ঐতিহাসিক সফরে মনমোহন ঢাকায়

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং এক গুরুত্বপূর্ণ সফরে ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন। মঙ্গলবার বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে ভারতীয় বিমানবাহিনীর একটি বিশেষ বিমানে করে তিনি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেন।

ঢাকা: ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং এক গুরুত্বপূর্ণ সফরে ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন।

মঙ্গলবার বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে ভারতীয় বিমানবাহিনীর একটি বিশেষ বিমানে করে তিনি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেন।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া মন্ত্রিপরিষদের গুরুত্বপূর্ণ অন্যান্য সদস্যরাও বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন।বিমানবন্দরে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে লালগালিচা সংবর্ধনা দেওয়ার পর ১৯ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে সালাম জানায় সশস্ত্রবাহিনীর একটি চৌকস দল।

বিমানবন্দর থেকে মনমোহন সিং জাতীয় স্মৃতিসৌধে গিয়ে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান। এরপর তিনি জাতীয় স্মৃতিসৌধ পরিদর্শক বইয়ে স্বাক্ষর করেন এবং স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে কামরাঙা গাছের চারা রোপন করেন।

সাভার থেকে হোটেল সোনারগাঁওয়ে ফেরেন তিনি।

মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক সফরসঙ্গী হিসেবে ১৩৫ জন সদস্যের নাম অন্তর্ভূক্ত রয়েছে। যদিও এ তালিকায় মনমোহনসহ নাম আছে ১৩৭ জনের। তবে মমতা না আসায় সবসহ প্রতিনিধিদলের সদস্য হচ্ছেন ১৩৬ জন। এদের মধ্যে অগ্রবর্তী দলের সদস্য হিসেবে ২১ জন নিরাপত্তারক্ষী অবশ্য আগেই ঢাকা এসেছেন।

১৯৭২ সালের মার্চে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী প্রথমবারের মতো দ্বিপক্ষীয় সফরে ঢাকা এসেছিলেন। মূলত, এরপরই মনমোহন সিং দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দ্বিপক্ষীয় এই সফরে এলেন।

অবশ্য এর মধ্যে রাজিব গান্ধী, চন্দ্র শেখর, পি ভি নরসীমা রাও, আই কে গুজরাল ও অটল বিহারি বাজপাই ঢাকা এসেছিলেন। এদের মধ্যে ১৯৯৯ সালে ঢাকা-কলকাতা বাস সার্ভিস উদ্বোধনের জন্য মাত্র দুই ঘণ্টার জন্য অবস্থান করেন অটল বিহারি বাজপাই। এছাড়া অন্যরা এসেছিলেন সার্ক সম্মেলন, বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া-পাকিস্তান বাণিজ্য সম্মেলন ও বন্যা দুর্গতদের দেখতে। 

   
ভারতের প্রধানমন্ত্রীর ঢাকায় আসার মধ্য দিয়ে পূরণ হলো গত বছরের জানুয়ারিতে দুই প্রধানমন্ত্রীর করা যৌথ ইশতেহারের আরও একটি অনুচ্ছেদ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নয়াদিল্লি সফরের সময় ঘোষিত যৌথ ইশতেহারের ৫০তম অনুচ্ছেদে স্থান পেয়েছিল বাংলাদেশের জনগণ ও সরকারের পক্ষ থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও তার স্ত্রীকে ঢাকা সফরে আসতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিমন্ত্রণের বিষয়টি। ওই নিমন্ত্রণেই আজ ঢাকায় আসছেন মনমোহন ও তার স্ত্রী গুরশরণ কাউর।
 
বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী ভারতীয় ৪ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ঢাকায় মনমোহনের সফরসঙ্গী হিসেবে আছেন। মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমা, ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার, আসামের মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ ও মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী লাল থানহাওলা। এদের মধ্যে আসামের মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য সোমবারই ঢাকা এসে পৌঁছেছেন।  

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আসার কথা থাকলেও গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় কলকাতা থেকে পাঠানো বার্তায় জানা যায় তিনি আসছেন না।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসএম কৃষ্ণা, পানিসম্পদমন্ত্রী পবনকুমার বানসাল, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব টিকেএ নায়ার, পররাষ্ট্র সচিব রঞ্জন মাথাই, গণমাধ্যমবিষয়ক উপদেষ্টা ড. হারিস খারেসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা ঢাকায় আসেন।

বাংলাদেশ-ভারতের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক বাড়াতে এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা জোরদার করতে মনমোহনের সফরকে একটি ‘মাইলফলক’ হিসেবে চিহ্নিত করা হচ্ছে।

ঘোষিত যৌথ ইশতেহারের অনেক বিষয়ই পূর্ণতা পাবে ঐতিহাসিক এ সফরে। কূটনৈতিক সূত্রগুলোও জানিয়েছে, যৌথ ইশতেহারের অনেক সিদ্ধান্তই বাস্তবায়ন হবে এ সফরে। অনেক ইসুতে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা বা সমঝোতা হওয়ারও কথা রয়েছে।  
বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মনমোহন সিংয়ের মধ্যে তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শিমুল হলে আধ ঘণ্টার একান্ত বৈঠক হবে। বিকাল ৫টা ৩৫ মিনিট থেকে ৬টা ৫৫ মিনিট পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্মেলনকক্ষ চামেলীতে চলবে দুই দেশের আনুষ্ঠানিক বৈঠক। ওই বৈঠক শেষে দুই দেশের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে এবং এরপর একটি যৌথ ইশতেহার ঘোষণা দেওয়া হবে।

মনমোহন সিংয়ের সফরসূচি:

স্মৃতিসৌধ থেকে মনমোহন সিংয়ের মোটর শোভাযাত্রা রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁয়ে পৌঁছবে বেলা ১টা ৫০ মিনিটে। তিনি সেখানেই দুপুরে খাবার খাবেন এবং বিশ্রাম নেবেন।

বিকাল ৪টার পর মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে আলাদাভাবে সৌজন্যসাক্ষাৎ করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ওই সাক্ষাৎশেষে মনমোহন যাবেন তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে।

অন্যদিকে মনমোহন সিংয়ের স্ত্রী গুরুশরণ কাউর এ সময় গুরুদুয়ারা পরিদর্শন করতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় যাবেন এবং পরিদর্শন শেষে হোটেলে সোনারগাঁয়ে ফিরবেন।

মনমোহন সিং তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছে সেখানে শিমুল হলে শেখ হাসিনার সঙ্গে আধা ঘণ্টার একান্ত বৈঠকে অংশ নেবেন।

বিকাল ৫টা ৩৫ মিনিট থেকে ৬টা ৫৫ মিনিট পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্মেলনকক্ষ চামেলিতে চলবে দুই দেশের আনুষ্ঠানিক বৈঠক। ওই বৈঠক শেষে দুই দেশের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে এবং এরপর একটি যৌথ ঘোষণা দেওয়া হবে।

সন্ধ্যা ৭টায় মনমোহন সিং সোনারগাঁয়ে ফিরবেন এবং রাত ৮টায় ওই হোটেলের গ্র্যান্ড বলরুমে প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত নৈশভোজে যোগ দেবেন। নৈশভোজে শেখ হাসিনা ও মনমোহন সিং বক্তব্য রাখবেন।

সফরের দ্বিতীয় দিন বুধবার মনমোহন সিং হোটেল সোনারগাঁ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন বেলা পৌঁনে ১১টায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটে তিনি বেলা ১১টা থেকে পৌনে ১২টা পর্যন্ত ‘ইন্ডিয়া, বাংলাদেশ, সাউথ এশিয়া’ (ভারত, বাংলাদেশ, দক্ষিণ এশিয়া) শীর্ষক বক্তব্য রাখবেন। সেখান থেকে বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে তিনি বঙ্গভবনের উদ্দেশে রওয়ানা হয়ে পৌঁছবেন ১২টা ৫ মিনিটে।

বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের সঙ্গে সৌজন্যসাক্ষাৎ শেষে তিনি ১২টা ৫৫ মিনিটে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধু জাদুঘরে যাবেন। সেখানে তিনি বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ, জাদুঘর পরিদর্শন এবং পরিদর্শক বইয়ে স্বাক্ষর করবেন।

বঙ্গবন্ধু জাদুঘর থেকে তিনি হোটেল সোনারগাঁয়ে ফিরবেন বেলা দেড়টায়।

সেখানে বেলা ১টা ৩৫ মিনিট থেকে বিকাল ৫টা ৩৫ মিনিট পর্যন্ত দুপুরের খাবার ও বিশ্রাম নেবেন।

বিশ্রামের ফাঁকে তার সঙ্গে আলাদাভাবে সৌজন্যসাক্ষাৎ করবেন সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবং জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

বিশ্রাম ও সাক্ষাৎপর্ব শেষে মনমোহন সিং হোটেল থেকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জান্তিক বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন। বিকাল ৫টা ৫০মিনিটে বিমানবন্দরে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে আনুষ্ঠানিক বিদায় জানাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মনমোহন সিংয়ের এ সফরকে একটি ঐতিহাসিক সফর হিসেবে বেশ কিছুদিন আগেই উল্লেখ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

ইন্দিরাগান্ধীর পর এটাই মূলত ভারতীয় কোনও প্রধানমন্ত্রীর কর্মসূচিনির্ভর দ্বিপক্ষীয় সফর।

বাংলাদেশ সময়: ১৪১১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০৬, ২০১১

আন্দোলন করে বহিষ্কার, ইউএসটিসি কর্মচারীদের বিক্ষোভ
মুসল্লিদের জন্য খুলছে মসজিদে নববীর দুয়ার
প্লাজমা দিয়েও বাঁচানো গেল না করোনা রোগী
শর্ত মেনে করতে হবে নাটকের শুটিং
শাহ আমানত বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতে প্রস্তুতি


টানা দ্বিতীয়বার সবচেয়ে দামি ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ
রাজাপু‌রে পু‌লিশ‌কে কু‌পি‌য়ে জখম
করোনায় শান্ত-মারিয়াম ফাউন্ডেশনের ইমামুল কবীরের মৃত্যু
ফ্লয়েডের এমন মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না ওবামা
সোনাইমুড়ীতে ২৭টি অস্ত্রসহ গ্রেফতার ২