ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৪ আগস্ট ২০২০, ১৩ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

গোবর ফেলতে নিষেধ করায় কলেজছাত্রীকে পিটুনি

উপজেলা করসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০১-০৬ ১০:১২:২৯ পিএম
গোবর ফেলতে নিষেধ করায় কলেজছাত্রীকে পিটুনি

ঈশ্বরদী, পাবনা: গোবর ফেলতে নিষেধ করায় ঈশ্বরদীতে মুক্তা খাতুন নামে এক কলেজছাত্রীকে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে।

শনিবার (০৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় শহরের পূর্ব নূরমহল্লা বস্তিপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রোববার (০৬ জানুয়ারি) ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক ও ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহা উদ্দিন ফারুকী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক বাংলানিউজকে বলেন, মুক্তা খাতুনের প্রতিবেশি এনামুল হক দীর্ঘদিন ধরে গরু পালন করেন। মুক্তাদের ঘরের পাশ দিয়ে নালা কেটে গরুর গোবর ফেলেন। এতে দুর্গন্ধে আশপাশে বসবাস করা কষ্টকর হয়ে পড়েছে। নালাটি বন্ধ করার জন্য বলা হলে এনামুল হকের ছেলে আশিক হোসেন (২৭) ক্ষিপ্ত হয়ে মুক্তাকে পিটিয়ে আহত করে বুকের ওপর ইট চাপা দিয়ে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।  

ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাক্তার শফিকুল ইসলাম শামীম বাংলানিউজকে বলেন, আহত মুক্তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখম হয়েছে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী বাংলানিউজকে বলেন, আশিককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৬, ২০১৮
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa