মনমোহনের অপেক্ষায় একটি অসামান্য কামরাঙা চারা!

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

সামান্য থেকে রাতারাতি অসামান্য হয়ে উঠেছে কামরাঙা গাছের একটি চারা। কদরের কমতি নেই ওষুধি গুণসম্পন্ন ভেষজ এই উদ্ভিদের। চলছে বিশেষ যত্ন-আত্তি।

ঢাকা: সামান্য থেকে রাতারাতি অসামান্য হয়ে উঠেছে কামরাঙা গাছের একটি চারা। কদরের কমতি নেই ওষুধি গুণসম্পন্ন ভেষজ এই উদ্ভিদের। চলছে বিশেষ যত্ন-আত্তি।

তিন ফুট উচ্চতার ছোট্ট কামরাঙা চারাটিতে ফুল ধরছে। স্থান পেয়েছে জাতীয় স্মৃতিসৌধের গ্রিন হাউজে। চারাটি ঘিরে চলছে নিরাপত্তা কর্মীদের শেষ মুহূর্তের পরীক্ষা নিরীক্ষা।

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর জন্য বলে কথা! মঙ্গলবার মনমোহন সিং সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে এই চারাটি নিজ হাতে রোপণ করবেন।

চারা রোপণের সঙ্গে সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রনায়ক ও অতিথিদের নামের সারিতে গর্বের সঙ্গে যুক্ত হবে এই চারাটিও।

অবশ্য এই অবস্থানে আসার জন্য হাজারো চারাগাছের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামতে হয়েছে ছোট্ট কামরাঙা গাছটিকে।

সে প্রতিযোগিতার বিচারকদের তীক্ষ্ণ দৃষ্টি ও বিচার বোধকে জয় করে হাজার থেকে সেরা তিন ফুল ও দুই ফলের গাছের চারার তালিকায় স্থান পায় এটি।

এর পর চলে আরো নিখুঁত বিচার। তাতে সিদ্ধান্ত হয় স্মৃতি সৌধে মনমোহনের সফর ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকবে একটি ফলদ বৃক্ষই। একই সঙ্গে সেটি হবে ভেষজ গুণসম্পন্ন। এবার  তিনটি ফলদ চারার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামতে হয় গাছটিকে। বাকি দুই প্রতিদ্বন্দ্বী আম ও কদবেল। এপর্যায়ে সিদ্ধান্ত হয় কামরাঙাই রোপণ করবেন মনমোহন। কিন্তু চারাটির জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা সেখানেই শেষ হয়ে যায়নি। এবার তাকে নামতে হলো আরো কঠিন প্রতিযোগিতায়। চূড়ান্ত এ পর্বে তিনটি বাছাই করা সেরা কামরাঙা চারার মধ্য থেকে অবশেষে উচ্চতা ও সৌন্দর্য্য বিচারে টিকে যায় সবুজ সুন্দর কামরাঙা চারাটি।

এসব কথা জানালেন জাতীয় স্মৃতিসৌধের আরবরি কালচার বিভাগের কার্য সহকারী ওবায়দুল হক।

গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের আরবরি কালচার বিভাগের প্রধান বৃক্ষপালনবিদ ফজলুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, বলা যায় ভারতের প্রধানমন্ত্রীর পছন্দেই কামরাঙ্গা গাছের চারাটি নির্বাচন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা হাজারো গাছ থেকে ফলের মধ্যে আম, কদবেল, কামরাঙ্গা ও ফুলের মধ্যে অঞ্জন ও বকুলের নাম পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাই। সেখান থেকে ভারতীয় হাইকমিশনের মাধ্যমে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়। সেখান থেকেই কামরাঙ্গা নামটি চূড়ান্ত করা হয়।’

পরে বাছাই করা তিনটি চারার মধ্যে তিন ফুট উচ্চতার এই চারাটিকে নির্বাচিত করা হয়।

গণপূর্ত বিভাগের সাভার উপবিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাথীপ্রিয় বড়ুয়া বাংলানিউজকে জানান, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সাভার সফরসূচির মধ্যে রয়েছে-মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন, পরিদর্শন বইতে স্বাক্ষর ও বৃক্ষরোপণ।

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফরকে কেন্দ্র করে সাভারে নেওয়া হয়েছে তিনস্তরের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা। সড়ক পথে যাতায়াতের কারণে গত দুই দিনে আমিনবাজার থেকে নবীনগর পর্যন্ত সড়কের দুপাশে থাকা টং দোকানসহ কয়েক’শ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে প্রশাসন।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আনুষ্ঠানিকতা শেষে মনমোহন সিং সড়ক পথে বেলা ১২ টা ৪০ মিনিটে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পৌঁছাবেন।

সেখানে তাকে স্বাগত জানাবেন গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আব্দুল মান্নান ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব.) তাজুল ইসলাম।

শহীদ বেদীতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানাবেন মনমোহন সিং। এ সময় তিনবাহিনীর সুসজ্জিত একটি দল তাকে গার্ড অব অনার জানাবেন।

এ জন্যে সোমবার ৩৮ ইঞ্চি ব্যাসার্ধ্যের একটি পুষ্পমাল্য তৈরি করেছে কর্তৃপক্ষ। সেখানে থাকবে নানা রঙ্গের গ্যাডিউলাস ও গোলাপের ছড়াছড়ি।

মনমোহনের সফল উপলক্ষে স্মৃতিসৌধ ও আশেপাশের এলাকায়ও নেওয়া হয়েছে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা।

গত শনিবার থেকে আগামীকাল পর্যন্ত তিনদিন স্মৃতিসৌধে দর্শনার্থী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এ উপলক্ষে স্মৃতিসৌধের সৌন্দর্য বৃদ্ধিসহ ধোয়ামোছা ও পরিচ্ছন্নতার কাজ শেষ করেছে কর্তৃপক্ষ।

মাত্র ২০ মিনিট অবস্থান শেষে মনমোহন সিং ঢাকায় ফিরবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১১

ঈদে প্রকাশ হলো ইকরিমিকরির গান
লকডাউন: মৃত্যুপথযাত্রী মাকেও দেখতে যাননি ডাচ প্রধানমন্ত্রী
নারগিস ফাখরির সঙ্গে তাপসের গান ‘নিত দিন জিয়া মারা’
কোটচাঁদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
ধরা পড়ে আবারও বিয়ের পিঁড়িতে নারী ভাইস চেয়ারম্যান


নারায়ণগঞ্জে সর্বোচ্চ করোনা শনাক্তের দিন শহর ফাঁকা!
বোলারদের মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ মিসবাহ’র
শিরোইল পুলিশ ফাঁড়ির ১৮ সদস্য কোয়ারেন্টিনে
লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ হলে মানুষ আর ক্রিকেট দেখবে না: স্টার্ক
মুকসুদপুরে পৃথক সংঘর্ষের ঘটনায় ওসিসহ আহত ৪৫