ঢাকা, শনিবার, ৩ মাঘ ১৪২৭, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

জাতীয়

জমজমাট  নারায়ণগঞ্জের বিনোদনকেন্দ্রগুলো

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২৬ ঘণ্টা, জুন ৬, ২০১৯
জমজমাট  নারায়ণগঞ্জের বিনোদনকেন্দ্রগুলো নারায়ণগঞ্জের একটি বিনোদন কেন্দ্রে দর্শনাথীদের ভিড়

নারায়ণগঞ্জ: ঈদের আমেজ তো এমনিতেই সাতদিন পর্যন্ত থাকে। সেই আমেজের জেরে ঈদের দ্বিতীয় দিনে শহরের সব বিনোদনকেন্দ্রে বিকেলের পর থেকেই দেখা যায় ব্যাপক ভিড়। দুপুরের পর থেকেই শহরের আশপাশের মানুষ পরিবার-পরিজন নিয়ে বের হন ঘুরতে। বেশিরভাগই শিশুদের নিয়ে হানা দিচ্ছেন শহরের বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) দুপুরের পর থেকে শহরের খানপুর বরফকল মাঠের পাশে চৌরঙ্গী পার্ক (ইকো পার্ক), লিংক রোডের পাশে নম পার্ক ও পঞ্চবটির অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ড পার্কে দেখা যায় প্রচুর মানুষের ভিড়। পার্কগুলোর বাইরে থেকেই মানুষের লাইন লেগে রয়েছে টিকিটের জন্য।

বাড়তি মানুষের চাপ সামলাতে হিমশিম খেতে দেখা যায় পার্কের নিরাপত্তাকর্মীদের। তবে এতো চাপের মধ্যে শহরে পরিবার নিয়ে ঘুরতে বেরিয়ে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছে শহরবাসী।
 
পার্কগুলোর বিভিন্ন রাইডে চড়ে ঈদের অবসর সময়ে মন মাতানো বিনোদন নিতে ভুল করেনি কেউ। কেউ কেউ বাইরে থেকে অভিযোগ করছিল পার্কে টিকিট ও রাইডের জন্য বাড়তি চার্জ নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু সরেজমিনে দেখা যায় টিকিটের নির্ধারিত মূল্যের বেশি নেওয়া হয়নি এক টাকাও। তবে মানুষের চাপ বেশি থাকার টিকিট ব্যবস্থাপনায় কিছুটা অব্যবস্থাপনা দেখা গেছে। কর্তৃপক্ষ বলছে মানুষের বাড়তি চাপের কারণেই এমনটা হচ্ছে। তবে এটা তারা সামলে নিচ্ছেন।  
বরফকল চৌরঙ্গী পার্কে ঘুরতে আসা ডন চেম্বার ব্যাংক কলোনি এলাকার বাসিন্দা ফজলুল হক বলেন, আমি বন্ধুদের নিয়ে ঘুরতে এসেছি। ভালো মজা করেছি, রাইডেও চড়েছি। তবে টিকিটের জন্য দীর্ঘ লাইনে দাঁড়াতে হয়েছে।
 
সোনারগাঁ থেকে পরিবার নিয়ে নম পার্কে ঘুরতে আসা রহমান বলেন, আমার ছেলেমেয়েরা বায়না ধরেছে ঘুরতে যাবে, তাই নিয়ে এলাম। এখানে ভালো মজা করেছে ওরা। বিভিন্ন রাইডে উঠেছে, ঘোরাঘুরি করছে। মূলত বাচ্চাদের আনন্দ দেখলেই আমাদের ঈদ হয়ে যায়। তাই চেষ্টা করি ওদের আবদার সাধ্যমতো পূরণ করতে।  

সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে ঘুরতে আসা নতুন দম্পতি শারমিন ও শাহ আলম বলেন, বিয়ের পরের প্রথম ঈদ এটি। কোনো প্ল্যান ছিল না এমনিতেই চলে এসেছি। ভালোই লাগছে, আগে তো শহরে ঘোরার জায়গা ছিল না। এখন পার্কটা পাওয়ায় অনেক ভালো লাগছে।
 
এদিকে পঞ্চবটির অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ড পার্কেও দেখা যায় অনেক ভিড়। সেখানেই বাইরে থেকে লাইন ধরে দাঁড়িয়ে রয়েছেন পার্কে ঘুরতে আসা মানুষ।
 
পার্কে আসা পুলিশ লাইন এলাকার রায়হান বলেন, স্ত্রী বাচ্চাদের নিয়ে ঘুরতে এলাম। শহরেতো আর ঘোরার তেমন কোনো জায়গা নেই, তাই এসেছি। মানুষের ভিড় আছে একটু, তবুও ভালো লাগছে। পরিবারের সবাইকে নিয়ে ঘুরতে পারাটাই শান্তি।
 
একই পার্কে আসা ফাহিমা বলেন, বান্ধবীদের নিয়ে ঘুরতে এসেছি। ঈদের পর তো বাসা থেকে বের হতে দেয় না, তাই সবাই বাসায় অনেক কষ্টে বলে এসেছি। এখানে ভালোই লাগছে, সবাই মিলে ঘুরবো, খাবো।  

বাংলাদেশ সময়: ০৫১৯ ঘণ্টা, জুন ০৬, ২০১৯
এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa