ঢাকা, বুধবার, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ১২ আগস্ট ২০২০, ২১ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

সিলেটে পশুবাহী গাড়ি থামাবে না পুলিশ!

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৩২ ঘণ্টা, আগস্ট ২৭, ২০১৭
সিলেটে পশুবাহী গাড়ি থামাবে না পুলিশ!

সিলেট: পবিত্র ঈদুল আজহা শনিবার। ঈদকে ঘিরে জমে উঠছে কোরবানির পশুর হাট। বিশেষ করে ঈদুল আজহায় কোরবানির পশু ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য অনেক টাকা বহন করে থাকেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। সেই  সুযোগে তৎপর হয়ে ওঠে পেশাদার ও মৌসুমী ছিনতাইকারী, অজ্ঞান পার্টির সদস্য ও জাল টাকার কারবারিরা।

ফলে ঈদুল আজহায় কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে বাড়তি চিন্তায় থাকতে হয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। চুরি-ডাকাতিসহ সমাজে নানারকম অপরাধ ঠেকানো ছাড়াও তখন বাড়তি দায়িত্ব হিসেবে সামনে চলে আসে পশুবাহী গাড়ি ছিনতাই, পশু ক্রয়-বিক্রয়ের টাকা ছিনতাই, জাল টাকার কারবারিদের প্রতিরোধ ও চামড়া পাচার রোধ।

 

প্রতিবারের মতো এবারও নিরাপত্তা ব্যবস্থা কঠোর করে নেওয়া হয়েছে। সিলেটে অনুমোদিত ৯৭টি পশুর হাটকে ঘিরে থাকছে নিরাপত্তা। এরমধ্যে জেলায় ৮৭টি ও মেট্টোপলিটন এলাকায় ১০টি অনুমোদিত পশুর হাট ছাড়াও রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় বসেছে অসংখ্য পশুর হাট।

সেসব হাটের নিরাপত্তাসহ সড়কে মহাসড়কে রয়েছে পুলিশ মোতায়েন। এছাড়াও বাড়তি আকারে পৃথক নিরাপত্তা পরিকল্পনা নিয়েছে সিলেট জেলা ও মহানগর পুলিশ। যাতে পোশাকে, সাদা পোশাকে, জেলা ও মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) এবং এপিবিএন সদস্যরা নিয়োজিত থাকবেন।

সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা ও মিডিয়া) সুজ্ঞান চাকমা বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, পশু ব্যবসায়ীরা যাতে নির্বিঘ্নে সিলেটের হাটে আসতে পারেন, এজন্য পুলিশ সদর দফতর থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সুনির্দিষ্ট কারণ ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার অনুমতি ছাড়া সিলেটের সড়কে-মহাসড়কে কোনো পশুবাহী গাড়ি আটকাতে পারবে না পুলিশ।

তবে জেলায় পাঁচস্তরের নিরাপত্তা পরিকল্পনা থাকলেও নগর পুলিশের পক্ষ থেকে পবিত্র ঈদুল আজহায় তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেবে পুলিশ। তিনস্তরের নিরাপত্তার মধ্যে পশুর হাটগুলোতে পুলিশি টহল, ব্যাংক-বিমা প্রতিষ্ঠানের সামনে পুলিশ মোতায়েন ও নগরীসহ আশপাশের এলাকায় চৌকি বসিয়ে তল্লাশি চালানো হবে।  

সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুছা বাংলানিউজকে বলেন, নির্দিষ্ট হাট ছাড়া কোথাও রাস্তার উপর হাট বসানো যাবে না। নগরীর প্রবেশদ্বারে বসানো হবে টহল টিম। জাল টাকা বের করতে প্রতিটি বাজারে দেওয়া হয়েছে টাকা শনাক্তকরণ মেশিন। সেইসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকেও বাজারগুলোতে জাল নোট শনাক্তকরণ মেশিন দেওয়া হয়েছে।  

তিনি বলেন, ব্যাংক, অর্থলগ্নি প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের বড় ধরনের আর্থিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ২৪ ঘণ্টা পুলিশের সহায়তা গ্রহণ করতে পারবেন।  

এদিকে সিলেট নগরীর নিরাপত্তায় সবার সহযোগিতা চেয়ে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছে মহানগর পুলিশ। অনুমোদিত বৈধ পশুর হাট থেকে গরু-ছাগল ক্রয় করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। হাটগুলোর হলো, নগরীর কাজিরবাজার, এয়ারপোর্ট থানাধীন লাক্কাতুরা চা বাগান মসজিদ সংলগ্ন মাঠ, দক্ষিণ সুরমা থানার লালাবাজার পশুর হাট, কামাল বাজার পশুর হাট, নাজির বাজার পশুর হাট, মোগলাবাজার থানার রেঙ্গা হাজীগঞ্জ বাজার, জালালপুর পশুর হাট, রাখালগঞ্জ বাজার পশুর হাট, শাহপরান (রহ.) থানার পীরের বাজার পশুর হাট, ৪নং খাদিমপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ মাঠ।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩০ ঘণ্টা, আগস্ট ২৭, ২০১৭
এনইউ/আইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa