ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৪ আগস্ট ২০২০, ১৩ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

‘ক্রেতারা যে দাম বলছে তাতে একদম পোষায় না’

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৮-২৯ ০৭:০৫:৪৭ পিএম
‘ক্রেতারা যে দাম বলছে তাতে একদম পোষায় না’ ৩০০ ফিটের গরুর হাট-ছবি-শাকিল আহমেদ

ঢাকা: ‘যে দাম বলছেন ক্রেতারা তাতে একদম পোষায় না। উল্টো মন খারাপ হয়। মন চাই গরু নিয়ে বাড়ি ফিরে যাই’। বসুন্ধরা পূর্বাচলের গেট সংলগ্ন ৩০০ ফিটের গরুর হাটে হতাশকণ্ঠে কথাগুলো বলছিলেন কুষ্টিয়ার শেখপাড়ার রমিজ। গত ২৮ থেকে ৩০ আগস্ট এই দুইদিনে মাত্র একটি গরু বিক্রি করতে পেরেছেন তিনি। তবে আশা এতটুকুই যে আরও দু-একদিন পর বাড়বে ক্রেতা সমাগম। দামও পাবেন ব্যবসায়ীরা।

হাটে হাসিল আদায়ের সঙ্গে জড়িত একজন বলেন, ‘৫০ হাজারের নিচে এইবার যাদের বাজেট, তারা দড়ি পাবে। বেপারি গরুর দাম ছাড়েই না।


 
৩০০ ফিটের গরুর হাটের এক বেপারী বলেন, ‘এখানে পানির কষ্ট বেশি। ওয়াসার পানির জন্য দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়। ’ অবশ্য পরে এখানে পানির স্থায়ী ব্যবস্থা করতে দেখা গেছে।

পানির জন্য দীর্ঘ লাইন-ছবি-শাকিল আহমেদ৫ থেকে ৬টি গরুর হাট ঘুরে দেখা গেছে, গরু বেপারীরা ক্রেতার অপেক্ষায় শুয়ে আছেন রাস্তায় পাশেই। কেউ কেউ ঘুমিয়ে পড়েছেন। কেউ কার্ড খেলায় মেতেছেন।
 
৩০০ ফিটের পাশের হাটে গরু ব্যবসায়ী আজমত আলী কুষ্টিয়া থেকে গত বৃহস্পতিবার (২৪ আগস্ট) ১৯টি গরু নিয়ে এসেছেন। এর মধ্যে বিক্রি হয়েছে মাত্র একটি। তার ভাষায়, ‘বিক্রি তেমন সুবিধার না। আমি একটা দাম কচ্ছি, ক্রেতারা কোনো দাম না কইয়ে চলি যাচ্ছে’।

ব্যবসায়ীরা ঘুমিয়ে পড়েছেন-ছবি-শাকিল আহমেদ
শুক্রবার (২৫ আগস্ট) রাতে সোবহান ও ফারুক কুষ্টিয়া থেকে গরু নিয়ে এসেছেন। জানতে চাইলে বলেন, ‘গরু তো মেলা নিয়ে আসছি। কিন্তু দাম করার লোকই আসে না। বিক্রি হয়েছে মাত্র একটি। ’

তারপর ইজারাদার ও হাসিল আদায়কারীদের আশা, শেষ মুহূর্তে জমে উঠবে ৩০০ ফিটের এই গরুর হাট। বাড়বে আরও ক্রেতা-বিক্রেতার পদচারণা।

বাংলাদেশ সময়: ০১০৬, ঘণ্টা, আগস্ট ৩০, ২০১৭
এসএ/আরআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa