শিমুলিয়ায় ফেরি চলাচল বিঘ্নিত, পারের অপেক্ষায় ৪০০ গাড়ি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

শিমুলিয়া ঘাটে নদী পারের অপেক্ষায় থাকা যানবাহনের সংখ্যা চারশ' ছাড়িয়েছে। ছবি বাংলানিউজ

মুন্সিগঞ্জ: শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হওয়ায় চার শতাধিক গাড়ি মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটে নদী পারের অপেক্ষায় রয়েছে। 

php glass

দু’দিন ধরে পদ্মার তীব্র স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হওয়ায় যানবাহনের এ দীর্ঘ সারি সৃষ্টি হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) ভোর থেকেই যানবাহনের সারি ঘাটের শিমুলিয়া মোড় থেকে মাওয়া চৌরাস্তা পর্যন্ত দুই কিলোমিটার ছাড়িয়েছে। 

বিআইডব্লিউটিসি’র শিমুলিয়া ঘাট উপ-মহাব্যবস্থাপক শাহ মো. খালেদ নেওয়াজ জানান, বুধবার লৌহজং টার্নিং পয়েন্টে তিন কিলোমিটার ডাউনে চ্যানেল খোলা হয়েছে। নতুন চ্যানেলটি দিয়ে ফেরি যেতে আধা ঘণ্টা বাড়তি সময় লাগছে। তবে আসার সময় পূর্বের চ্যানেল দিয়ে নির্ধারিত সময়েই ঘাটে আসছে ফেরি। কিন্তু দু’দিন ধরে তীব্র খরস্রোত দেখা দেওয়ায় ফেরিগুলো স্বাভাবিক গতিতে চলতে পারছে না। ফলে ঘাটে পারের অপেক্ষায় থাকা যানবাহনের সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। 

তিনি আরোও জানান, নৌরুটে পাঁচটি ডাম্প ফেরি, দু’টি রো রো ফেরি, পাঁচটি কে-টাইপ ফেরি এবং দু’টি মিডিয়াম ফেরি চলাচল করছে। বর্তমানে চার শতাধিক গাড়ি পারের অপেক্ষায় রয়েছে। এর মধ্যে পণ্যবাহী ট্রাকের সংখ্যাই বেশি। 

দূরপাল্লার যাত্রীবাহী গাড়িগুলো বিকেলের মধ্যে পার হয়ে গেলে চাপ কমবে বলে তিনি আশাবাদী।
 
মাওয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইন্সপেক্টর মো. আরমান জানান, প্রচণ্ড স্রোতের কারণে ফেরি চলাচলে বেশি সময় লাগছে বলে শিমুলিয়া মোড় থেকে মাওয়া চৌরাস্তা পর্যন্ত ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানের দীর্ঘ লাইন সৃষ্টি হয়েছে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৩১৬ ঘণ্টা, জুলাই ১২, ২০১৮
এসআই 

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ফেরি পারাপার
বরিশাল নগরে যাত্রী ওঠা-নামার জন্য স্ট্যান্ড হবে 
জাতির বীরসন্তানদের রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
এক সন্তান প্রসবের ২৬ দিন পর ফের জমজ জন্মদান
কলকাতায় বাংলাদেশ উপ-দূতাবাসে গণহত্যা দিবস পালিত
জাতীয় গণহত্যা দিবস পালিত হলো পাকিস্তানে


‘পাকিস্তানিরা বাঙালিদের কুকুর-বিড়াল মনে করতো’
বিধি লঙ্ঘনে এমপি খোকাকে সোনারগাঁও ছাড়ার নির্দেশ ইসির
কালরাত্রি স্মরণে ‘ব্ল্যাক আউট’ সিলেটেও
গণহত্যা দিবসের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দাবিতে রাজশাহীতে
শহীদেরা অন্ধকারকে জয় করে আমাদের জীবনে আলো জ্বেলে গেছেন