বীরগঞ্জের ১১ গ্রামবাসীর দুঃখ বুড়াশিব সেতু

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

জনকল্যাণে নির্মিত হলেও সেতুটি ২৪ বছর ধরে ১১টি গ্রামের হাজার হাজার মানুষকে শুধু কষ্টই বিলিয়ে যাচ্ছে। দীর্ঘ দুই যুগেও কেউ তাদের এ কষ্ট থেকে মুক্তি দিতে এগিয়ে আসেনি।



দিনাজপুর: জনকল্যাণে নির্মিত হলেও সেতুটি ২৪ বছর ধরে ১১টি গ্রামের হাজার হাজার মানুষকে শুধু কষ্টই বিলিয়ে যাচ্ছে। দীর্ঘ দুই যুগেও কেউ তাদের এ কষ্ট থেকে মুক্তি দিতে এগিয়ে আসেনি। অগত্যা জীবনের ঝুঁকি নিয়েই ব্যবসা-বাণিজ্য, পড়ালেখাসহ বিভিন্ন কাজের প্রয়োজনে ভাঙা সেতু পাড়ি দিতে হচ্ছে ওইসব গ্রামের বাসিন্দাদের।

অপরদিকে, সেতুটি পুনর্নির্মাণের একাধিক কর্তৃপক্ষ থাকা সত্ত্বেও একে অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে দায়িত্ব এড়িয়ে চলছেন সবাই। এ যেন ‘অতি সন্ন্যাসীতে গাজন নষ্ট’ হওয়ার দৃশ্যমান উদারণ।

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার সাতোর ইউনিয়নের ১১ গ্রামের মানুষের যাতায়াতের দুর্ভোগ কমাতে স্বাধীনতা-পূর্বকালে ওই ইউনিয়নের রাজবাড়ি গ্রামসংলগ্ন পুনর্ভবা নদীর ওপর নির্মাণ করা হয় বুড়াশিব সেতু। ১৯৮৭ সালের ভয়াবহ বন্যায় সেতুটি ভেঙে যায়।

এরপর আর সংশ্লিষ্ট কেউই এ সেতু পুনর্নির্মাণ বা মেরামতে এগিয়ে আসেনি বলে জানায় এলাকাবাসী।

সেতুটি ভেঙে পড়ার পর থেকেই সেখানে বাঁশের সাঁকো তৈরি করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পার হতে হচ্ছে সাতোর, রাজবাড়ি, প্রাণনগর, আমলাপাড়া, রাজবাড়ি কলোনি, চৌপুকুরিয়া, দলুয়া, মির্জা কৃষি ফার্ম, বটতলী, জিন্দাপীরসহ ১১টি গ্রামের হাজার হাজার মানুষকে।

সেতুটি পুনর্নির্মাণ না হওয়ায় বেশি সমস্যা হচ্ছে কৃষক আর শিক্ষার্থীদের।

কৃষকরা সঠিক সময়ে তাদের উৎপাদিত পণ্য দূরবর্তী হাট-বাজারে নিয়ে যেতে পারেন না। আবার নিয়ে এলেও ভাঙা সেতু পারাপারের জন্য তাদের বাড়তি ভ্যান ভাড়া গুনতে হয়। কখনো কখনো স্বাভাবিক ভাড়ার চেয়ে তা চারপাঁচ গুণ।

এ ব্যাপারে উপজেলার সবজি এলাকা হিসেবে পরিচিত প্রাণনগর রাজবাড়ির চাষী মনছুর আলী জানান, এ এলাকা আলু, পটল, করলা, শিম, কাঁচা মরিচ, ফুলকপি, বাঁধাকপি, কলা, শালগম, গাজর, পেঁপেসহ বিভিন্ন সবজি চাষের জন্য প্রসিদ্ধ। এখানকার কৃষকরা তাদের জমিতে মৌসুমের শুরুতেই সবজি উৎপাদন করতে সক্ষম হলেও যাতায়াত সুবিধা না থাকায় তারা উপজেলা শহরে বা দূরের হাটবাজারে নিয়ে যেতে পারেন না। সে কারণে উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্যও পাচ্ছেন না বলে জানান তিনি।
 
