php glass

এনআইডি লাগছে ‘পদ্মা’ আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিটে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

টেনের টিকিট কাটছেন যাত্রীরা। ছবি: বাংলানিউজ

walton

রাজশাহী: রাজশাহী-ঢাকা রুটে চলাচলকারী আন্তঃনগর ট্রেন ‘পদ্মা’ এক্সপ্রেস টেনের টিকিট কাটার জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বাধ্যতামূলক করেছে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। আর ১৮ বছরের নিচের যাত্রীদের জন্য জন্মনিবন্ধন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। 

সোমবার (১১ মার্চ) সকাল থেকে পদ্মার টিকিট কাটতে নতুন এ নিয়ম কার্যকর করা হয়েছে। তবে পর্যায়ক্রমে অন্যান্য আন্তঃনগর ট্রেনও এর আওতায় আসছে বলে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে সূত্রে জানানো হয়েছে।

এক্ষেত্রে বাংলাদেশ রেলওয়ের ওয়েবসাইট, ই-টিকিটিং ওয়েবসাইট, রেলওয়ে মোবাইল অ্যাপস ও রেলওয়ে স্টেশন কাউন্টারে এনআইডি/জন্মনিবন্ধনসহ নাম রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।

নতুন নিয়ম অনুযায়ী একটি জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে চারটি টিকিট কেনা যাবে। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিও ব্যবহার করা যাবে। ট্রেনে যাতায়তকারী সাধারণ যাত্রীদের জন্য এমন একটি বিজ্ঞপ্তি এরইমধ্যে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে টানিয়ে দেওয়া হয়েছে। 

এছাড়া রেলওয়েরে এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আগামী ২০ মার্চ (অগ্রিম ১১ মার্চ) থেকে রাজশাহী-ঢাকা রুটের আন্তঃনগর ট্রেন পদ্মা এক্সপ্রেসসহ (৭৫৯/৭৬০), সুবর্ণ এক্সপ্রেস (৭০১/৭০২), মহানগর প্রভাতী/গোধূলি (৭০৩/৭০৪), পারাবত (৭০৯/৭১০), তূর্ণা (৭৪১/৭৪২), দ্রুতযান (৭৫৭/৭৫৮), চিত্রা (৭৬৩/৭৬৪) টিকিটের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র লাগবে। এখন থেকে টিকিট কাটতে হলে দিতে হবে নাম, মোবাইল নম্বর ও জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মসনদ নম্বর। 

ই-টিকিটের ক্ষেত্রে নিজস্ব আইডি থেকে সংগৃহীত টিকিটের প্রিন্ট কপি ও ফটো আইডি প্রদর্শন করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। অপরের আইডি থেকে কেনা টিকিটের ক্ষেত্রে ট্রেন ছাড়ার আগে অবশ্যই স্টেশন থেকে মূল টিকিট সংগ্রহ করতে হবে। কোনো অবস্থাতেই মোবাইল ফোনের এসএমএস দেখিয়ে ট্রেনে ভ্রমণ করা যাবে না। যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই তাদের আনতে হবে জন্মসনদ। 

তাই আজ থেকে সংশ্লিষ্ট সবাইকে ট্রেনের টিকিট কেনার সময় জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি/মূলকপি/জন্মসনদ সঙ্গে নিয়ে আসার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে ওই বিজ্ঞপ্তিতে।  

এদিকে, কোনো প্রচার-প্রচারণা ছাড়াই আজ থেকে এমন নিয়ম চালু ও বিজ্ঞপ্তি জারি করায় রাজশাহীতে বিড়ম্বনায় পড়েছেন রেলওয়ে যাত্রীরা। দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

একটি জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে কতোবার টিকিট নেওয়া যাবে, স্ট্যান্ডিং টিকিটের কী হবে এমন সব প্রশ্নের উদ্রেক হয়েছে যাত্রীদের মনে। তবে টিকিট নিয়ে অরাজকতা ও কালোবাজারি ঠেকাতে রেলওয়ের এমন উদ্যোগ আবার অনেক যাত্রীই স্বাগত জানিয়েছেন। যেকোনো কিছুই শুরুর দিকে কোনো না কোনো সমস্যা হয়। কিন্তু ধীরে ধীরে আবার তার সমাধানও আসার কথা বলছেন তারা।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের সুপারিনটেনডেন্ট আমজাদ হোসেন বলেন, বর্তমানে কেবলমাত্র আন্তঃনগর ট্রেন পদ্মার টিকিটের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মসনদ লাগবে। তবে ধীরে ধীরে সব আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট একই নিয়মে বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এটি পরীক্ষামূলক হলেও দ্রুত সময়ের মধ্যে বিভিন্ন সমস্যা কাটিয়ে সবগুলো আন্তঃনগরের একই নিয়ম চালু করা হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৮ ঘণ্টা, মার্চ ১১, ২০১৯
এসএস/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: রাজশাহী ট্রেন সার্ভিস
জরুরি অবতরণকালে আছড়ে পড়লো প্লেন, ২ ক্রু নিহত
‘দুদকে দুর্নীতিবাজ ক্যান্সার থাকলে ছেঁটে ফেলুন’
কবি অভীক ওসমানের জন্মদিন কাল
পার্কিংয়ের স্থানে দোকান, গাড়ি থাকে রাস্তায়
সাহস থাকলে আন্দোলন করে খালেদাকে মুক্ত করুক


প্রধানমন্ত্রী চীন যাচ্ছেন সোমবার
‘স্থানীয় সরকার ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে হবে’
শুক্রবার শুরু ৩ দিনব্যাপী জাতীয় বীজমেলা
‘আপত্তিকর ভাষায়’ চিঠি, দুদক গেটে সাংবাদিকদের মানববন্ধন
পরিকল্পনামন্ত্রীর বেয়াইয়ের ইন্তেকাল