php glass

বিরতিহীন ট্রেনের স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে পঞ্চগড়বাসীর 

সোহাগ হায়দার, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

পঞ্চগড় রেলস্টেশন। ছবি: বাংলানিউজ

walton

পঞ্চগড়: দীর্ঘ প্রতীক্ষা ও আন্দোলনের পর গত বছরের নভেম্বরে চালু হয়েছে পঞ্চগড় টু ঢাকা সরাসরি দু’টি আন্তঃনগর ট্রেন। এবার পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগে আরেকটি বিরতিহীন ট্রেন পাচ্ছেন উত্তরবঙ্গের লোকজন। নতুন এ ট্রেনটি চালু হলে রাজধানী ঢাকাসহ উত্তরাঞ্চলীয় জেলার যাত্রীরা উপকার পাবেন।

রেল মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, গত এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী বিরতিহীন ট্রেনটি উদ্বোধন করেন। এবার আসন্ন ঈদের আগেই ঢাকা টু পঞ্চগড় নতুন ট্রেন সার্ভিস চালু হবে। ঢাকা থেকে রেলপথে পঞ্চগড়ের দূরত্ব ৬৩৯ কিলোমিটার। নতুন ট্রেনটি বিরতিহীনভাবে ঢাকা থেকে দিনাজপুর, এরপর পার্বতীপুর-ঠাকুরগাঁওয়ে থামবে। পরে শেষ স্টেশন হিসেবে পঞ্চগড় পৌঁছাবে।

আগামী ২২ তারিখের মধ্যে ঢাকা-পঞ্চগড় বিরতিহীন ট্রেনটি চালু হতে পারে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার শরিফুল আলম।

গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, আগামী ২৬ মে ওই ট্রেনের উদ্বোধন করা হবে বলে জানিয়েছেন রেল সচিব মোফাজ্জেল হোসেন। এর আগে, গত ২৮ এপ্রিল রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ‘রেলসেবা অ্যাপস’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিরতিহীন নতুন এ ট্রেন চালুর তথ্য জানান রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

স্থানীয় একটি সামাজিক সংগঠনের সদস্য রাব্বি ইমন বাংলানিউজকে বলেন, দীর্ঘদিন আন্দোলনের পর আমাদের প্রাণের দাবি পঞ্চগড় টু ঢাকা দু’টি আন্তঃনগর ট্রেন চালু হয়েছে। এবার চালু হচ্ছে বিরতিহীন ট্রেন। এতে আগের তুলনায় পঞ্চগড়বাসীর রেলপথে যাতায়াতে অনেক সুবিধা হবে।

সেলিম শাহ নামে এক সাংবাদিক বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে রেলপথ অনেক উন্নত হয়েছে। দু’টি আন্তঃনগর ট্রেনের পর এবার পঞ্চগড়ের জন্য বিরতিহীন ট্রেন চালু হচ্ছে। এটি অবশ্যই সুখবর। এসময় ট্রেনটির আসন সংখ্যা বাড়ানোর দাবি জানান তিনি।

পঞ্চগড় রেলস্টেশনের মাস্টার মোশাররফ হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, ঢাকা থেকে পঞ্চগড় পর্যন্ত যে বিরতিহীন ট্রেন চালু হচ্ছে তার নাম, কয়টি আসন থাকবে বা ভাড়া কতো তা এখনও জানা যায়নি।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার শরিফুল আলম বাংলানিউজকে বলেন, আগামী ২২ মের মধ্যে ট্রেনটি চালু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যেহেতু প্রধানমন্ত্রী নিজে ট্রেনটি উদ্বোধন ও নামকরণ করবেন, তাই এ মুহূর্তে তেমন কিছু বলা যাচ্ছে না। 

জানা যায়, ৯৮২ কোটি টাকা ব্যয়ে রেল মন্ত্রণালয়ের আওতায় পার্বতীপুর থেকে ঠাকুরগাঁও হয়ে পঞ্চগড় পর্যন্ত ১৫০ কিলোমিটার রেললাইনের নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১০ সালে। ওই বছরের ৩১ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ রেললাইনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এর কাজ শেষ হয় ২০১৬ সালে।  ২০১৭ সালের ১৭ জুন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক দিনাজপুর পর্যন্ত একটি ইন্টার সিটি শাটল ট্রেন উদ্বোধন করেন। পরে এ নিয়ে স্থানীয় সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো আন্দোলন শুরু করে। তারা সরাসরি ঢাকা-পঞ্চগড় ট্রেন চলাচলের দাবি তোলেন।

গত বছরের ২৯ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সে ঠাকুরগাঁওয়ের এক জনসভায় এ দাবি সম্বলিত ব্যানার দেখতে পেয়ে বলেন, ব্যানার নামিয়ে ফেলুন, পঞ্চগড়ে ট্রেন যাবে। প্রধানমন্ত্রীর সে প্রতিশ্রুতি এবার বাস্তবায়িত হতে চলেছে।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৩৫ ঘণ্টা, মে ১৩, ২০১৯
একে

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: রেলপথ মন্ত্রণালয় ট্রেন সার্ভিস
বান্ধবীর সহযোগিতায় কিশোরী গণধর্ষণের শিকার, গ্রেফতার ৩
কমিউনিটি ক্লিনিকে সীমাহীন অনিয়ম, সেবাবঞ্চিত হাওরবাসী
বড়পুকুরিয়া সাবেক এক এমডিসহ ৩ কর্মকর্তা জেল হাজতে
‘রাজধানীতে প্রতিদিন ৫ হাজার টন খাদ্য অপচয় হয়’
সন্ত্রাস দমনে গণশপথ নিলেন বুয়েটের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা


আবরারের নামে হলের নাম!
দিল্লিতে জেল খেটেছিলেন নোবেলজয়ী অভিজিৎ
ছেঁউড়িয়ায় বসেছে সাধুর হাট, সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন
হাইকোর্টে ওসি মোয়াজ্জেমের জামিন আবেদন: আদেশ ৩ নভেম্বর
সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি নিয়ে মার্কিন প্রস্তাবে তুরস্কের ‘না’