ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস মঙ্গলবার

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস

ঢাকা: ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে অনন্য এক দিন। ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে তৎকালীন কুষ্টিয়া জেলার মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলার আম্রকাননে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী সরকারের রাষ্ট্রপতি ও মন্ত্রিসভার সদস্যরা আনুষ্ঠানিকভাবে শপথ নেন।

বাঙালির ওপর চেপে বসা পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পথ অতিক্রম করে ১৯৭১ সালে এই দিনে উপনীত হয় জাতি। এর আগে ২৫ মার্চ কাল রাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী নিরস্ত্র বাঙালির ওপর বর্বরোচিত হামলা চালানোর পর ২৬ মার্চেই বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। স্বাধীনতার ঘোষণার পরই বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। এর পর ১০ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে সার্বভৌম গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠা ঘোষণা করা হয়।

১৭ এপ্রিল গঠিত এই অস্থায়ী সরকারের রাষ্ট্রপতি করা হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। উপ-রাষ্ট্রপতি করা সৈয়দ নজরুল ইসলালামকে। বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে অস্থায়ী সরকারের প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন সৈয়দ নজরুল ইসলাম। মুজিবনগর সরকারের ঘোষণাপত্রে সংবিধান প্রণীত না হওয়া পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতি ও সৈয়দ নজরুল ইসলামকে প্রজাতন্ত্রের উপ-রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করা হয়।

মুজিবনগর সরকারের প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব পান তাজউদ্দিন আহমেদ। এছাড়া খন্দকার মোশতাক আহমেদ পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ক্যাপ্টেন মুহাম্মদ মনসুর আলী অর্থমন্ত্রী এবং এ এইচ এম কামারুজ্জামান স্বরাষ্ট্র, ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রী নিযুক্ত হন। এই সরকারের উপদেষ্টা হন মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী, কমরেড মণি সিংহ, অধ্যাপক মোজাফ্ফর আহমদ। এছাড়া জেনারেল আতাউল গনি ওসমানী অস্থায়ী সরকারের মুক্তিবাহিনীর প্রধান কমান্ডার এবং মেজর জেনারেল আবদুর রব চিফ অব স্টাফ নিযুক্ত হন।

১৭ এপ্রিল মুজিবনগরে আনুষ্ঠানিকভাবে শপথগ্রহণের মাধ্যমে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার প্রতিষ্ঠা লাভ করে।

বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে তার নির্দেশিত পথ অনুযায়ী এই মুজিবনগর সরকার সফলভাবে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা করে। দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধ চলতে থাকে। মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ ও ২ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জিত। বাংলাদেশ দখলদার মুক্ত হয় এবং বিশ্বের বুকে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের আত্মপ্রকাশ ঘটে।  

বাংলাদেশ সময়: ০০২৬ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৭, ২০১৮ 
এসকে/এমজেএফ

‘জাতীয় ঐক্য বাঙালি জাতিসত্তার বিরুদ্ধে অশনি সংকেত’
‘সিনহার দুর্নীতির মামলা বা দুদককে তদন্ত করতে বলিনি’
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বজ্রপাতে নিহত ২
বরিশালে ৬শ’ মণ্ডপে চলছে দুর্গাপূজার আয়োজন
শাহজাদ ঝড়ে ভারতকে ২৫৩ রানের টার্গেট আফগানদের
সিআইইউতে বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের সেমিনার 
৪ হাজার অটোরিকশা রেজিস্ট্রেশনের অনুমতি চান নাছির
সব দল নির্বাচনে আসবে, প্রত্যাশা রাষ্ট্রপতির
সাউদার্নে ওয়ার্ল্ড ফার্মাসিস্ট দিবস উদযাপন
চবিতে বিভিন্ন মেয়াদে ১১ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার