সাকার আবেদনের শুনানি বুধবার পর্যন্ত মুলতবি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

একাত্তরে গণহত্যাসহ মানবতা-বিরোধী অপরাধের অভিযোগে কারাবন্দি বিএনপি নেতা সাংসদ সালাহউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর বিরুদ্ধে করা মামলা স্থগিতের আবেদনের উপর শুনানি বুধবার পর্যন্ত স্থগিত করেছেন ট্রাইব্যুনাল। 

ঢাকা: একাত্তরে গণহত্যাসহ মানবতা-বিরোধী অপরাধের অভিযোগে কারাবন্দি বিএনপি নেতা সাংসদ সালাহউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর বিরুদ্ধে করা মামলা স্থগিতের আবেদনের উপর শুনানি বুধবার পর্যন্ত স্থগিত করেছেন ট্রাইব্যুনাল।  

মঙ্গলবার দুপুরে ট্রাইব্যুনাল চেয়ারম্যান বিচারপতি নিজামুল হক এ আদেশ দেন।

এদিকে সাকা নিজেই আবেদনের শুনানিতে অংশ নেন। তার পক্ষে কোনও আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন না।

কোনও আইনজীবী না থাকার কারণে আদালত তাকে প্রশ্ন করলে সাকা বলেন, কোনও আইনজীবী নিয়োগ করব না, আমিই শুনানিতে অংশ নেব।

এর পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাইব্যুনাল বলেন, তাহলে আগের দেওয়া আইনজীবীদের তালিকা প্রত্যাহার করতে হবে।   

এর আগে মঙ্গলবার সকাল ১০টা ৫৭ মিনিটে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে পুলিশের একটি প্রিজন ভ্যানে করে তাকে হাজির করা হয়।

বেলা ১১টা ১০ মিনিটে ট্রাইব্যুনাল শুরু হয়ে দুপুর ১টা ২০ মিনিট পর্যন্ত চলে।

এদিকে সাকা চৌধুরীকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা উপলক্ষে চট্টগ্রাম থেকে বেশ কয়েকটি বাসে করে প্রচুর লোক হাইকোর্ট এলাকায় আসে।

তাই ট্রাইব্যুনাল এলাকায় জোরদার কারা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়।

এর আগে বুধবার আইনজীবী ব্যারিস্টার ফখরুল ইসলামের নাম ও ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবদীনসহ শতাধিক আইনজীবীর স্বাক্ষরসহ এ আবেদনটি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে দাখিল করা হয়।  


আদেশের সময় ট্রাইব্যুনাল সাকাকে ১০ জন আইনজীবীর নাম দেওয়ার কথা বলেন।  

এর আগে তার বিরুদ্ধে গত ১৪ নভেম্বর রাষ্ট্রপক্ষের দাখিল করা ফরমাল চার্জ শুনানির জন্য গ্রহণ করে বিচারপতি নিজামুল হক নাসিমের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল এ সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

ট্রাইব্যুনাল গত ৪ অক্টোবর এক আদেশে ১৪ নভেম্বর সাকা চৌধুরীর বিরুদ্ধে ফরমাল চার্জ দাখিলের নির্দেশ দেওয়ায় নির্ধারিত দিনেই ফরমাল চার্জ দাখিল করে রাষ্ট্রপক্ষ।

৫৫ পৃষ্ঠার ফরমাল চার্জের সঙ্গে এক হাজার ২৭৫ পৃষ্ঠার আনুষঙ্গিক নথিপত্র এবং ১৮টি সিডি জমা দেওয়া হয়।

গত ৪ অক্টোবর তদন্ত সংস্থা সাকা চৌধুরীর বিরুদ্ধে ১১৯ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন চিফ প্রসিকিউটরের কাছে জমা দেয়। এ প্রতিবেদন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ফরমাল চার্জ দাখিল করা হয়।

ওই অভিযোগ পত্রে তার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট ২৫টি অভিযোগ আনা হয়েছে।

সাকা চৌধুরী আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল অ্যাক্ট-১৯৭৩ এর ৩(২) ধারার (এ, সি ও জি) উপধারার অপরাধ করেছেন বলে তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

সাকা চৌধুরীর বিরুদ্ধে এ মামলায় ১৪৬ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে।

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে সাকা চৌধুরীকে গ্রেপ্তারের জন্য ১৫ ডিসেম্বর ট্রাইব্যুনালে আবেদন করে তদন্ত সংস্থা। এর কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানেই ১৬ ডিসেম্বর ভোর রাতে বনানীর একটি বাসা থেকে গাড়িতে অগ্নিসংযোগের অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পরে তাকে একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর আদালতের নির্দেশে প্রথমবারের মতো তাকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়। তাকে ধানমণ্ডির সেফহোমে জিজ্ঞাসাবাদ করে তদন্ত সংস্থা।

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০১১

Nagad
করোনা: ঢাকাসহ চার জেলায় পশুর হাট না বসানোর প্রস্তাব
নোবেলজয়ী কবি পাবলো নেরুদার জন্ম
ঢাকার পথে সাহারা খাতুনের মরদেহ
ভিয়েতনামে মানবপাচারের ঘটনায় আটক তিনজন রিমান্ডে
পল্লবীতে ভুয়া চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানে অভিযান, আটক ৩


রাজশাহীতে বাসচাপায় অটোরিকশার চালকসহ নিহত ২
‘আদিম’ মুক্তির আগেই নির্মিত হচ্ছে সিক্যুয়েল
লকডাউনে ভিডিওচিত্র বানিয়ে খুদে শিক্ষার্থী প্রিয়তির রোবট জয়
সিলেটে করোনার নমুনা জট নেই
খুলনার সাবেক এমপি নুরুল হকের অবস্থা সংকটাপন্ন