খুলনা শিল্পকলার নির্মাণাধীন ভবন পরিদর্শনে মেয়র

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

শিল্পকলা একাডেমি কমপ্লেক্সের নির্মাণাধীন ভবন পরিদর্শন করেছেন নব-নির্বাচিত মেয়র

walton

খুলনা: খুলনা জেলার শিল্পকলা একাডেমি কমপ্লেক্সের নির্মাণাধীন ভবন পরিদর্শন করেছেন নব-নির্বাচিত মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।

php glass

শনিবার (১৪ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ভবন নির্মাণে দুর্নীতি ও নিম্নমানের কাজের অভিযোগে মেয়র নিজে এ পরিদর্শনে আসেন।

এর আগে গত ২৭ জুন ‘শিল্পকলা একাডেমি কমপ্লেক্স নির্মাণে নিম্নমানের ইট!’ ও ৩ জুলাই – ‘নির্মাণকাজ শেষের আগেই ছাদ চুঁইয়ে পড়ছে পানি’ শিরোনামে বাংলানিউজে দুই পর্বের সংবাদ প্রচারিত হয়। সংবাদের পর বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্থানীয় সাংস্কৃতিক কর্মীরা।

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) দুপুরে জেলা শিল্পকলার নির্মাণাধীন ভবনের সামনে মানববন্ধন করেন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা।

পরিদর্শনকালে শিল্পকলার ভবনের কাজের অনিয়মের অভিযোগের সত্যতা পান মেয়র। শিল্পকলা একাডেমির যে ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে তাতে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ঠিকাদার ও সংশ্লিষ্টদের সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ দেন তিনি।

খালেক বলেন, কাজ যতটুকু যা হয়েছে তা তো হয়েছে। বাকি কাজ যাতে সঠিকভাবে হয় সেজন্য আমি মাঝে মধ্যে নিজে এসে তদারকি করবো।

পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও সংগীত শিল্পী কামরুল ইসলাম বাবলু, প্রবীণ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মোখলেছুর রহমান বাবলু, আব্বাস উদ্দিন একাডেমির সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক বাচ্চু, নগর নাট্যদলের আহ্বায়ক চৌধুরী মিনহাজুল জামান সজল, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নিয়ামুল হোসেন কচি প্রমুখ।

উল্লেখ্য, মহানগরীর শেরে বাংলা রোডের পুরাতন নার্সিং ইনস্টিটিউটের জায়গায় শিল্পকলা একাডেমির আধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন কমপ্লেক্স তৈরির পরিকল্পনা নেয় সরকার। এর আগে ২০১১ সালের ৫ মার্চ খুলনার খালিশপুরের প্রভাতী স্কুল মাঠের জনসভায় অন্যান্য উন্নয়ন প্রকল্পের সঙ্গে খুলনায় শিল্পকলা একাডেমি নির্মাণ করার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

তার আগে দীর্ঘদিন ধরে খুলনার সংস্কৃতিকর্মী ও সাংবাদিকরা আন্দোলন করেন খুলনায় শিল্পকলা একাডেমি ভবন নির্মাণের জন্য। অবশেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনাবাসীর সেই আশাপূরণ করেন। গণপূর্ত অধিদপ্তরের কাছ থেকে বিসিটিএই ইলোরা জেভি, বেনেজীর কনস্ট্রাকশন ও আজাদ কনস্ট্রাকশন যৌথভাবে নির্মাণ কাজ করছে।

২০১৬ সালের ১০ জুন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বিসিটিএই ইলোরা জেভি, বেনেজীর কনস্ট্রাকশন ও আজাদ কনস্ট্রাকশন যৌথভাবে খুলনার শিল্পকলা একাডেমির নির্মাণ কাজ পায়। শেরে বাংলা রোডে ৮১ শতক জমির ওপর দৃষ্টিনন্দন আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন শিল্পকলা একাডেমি নির্মাণ কাজে ব্যয় ধরা হয় ১২ কোটি ৭ লাখ ৪০ হাজার ২১৯ টাকা। চারতলা কমপ্লেক্স নির্মাণে মোট লাগবে ৩০ কোটি টাকা। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী ১৮ মাস সময়ে অর্থাৎ ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে শিল্পকলা একাডেমির কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিলো। নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করতে না পারায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বিসিটিএই ইলোরা জেভি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে সময় বৃদ্ধির আবেদন জানায়।
 
বাংলাদেশ সময়:  ১১০৩ ঘণ্টা,  জুলাই ১৪ , ২০১৮
এমআরএম/জেডএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: মেয়র
গবেষণায় বরাদ্দ কম থাকায় উচ্চশিক্ষার উন্নয়ন ব্যাহত
সরকার গায়ের জোরে ক্ষমতা দখল করে আছে: ফখরুল
ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলবে শ্রীলঙ্কা
ছাত্রলীগের বাধায় ভিপি নুরের ইফতার পণ্ড
বায়েজিদে পানিবন্দি শতাধিক পরিবার


অসুস্থ ছাত্রলীগ নেতাকে দেখতে গেলেন নওফেল
বান্দরবানে আ’লীগ নেতা হত্যার প্রতিবাদে অর্ধদিবস হরতাল
কল্যাণকামী-বৈষম্যহীন সমাজ চেয়েছিলেন মোজাফফর আহমদ
ভিড় বাড়ছে হকার্স মার্কেটে
গাজীপুরে বসুন্ধরা সিমেন্টের ইফতার মাহফিল