নিখোঁজ নাসিরের সর্বশেষ অবস্থান ছিলো বনানী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মো. নাসির উদ্দিন

ঢাকা: খিলক্ষেতের বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজের তিন দিনেও সন্ধান মেলেনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মচারী নাসির উদ্দিনের। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় তার অবস্থান সনাক্তের চেষ্টার পাশাপাশি নিখোঁজ হওয়ার সম্ভাব্য কারণগুলো যাচাই-বাছাই করছে পুলিশ।

পরিবারের ধারণা, সম্প্রতি অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে চালু করা সুপার সপের দ্বন্দ্বের জেরে নাসির নিখোঁজ হতে পারেন। এদিকে নাসিরের ব্যবহৃত ফোন নম্বর ট্র্যাক করার তথ্য অনুযায়ী পুলিশ জানায়, নিখোঁজ হওয়ার আগে তার সর্বশেষ অবস্থান ছিলো বনানীর ‘বি’ ব্লক এলাকায়। তবে নিখোঁজের কারণ সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

নাসির শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের গ্রহণ ও বিতরণ শাখার উচ্চমান সহকারী। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী কল্যাণ পরিষদের মহাসচিব এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্মকর্তা-কর্মচারী সমবায় সমিতির যুগ্ম সম্পাদক। রাজধানীর খিলক্ষেত এলাকার লেকসিটি কনকর্ড টাওয়ারে সপরিবারে বসবাস করতেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে বাসা থেকে বের হয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক বনভোজনের কাজে বনানীর ‘আর এম’ গ্রুপে যান নাসির। সেখান থেকে বের হয়ে দুপুর তিনটার দিকে স্ত্রীর সঙ্গে মোবাইলে কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রণালয়ের সহকর্মীদের সঙ্গেও তার কথা হয়। তারপর থেকেই তার ব্যবহৃত দু’টি মোবাইল ফোনই বন্ধ পাওয়া যায়।

পরিচিতদের মধ্যে খোঁজ নিয়ে নাসিরের কোনো সন্ধান না পাওয়ায় রাত ১১টার দিকে তার শ্বশুর আব্দুল মান্নান বনানী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি নম্বর-১২১৮) করেন।

নাসিরের ভায়রা নাইম আহমেদ জুলহাস বাংলানিউজকে বলেন, নাসির খিলক্ষেতের কনকর্ড লেকসিটি টাওয়ারে সপরিবারে বসবাস করেন। ওই বিল্ডিংয়ের প্রতিবেশী ও কাছের মানুষদের নিয়ে তিনি এফএনএফ (ফেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলি) ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি এ ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট। সম্প্রতি সবার অংশীদারিত্বে ওই ভবনেরই গ্রাউন্ড ফ্লোরে একটি সুপার শপ খোলা হয়। সুপার শপের কারণে স্থানীয় কামরুজ্জামান মাহবুব নামে একজনের সঙ্গে নাসিরের বিরোধ দেখা দেয়। কিছুদিন আগেও ওই সুপার শপ বন্ধে হুমকি দিয়েছিলেন তিনি। নিখোঁজ হওয়ার পেছনে তার হাত থাকতে পারে।

এ বিষয়ে বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বোরহান উদ্দিন বলেন, এখন পর্যন্ত নাসিরের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তাকে খুঁজে পেতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালানো হচ্ছে। নিখোঁজের বিষয়ে এখনো স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যায়নি। তবে সার্বিক বিষয়গুলো মাথায় রেখেই তদন্ত চলছে।

তিনি বলেন, তার ব্যবহৃত ফোন নম্বর ট্র্যাক করে জানা গেছে বৃহস্পতিবার দুপুরে নিখোঁজ হওয়ার আগ পর্যন্ত নাসির বনানীর ‘বি’ ব্লক এলাকাতেই ছিলেন। সে সময় ওই এলাকায় দায়িত্বরত দুটি টহল টিমকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। আমরা ওই এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহসহ সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করছি।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২০, ২০১৮
পিএম/ওএইচ/

** এবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মচারী ‘নিখোঁজ’

জোট-শরিকদের ৬০-৬৫টি আসন দিচ্ছে আ’লীগ
নির্বাচন হলেও পহেলা জানুয়ারি বই পাবে শিক্ষার্থীরা
গ্রেফতার-মামলার সেই তালিকা সিইসিকেও দিলো বিএনপি
কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট-এ নিয়োগ
লক্ষ্মীপুরে শীতবস্ত্র বিক্রি শুরু
মেধাতালিকায় ২৩তম আসলামকে থামিয়ে দিতে চায় ‘দারিদ্র্য’
কোনো দল কিনলো না আশরাফুলকে
হাসপাতালে খালেদার চিকিৎসা নিয়ে রিটের আদেশ সোমবার
অর্থ মন্ত্রণালয়ে নিয়োগ
পবিত্র ওমরাহ্‌ পালনে গেছেন তামিম