php glass

তোমরা মানুষের বাচ্চা না, গণবি শিক্ষার্থীকে জাফরুল্লাহ

গণ বিশ্ববিদ্যালয় করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও মাহতাবুর রহমান

walton

গণ বিশ্ববিদ্যালয় (সাভার): সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মুখপাত্রকে উদ্দেশ্য করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ‘তোমরা মানুষের বাচ্চা না’।

আন্দোলনকারীদের প্লাটফর্ম গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ ছাত্র পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক মাহতাবুর রহমানের সঙ্গে ফোনালাপকালে তিনি এ কথা বলেন। বিদ্যমান সংকট নিরসনের উপায় খুঁজতে মঙ্গলবার (১১ জুন) দুপুরে ডা. জাফরুল্লাহর সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলতে চাইছিলেন মাহতাবুর। দু’জনের ফোনালাপের অডিও এরইমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।
 
বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) অনুমোদিত উপাচার্য নিয়োগের দাবিতে গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ ছাত্র পরিষদের ব্যানারে গত ৬ এপ্রিল থেকে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন এবং সব ধরনের প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধের ঘোষণা দিয়ে আন্দোলন করে আসছে শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে দফায় দফায় প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনায় বসে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি দল। তবে আলোচনায় কোনো কার্যকর সমাধান না আসায় আন্দোলনে অটল থাকে শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বারবার শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষায় অংশ নিতে আদেশ দিতে থাকে, যদিও শিক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলনই চালিয়ে যায়।
 
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের এক পর্যায়ে গত ১১ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত এক নোটিশে শিক্ষকদের বেতন বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়। নোটিশে বেতন স্থগিতের কারণ হিসেবে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কারণে সেমিস্টার ফি জমা না হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থিক অবনতির কথা উল্লেখ করা হয়। পরে ২১ মে শিক্ষকদের বেতন বিষয়ে জানতে চাইলে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের চাকরি ছেড়ে অন্যত্র যাওয়ার জন্য বলেন।
 
এই অচলাবস্থা কাটাতে গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ ছাত্র পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক মাহতাবুর রহমান প্রতিষ্ঠানের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে উল্টো বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে দেওয়ার কথা শোনেন। দু’জনের ফোনালাপ তুলে ধরা হলো।
 
মাহতাবুর রহমান: স্যার, আসসালামু আলাইকুম!
ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী: ওয়ালাইকুম-আসসালাম!
 
মাহতাবুর রহমান: স্যার, আপনি আমাদের সাথে বসেন, শিক্ষার্থীদের জন্য কী করবেন, বৈধ ভিসি ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় চলবে নাকি?
ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী: না, তোমাদের সাথে বসবো না, তোমরা মানুষের বাচ্চা না!
 
মাহতাবুর রহমান: স্যার আমাদের তো ভিসি নাই, বিবিএ, মেডিকেল, ফিজিওথেরাপি’র অনুমোদন নাই, এগুলো দেবেন না আমাদের?
ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী: তোমরা অন্য ইউনিভার্সিটিতে চলে যাও। অন্য জাগায় চলে যাও, বাজে কথা বলো না। তুমি ছাড়ো, এবার তুমি ছাড়ো!
 
মাহতাবুর রহমান: আমরা অন্য জায়গায় যাবো কেন, স্যার? আমরা আমাদের জীবন নিয়ে অনিশ্চিত। আপনারা কী করতে চান আমাদের নিয়ে? আমরা শিক্ষার্থীরা অনিশ্চয়তার মধ্যে ভুগতেছি স্যার।

মাহতাবুর রহমান ও ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর কথোপকথন শুনতে ক্লিক করুন 

মাহতাবুর রহমানের সঙ্গে ডা. জাফরুল্লাহর ফোনালাপের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভে এসে কথা বলেন গণ বিশ্বদ্যিালয় সাধারণ ছাত্র পরিষদের আহ্বায়ক আহমেদ রনি। তিনি আগামী বুধবার (১২ জুন) থেকে কঠোর আন্দোলনেরও ডাক দেন।
 
তিনি বলেন, ‘ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী স্যার, যাকে আমার স্যার বলতেও লজ্জা লাগে। বড় নামে যিনি পরিচিত। আমরা এ বিশ্ববিদ্যালয়ে বৈধ ভিসি না আসা পর্যন্ত তালা লাগিয়ে দেবো। ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী না আসা পর্যন্ত বিশ্বিদ্যালয়ে তালা থাকবে। আমরা আগামীকাল থেকে কঠোর কর্মসূচিতে যাবো।’
 
বাংলাদেশ সময়: ২৩১৪ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০১৯
এইচএ/

বিলুপ্তির পথে ‘আটিয়া কলা’
‘ক্যারিবীয়দের শর্ট বল মোকাবিলা করতে প্রস্তুত বাংলাদেশ’
ব্রিজ না থাকায় দুর্ভোগে ১০ গ্রামের ৫ হাজার মানুষ 
মাউন্ট কানামো চূড়ায় চার তরুণ
রাতের চরফ্যাশন যেন নৈসর্গিক সৌন্দর্য!


রোববার মধ্যরাতে পঞ্চম ধাপের উপজেলা ভোটের প্রচার শেষ
সুয়ারেজ-কাভানিদের গোলে ইকুয়েডরকে বিধ্বস্ত করলো উরুগুয়ে
বাইরের কথায় নয়, নিজেদের পর্যবেক্ষণে জোর মাশরাফির
রোমানের হাত ধরে বিশ্ব আর্চারিতে প্রথম পদক বাংলাদেশের
প্রেমের টানে ঘর ছেড়ে পুলিশি হেফাজতে তরুণী