজশাহী ডিসির
জাপার সাংগঠনিক আট বিভাগীয় সমন্বয়কারী টিম গঠিত