অভিযোগ দিতে গিয়ে অবরুদ্ধ ডাকসু ভিপি

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরকে অবরুদ্ধ করে রাখেন এসএম হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা

walton

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম হলে এক শিক্ষার্থীকে হামলার ঘটনায় অভিযোগ দিতে গিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হাতে দুই ঘণ্টা অবরুদ্ধ ছিলেন ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর।

মঙ্গলবার (০২ এপ্রিল) বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে হল প্রাধ্যক্ষের কাছে অভিযোগ দিতে গেলে ছাত্রলীগ কর্মীরা তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

সোমবার দিবাগত রাতে উর্দু বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র ফরিদ হাসানকে মারধর করে রক্তাক্ত করার অভিযোগ ওঠে হল শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ফরিদ ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত হল সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র থেকে জিএস প্রার্থী হয়েছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে বিকেলে ক্যাম্পাসে ডাকসু ভিপি নুর, স্বতন্ত্র জোটের ভিপি প্রার্থী অরণি সেমন্তি খান, ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আকতার হোসেনসহ বিভিন্ন প্যানেলের প্রার্থীদের নেতৃত্বে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল করেন। 

মিছিল শেষে প্রক্টর কার্যালয়ে অভিযোগ দেওয়ার পর তারা এসএম হল অভিমুখে রওয়ানা দেন। হলের অভ্যন্তরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আগে থেকেই অবস্থান নেন। ভিপি নুরসহ সবাই পৌঁছালে স্লোগান দিয়ে তাদের উপর ডিম নিক্ষেপ করেন ছাত্রলীগ কর্মীরা। পরে নুরকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়।

সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মাহবুবুল আলম জোয়ার্দার এসে ছাত্রলীগ কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন। সাতটার দিকে হল কার্যালয় ত্যাগ করার সময় নুরের উপর ফের ডিম নিক্ষেপ করা হয়।

এদিকে সাড়ে সাতটার দিকে এ ঘটনার বিচার দাবি করে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়েছেন বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪২ ঘণ্টা, এপ্রিল ০২, ২০১৯
এসকেবি/এমজেএফ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ডাকসু
কুমিল্লা লকডাউন
খাগড়াছড়িতে শতাধিক শ্রমিককে আটক করে হোম কোয়ারেন্টিনে
করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান আমতলী আ’লীগ সভাপতি
ভবিষ্যতের আগুয়েরো হবে মার্তিনেস: ক্রেসপো 
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটিও ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত


স্পেনে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৭ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন ৬০৫ মৃত্যু
‘কখনো ভাবিনি এভাবে মসজিদে জুমা হবে না’
খেলা নেই, কলকাতার বেটিংচক্র ইস্যু লকডাউন
করোনা আক্রান্ত আরও এক সাংবাদিক
তাড়াশে মৃত পোশাক শ্রমিক করোনা আক্রান্ত ছিলেন না