নারী নির্যাতনকারীর জায়গা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নয়: নাহিদ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, শিক্ষক নামধারী কোনও নারী নির্যাতকের জায়গা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হবে না। এক্ষেত্রে মন্ত্রণালয় কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

সংসদ ভবন থেকে: শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, শিক্ষক নামধারী কোনও নারী নির্যাতকের জায়গা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হবে না। এক্ষেত্রে মন্ত্রণালয় কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

সোমবার জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এ কথা বলেন।
 
বেগম ফরিদুন্নাহার লাইলীর এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী আরও বলেন, ‘ইভটিজিংয়ের বিরুদ্ধে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অবস্থান হচ্ছে জিরো-টলারেন্স।’

মো. শাহরিয়ার আলমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, সারাদেশের আট হাজার ৭৪৯টি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মান্থলি পেমেন্ট অর্ডারের (এমপিও) আওতাভুক্ত হয়নি।

এর মধ্যে স্কুলের সংখ্যা তিন হাজার ৮৫৭টি, মাদ্রাসা এক হাজার ৯২৩টি, কলেজ ৯৫৩টি এবং কারিগরি প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা দুই হাজার ১৬টি।

এগুলোর মধ্যে কোনও স্তরেই এমপিওভুক্ত নয় পাঁচ হাজার ৪৮৮টি এবং নিম্নস্তরে এমপিওভুক্ত রয়েছে তিন হাজার ২৬১টি।

একই প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯-১০ অর্থ-বছরে এক হাজার ৬২৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়েছে। সরকারের আর্থিক সামর্থ্য তথা বাজেট বরাদ্দ সাপেক্ষে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাকি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোও পর্যায়ক্রমে এমপিওভুক্ত করা হবে।’

নাছিমুল আলম চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, দেশের  বর্তমানে পাবলিক ৩৪টি ও বেসরকারি ৫২টি (২টি মাননীয় হাইকোটের স্টে অর্ডার নিয়ে কার্যক্রম চালাচ্ছে) বিশ্ববিদ্যালয়সহ মোট বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ৮৬টি।

তিনি আরও জানান, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৮ লাখ ৬৫৯ জন (জাতীয় ও উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়সহ) এবং জাতীয় ও উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ব্যতীত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১ লাখ ৫৯ হাজার ৩৭৯ জন। এর মধ্যে ছাত্র ১ লাখ ৯ হাজার ৬৯ জন  ও ছাত্রীর সংখ্যা ৫০ হাজার ৩১০জন।

তিনি জানান, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২ লাখ ২০ হাজার ২৫৮ জন। এর মধ্যে ছাত্র ১ লাখ ৬৫ হাজার ৫১৮ জন ও ছাত্রীর সংখ্যা ৫৪ হাজার ৭৪০জন। শতকরা হারে ৭৫ দশমিক ১৫ জন ছাত্র  এবং ২৪ দশমিক ২৫ জন ছাত্রী।


তিনি বলেন, ‘একথা সত্য যে ভর্তিচ্ছু ছাত্র-ছাত্রীর তুলনায় বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে আসন সংখ্যা এখনও অপ্রতুল। ২০১১ সালে সরকারি বিশ্ববিদ্যালগুলোতে প্রথম বর্ষে ভর্তির জন্য আসন সংখ্যা বৃদ্ধির উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তবে ভর্তি প্রক্রিয়া চলমান, তাই এ মুহূর্তে প্রকৃত আসন সংখ্যা বৃদ্ধি কতটুকু হবে তা সঠিকভাবে বলা সম্ভব নয়। ধারণা করা হচ্ছে, তা আনুমানিক ৫ ভাগ হবে।’
 
একই প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চ শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর বেশ কিছু নতুন বিশ্ববিদ্যলয় স্থাপন করেছে। এগুলো হলো-ঢাকা ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস, রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়।

তিনি জানান, এছাড়াও রাঙ্গামাটিতে বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মজিববুর রহমান বিশ্ববিদ্যায়, গাজীপুর ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয় এবং একটি রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যায় স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

মোস্তাক আমেদ রুহীর এক প্রশ্নে জবাবে মন্ত্রী বলেন, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মহিলা কোটায় শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে মহানগর ও জেলা সদর পৌরসভায় ৪০ শতাংশ এবং অন্যান্য এলাকায় ২০ শতাংশ মহিলা প্রার্থী নিয়োগের বিধানের  বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

তবে এ বিষয়ে অপ্রতুলতার কারণে গণিত, ইংরাজি, শরীরচর্চা, আরবি, কোরআন ও হাদিস বিষয়ে শিক্ষক নিয়োগের বাধ্যবাধকতা আগামী ডিসেম্বর পযর্ন্ত শিথিল করা হয়েছে।

বেগম আশরাফুন নেছা মোশারফের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘গ্রাম ও শহরাঞ্চলে শিক্ষা ব্যবস্থায় বৈষম্য রয়েছে। এ বৈষম্য কিন্তু একদিনে সৃষ্টি হয়নি। এটা দীর্ঘ দিনের ফসল। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য যে, ভালো শিক্ষক গ্রামাঞ্চলে থাকতে চায় না। তারা সকলেই শহরে থাকতে চান। কারণ কোচিং করে সেখানে অনেক টাকা কামানো যায়। তারপরও বর্তমান সরকার ক্ষামতায় আসার পর যে সকল শিক্ষক দীর্ঘদিন ঢাকা শহর বা বিভাগীয় শহরে চাকরি করছেন তাদেরকে ঢাকা ও বিভাগীয় শহরের বাইরে বদলি করা হয়েছে।’

তিনি জানান, নতুন অবকাঠামো নির্মাণ, অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য সরকার ইতোমধ্যে বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে তিন হাজার স্কুল ও এক হাজার মাদ্রাসার একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। এসব ভবন নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ  হলে গ্রাম ও শহরাঞ্চলের শিক্ষা বৈষম্য দূর হবে।

সাধন চন্দ্র মজুমদারের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১ হাজার ৩৭৭ জনকে নিয়োগ প্রদানপূর্বক পদায়ন করা হবে। মুক্তিযোদ্ধা কোটার আরও ৫৬০ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগ পূর্বক পদায়ন করা হবে।

তিনি বলেন, এছাড়াও ২৮তম ও ২৯তম বিসিএস’র মাধ্যমে প্রায় সহস্রাধিক শিক্ষককে বিভিন্ন সরকারি কলেজে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। ৩০তম বিসিএস’র মাধ্যমে পিএসসি কর্তৃক সুপারিশকৃত শিক্ষকদের নিয়োগের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২২ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০১১

Nagad
বনানী কবরস্থানে সাহারা খাতুনের দ্বিতীয় জানাজা
বান্দরবানের রাজগুরু বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ আর নেই
রাজধানীর পথে-ঘাটে ভেজাল সুরক্ষা পণ্যের কারবার
বনানী কবরস্থানে সাহারা খাতুনের মরদেহ
নীলফামারীতে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ৩৫ সেন্টিমিটার উপরে


ছোটপর্দায় আজকের খেলা
করোনা সম্পর্কিত নতুন রোগ বাংলাদেশেও
বরিশাল বিভাগে করোনা শনাক্ত ৩৯৪৪ জনের, মৃত্যু ৮২
শিরোপার সুবাস পাচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদ
করোনায় বগুড়া পল্লী উন্নয়ন একাডেমির মহাপরিচালকের মৃত্যু