ঢাকা, সোমবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৭, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২ সফর ১৪৪২

জাতীয়

যৌন হয়রানির প্রতিবাদে আশুলিয়ায় শ্রমিকদের অনশন

সাভার করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৯, ২০১৯
যৌন হয়রানির প্রতিবাদে আশুলিয়ায় শ্রমিকদের অনশন

আশুলিয়া (ঢাকা): আশুলিয়ায় ডংলিয়ন বিডি ফ্যাশন লিমিটেড কারখানার এক নারী পোশাক শ্রমিককে যৌন হয়রানির প্রতিবাদে ওই কারখানার ১৭ শ্রমিক অনশনে বসেছে।

সোমবার (২৯ এপ্রিল) সকালে তারা আশুলিয়ার ইউনিক এলাকার ডংলিয়ন কারখানার সামনে কর্মসূচি পালন করতে গেলে পুলিশের বাধায় তা পণ্ড হয়ে যায়। পরে দুপুর থেকে তারা আশুলিয়ার বাইপাইল এলাকায় প্রেসক্লাবের সামনে শহীদ মিনার চত্বরে কর্মসূচি শুরু করে।

শ্রমিকেরা জানায়, ডংলিয়ন বিডি ফ্যাশন লিমিটেড কারখানার এপিএম জহিরুল দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন নারী শ্রমিককে যৌন হয়রানি করেন। গত মার্চের ১৮ তারিখে ওই এপিএম প্রকাশ্যে এক নারী শ্রমিককে যৌন হয়রানি করেন। পরে কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছে বিচার চাইলে উল্টো ১৭ নারী শ্রমিককে শোকজ করে কারখানার গেটের সামনে ছবি টাঙিয়ে তাদের কাজ থেকে বিরত রাখা হয়। কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছে বিচার না পেয়ে যৌন হয়রানির স্বীকার ওই নারী শিল্প পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। পুলিশ ঘটনাটি তদন্ত করে সত্যতা পেয়ে মামলা করার পরামর্শ দেন।

এদিকে, শোকজ হওয়া ১৭ জন শ্রমিকসহ ডংলিয়নের শ্রমিকেরা গত শনিবার (২৭ এপ্রিল) কারখানার সামনে আমরন অনশন কর্মসূচি শুরু করে। পরে শিল্প পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে রোববারের (২৮ এপ্রিল) মধ্যে বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিলে শ্রমিকেরা অনশন প্রত্যাহার করে নেন। আশ্বাসের একদিন পার হয়ে গেলেও বিষয়টি সমাধান না হওয়ায় শ্রমিকেরা সোমবার সকাল থেকে আবারও কারখানার সামনে অবস্থান নিতে গেলে শিল্প পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়। এরপর শ্রমিকেরা বাইপাইল এলাকায় প্রেসক্লাবের শহীদ মিনারের সামনে এসে অনশন শুরু করে।

এসময় আন্দোলনরত শ্রমিকেরা এপিএমের বহিষ্কার ও চাকরিতে পুনর্বহালের দাবি জানান।

যৌন হয়রানির স্বীকার ওই নারী অভিযোগ করে বাংলানিউজকে বলেন, কারখানার এপিএমমের বিচার চাওয়ায় তার সহকর্মী ১৬ শ্রমিককে শোকজ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় তিনি নিজে বাদী হয়ে ২০ এপ্রিল আশুলিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দিলেও এখনো পুলিশ মামলা নেয়নি।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ বস্ত্র পোশাক শিল্প শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. সারোয়ার হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, আমি পুলিশ কারখানার মালিক পক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি, বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা চলছে।

শিল্প পুলিশ ঢাকা-১ এর এসপি সানা সামিনুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, ঘটনাটি সমাধানের জন্য কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা চলছে।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিজাউল হক দিপুর মোবাইলে একাধিকবার ফোন করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে পুলিশ পরিদর্শক (ওসি, তদন্ত) জাবেদ মাসুদ বাংলানিউজকে বলেন, ২০ তারিখে অভিযোগ পেয়েছেন তবে এ ঘটনায় এখনো কোনো মামলা নেওয়া হয়নি।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৭ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৯, ২০১৯
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa