মঙ্গলবার ঢাকা আসছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং মঙ্গলবার বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে একটি বিশেষ বিমানে করে ঢাকা আসছেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রীর ঢাকায় আসার মধ্য দিয়ে পূরণ হবে যৌথ ইশতেহারের আরও একটি অনুচ্ছেদ।

ঢাকা: ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং মঙ্গলবার বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে একটি বিশেষ বিমানে করে ঢাকা আসছেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রীর ঢাকায় আসার মধ্য দিয়ে পূরণ হবে যৌথ ইশতেহারের আরও একটি অনুচ্ছেদ।

গত বছরের জানুয়ারিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নয়াদিল্লি সফরের সময় একটি যৌথ ইশতেহার ঘোষিত হয়। ইশতেহারের ৫০তম অনুচ্ছেদে স্থান পেয়েছিল বাংলাদেশের জনগণ ও সরকারের পক্ষ থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও তার স্ত্রীকে ঢাকা সফরে আসতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিমন্ত্রণের বিষয়টি। ওই নিমন্ত্রণেই মঙ্গলবার ঢাকায় আসছেন মনমোহন ও তার স্ত্রী গুরশরন কাউর।

এদিন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বেলা ১২টায় ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে লালগালিচা সংবর্ধনা দেওয়ার পর ১৯ বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে সম্ভাষণ জানাবে সশস্ত্রবাহিনীর একটি চৌকস দল।

বিমানবন্দর থেকে মনমোহন সিং জাতীয় স্মৃতিসৌধে গিয়ে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানাবেন।

বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মনমোহন সিংয়ের মধ্যে তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শিমুল হলে আধা ঘণ্টার একটি একান্ত বৈঠক হবে। বিকেল ৫টা ৩৫ মিনিট থেকে ৬টা ৫৫ মিনিট পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্মেলনকক্ষ চামেলীতে চলবে দুই দেশের আনুষ্ঠানিক বৈঠক। ওই বৈঠক শেষে দুই দেশের মধ্যে চুক্তি সই হবে এবং এরপর একটি যৌথ ইশতেহার ঘোষণা করা হবে।

ঘোষিত যৌথ ইশতেহারের অনেক বিষয়ই পূর্ণতা পাবে ঐতিহাসিক এ সফরে। কূটনৈতিক সূত্রগুলোও জানিয়েছে, যৌথ ইশতেহারের অনেক সিদ্ধান্তই বাস্তবায়ন হবে এ সফরে। অনেক ইস্যুতে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা বা সমঝোতা হওয়ারও কথা রয়েছে।

বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী ভারতীয় ৪টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ঢাকায় মনমোহনের সফরসঙ্গী হবেন। তারা হলেনÑ মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমা, ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার, আসামের মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ ও মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী লাল থানহাওলা।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আসার কথা থাকলেও গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় কলকাতা থেকে পাঠানো বার্তায় জানা গেছে তিনি আসছেন না।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসএম কৃষ্ণা, পানিসম্পদমন্ত্রী পবনকুমার বানসাল, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব টিকেএ নায়ার, পররাষ্ট্র সচিব রঞ্জন মাথাই, গণমাধ্যমবিষয়ক উপদেষ্টা ড. হারিস খারিসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা ঢাকায় আসছেন।

মনমোহন সিংয়ের সফরসূচি:

বিমানবন্দর থেকে বেলা সোয়া ১২টায় মনমোহন সিংকে বহনকারী মোটর শোভাযাত্রা রওনা হবে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধের উদ্দেশে।

বেলা ১টায় জাতীয় স্মৃতিসৌধে পৌঁছে মনমোহন সিং মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। এরপর তিনি জাতীয় স্মৃতিসৌধ পরিদর্শক বইয়ে স্বাক্ষর করবেন এবং স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে কামরাঙা গাছের চারা রোপন করবেন।

স্মৃতিসৌধ থেকে মনমোহন সিংয়ের মোটর শোভাযাত্রা রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁয়ে পৌঁছবে বেলা ১টা ৫০ মিনিটে। তিনি সেখানেই দুপুরে খাবার খাবেন এবং বিশ্রাম নেবেন।