ওই এলাকার আব্দুল লতিফ, তৈয়বুর রহমান, আলী আকবর ও দেলোয়ার হোসেনসহ কয়েকজন কৃষক বাংলানিউজকে বলেন, ‘উপযুক্ত সময়ে সবজি ফলিয়েও বাজারে নিতে না পারার কারণে উচিত মূল্য পাচ্ছি না।’

তারা জানান, সেতুর অভাবে অনেক দূর ঘুরে বাজারে সবজি নিয়ে যেতে হয়। এতে যাতায়াত খরচ কয়েকগুণ বেশি পড়ে। ফলে উৎপাদন খরচই ওঠে না।

সেতু ভেঙে পড়ায় সমস্যায় পড়তে হচ্ছে এলাকার পার্শ্ববর্তী চৌপুকুুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, দলুয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বীরগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ, বীরগঞ্জ মহিলা কলেজ, বীরগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, বীরগঞ্জ পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ইব্রাহিম মেমোরিয়াল শিক্ষা নিকেতনসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের। তাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়েই বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার করতে হয় তাদের।

প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়া শিশু শিক্ষার্থীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শুষ্ক মৌসুমে পারাপার করলেও বর্ষা মৌসুমে বেশির ভাগই শিক্ষার্থীর স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেন অভিভাবকরা।
 
অভিভাবক মোকলেছুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, ‘সেতুটি না থাকায় আমাদের সন্তানদের ঝুঁকি নিয়েই স্কুলে পাঠাতে হয়। কী করবো, সন্তানকে তো আর মূর্খ করে রাখা যাবে না।’
 
অনেকেই ছোট শিশুদের স্কুলে পাঠান না বলে জানান তিনি।
 
সাতোর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ গবীন বর্মণ বাংলানিউজকে বলেন, ‘শপথ নেওয়ার আগেই আমি দিনাজপুর-১ আসনের (বীরগঞ্জ-কাহারোল) সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালের কাছে পুনর্ভবা নদীর ওই স্থানে নতুন একটি সেতু নির্মাণের দাবি জানিয়েছি।’

দিনাজপুর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) নির্বাহী প্রকৌশলী মোখলেছুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, ‘এখন পর্যন্ত উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার অফিস থেকে কিংবা প্রশাসন থেকে আমাদের এ ব্যাপারে কোনো কিছু জানানো হয়নি। তবে গ্রামবাসী আবেদন করলে সেতুটি পুনর্নির্মাণের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সেতুটি প্রসঙ্গে বীরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আখতারুল ইসলাম চৌধুরী বাবুল বলেন, ‘যে কোনো প্রকার উন্নয়নকাজের দায়িত্ব এমপি সাহেবের। উন্নয়নকাজের ব্যাপারে সরকার আমাদের কোনো প্রকার দায়িত্ব দেয়নি। তাই এ ব্যাপারে আমাদের কিছুই করার নেই।’

এ বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বাংলানিউজকে জানান, ‘সেতুটি নিয়ে আমি রংপুর বিভাগ উন্নয়ন প্রকল্পের ইঞ্জিনিয়ারের সঙ্গে আলোচনা করেছি।’

সেতুটি ওই এলাকার জনগণের জন্য অত্যন্ত জরুরি স্বীকার সংসদ সদস্য বলেন, ‘আমি এ বিষয়ে আবারো খোঁজ নেবো।’

বাংলাদেশ সময়: ০১১৩ ঘণ্টা, আগস্ট ১৫, ২০১১

শরীয়তপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো ২ কলেজছাত্রের
আড়াইহাজারে যুবলীগ নেতাসহ ৫ জনের জেল
ভাষাশহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে জ্বলে উঠলো ৫২শ' মোমবাতি
সারাদেশে একুশের প্রথম প্রহরে ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা
গর্বের সঙ্গে বাংলার ব্যবহার চায় ভারতের নদীয়ার প্রতিনিধিদল


ভেঙে পড়লো রাসিক মেয়র লিটনের সংবর্ধনা মঞ্চ
রামুতে বর্ণমালা হাতে হাজারো শিক্ষার্থীর কন্ঠে একুশের গান
ভাষাশহীদদের প্রতি বিরোধী দলীয়নেতা রওশনের শ্রদ্ধা
মাতৃভাষার জন্য ভালোবাসা
একুশে ফেব্রুয়ারি: বাঙালির আত্মপরিচয়ের দিন