বিকেল ৪টার পর মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে আলাদাভাবে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ওই সাক্ষাৎ শেষে মনমোহন যাবেন তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে।

অন্যদিকে মনমোহন সিংয়ের স্ত্রী গুরশরণ কাউর এ সময় গুরুদুয়ারা পরিদর্শন করতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় যাবেন এবং পরিদর্শন শেষে হোটেল সোনারগাঁওয়ে ফিরবেন।

মনমোহন সিং তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছে সেখানে শিমুল হলে শেখ হাসিনার সঙ্গে আধা ঘণ্টার একান্ত বৈঠকে মিলিত হবেন।
 
বিকেল ৫টা ৩৫ মিনিট থেকে ৬টা ৫৫ মিনিট পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্মেলন কক্ষ চামেলীতে চলবে দুই দেশের আনুষ্ঠানিক বৈঠক। ওই বৈঠক শেষে দুই দেশের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে এবং এরপর একটি যৌথ ইশতেহার ঘোষণা করা হবে।

সন্ধ্যা ৭টায় মনমোহন সিং সোনারগাঁওয়ে ফিরবেন এবং রাত ৮টায় ওই হোটেলের গ্র্যান্ড বলরুমে প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত নৈশভোজে যোগ দেবেন। নৈশভোজে শেখ হাসিনা ও মনমোহন সিং বক্তব্য রাখবেন।

সফরের দ্বিতীয় দিন বুধবার মনমোহন সিং হোটেল সোনারগাঁও থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশে রওনা হবেন বেলা পৌঁনে ১১টায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটে তিনি বেলা ১১টা থেকে পৌনে ১২টা পর্যন্ত ‘ইন্ডিয়া, বাংলাদেশ, সাউথ এশিয়া’ (ভারত, বাংলাদেশ, দক্ষিণ এশিয়া) শীর্ষক বক্তব্য রাখবেন। সেখান থেকে বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে তিনি বঙ্গভবনের উদ্দেশে রওনা হয়ে পৌঁছবেন ১২টা ৫ মিনিটে।

বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের সঙ্গে সৌজন্যসাক্ষাৎ শেষে তিনি ১২টা ৫৫ মিনিটে রাজধানীর ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু জাদুঘরে যাবেন। সেখানে তিনি বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ, জাদুঘর পরিদর্শন এবং পরিদর্শক বইয়ে স্বাক্ষর করবেন।

বঙ্গবন্ধু জাদুঘর থেকে তিনি হোটেল সোনারগাঁওয়ে ফিরবেন বেলা দেড়টায়।

সেখানে বেলা ১টা ৩৫ মিনিট থেকে বিকেল ৫টা ৩৫ মিনিট পর্যন্ত দুপুরের খাবার ও বিশ্রাম নেবেন।

বিশ্রামের ফাঁকে তার সঙ্গে আলাদাভাবে সৌজন্যসাক্ষাৎ করবেন সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এবং জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

বিশ্রাম ও সাক্ষাৎপর্ব শেষে মনমোহন সিং হোটেল থেকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্দেশে যাবেন। বিকেল ৫টা ৫০মিনিটে বিমানবন্দরে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে আনুষ্ঠানিক বিদায় জানাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

উল্লেখ্য, ইন্দিরা গান্ধীর পর এটাই মূলত ভারতের কোনো প্রধানমন্ত্রীর কর্মসূচিনির্ভর দ্বিপক্ষীয় সফর।

বাংলাদেশ সময়: ০২৪৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০৫, ২০১১

রাজধানীতে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ
কক্সবাজারে আরো ৪৬ জন করোনা আক্রান্ত
শ্রীমঙ্গলে ৬৭ মামলায় ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা
আড়াইহাজারে দগ্ধ আরও একজনের মৃত্যু
সিলেটে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ৪৮ জন


নালিতাবাড়ীতে বজ্রপাতে যুবকের মৃত্যু
বগুড়ায় একদিনে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্ত
সাবেক মেয়র কামরানের স্ত্রী করোনা আক্রান্ত
বাগেরহাটে আ’লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১
নিহত ৫ জনের পরিচয় শনাক্ত করেছে ইউনাইটেড কর্তৃপক্ষ