চট্টগ্রাম বিদ্যুৎ বিভাগের অনিয়মের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে:সচিব

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

চট্টগ্রাম বিভাগে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) এবং পল্লীবিদ্যুতের (আরইবি) কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সব ধরনের অনিয়ম দুর্নীতি, গ্রাহক হয়রানি ও ঔদ্ধত্য আচরণের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব আবুল কালাম আজাদ।



চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম বিভাগে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) এবং পল্লীবিদ্যুতের (আরইবি) কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সব ধরনের অনিয়ম দুর্নীতি, গ্রাহক হয়রানি ও ঔদ্ধত্য আচরণের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব আবুল কালাম আজাদ।

বুধবার থিয়েটার ইনস্টিটিউটে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের এক মতবিনিময় ও পরামর্শ সভায় সচিব এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তিন থেকে থেকে সাত দিনের মধ্যে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য তিনি পিডিবি ও আরইবি চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেন।

সচিব বলেন, ‘স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় সাধন না করলে বিদ্যুৎ পরিস্থিতি মোকাবেলা করা সম্ভব হবে না।’

বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলার জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় পিডিবি ও আরইবির বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগের প্রেক্ষাপটে এ নির্দেশ দেন সচিব।

সভায় বিদ্যুতে বিভাগের হয়রানি ও দুর্নীতি নিয়ে জনপ্রতিানধিদের তোপের মুখে পড়েন সচিব এবং  পিডিবি ও আরইবি চেয়ারম্যান। বিদ্যুৎ সচিব জেলা প্রশাসকদের স্ব স্ব জেলায় বরাদ্দকৃত বিদ্যুতের ন্যায্য হিস্যা আদায় করে নেয়ার আহবান জানান।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ সিরাজুল হক খানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন পিডিবির চেয়ারম্যান এএসএম আলমগীর কবীর, আরইবির চেয়ারম্যান ভূঁইয়া সফিকুল ইসলাম ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আবুল কাশেম।
 
মতবিনিময় সভায় চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জেলার জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরসভা মেয়র ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বেশিরভাগ জনপ্রতিনিধির ট্রান্সফরমার সমস্যা নিয়ে ক্ষোভ  প্রকাশ করেন।

মতবিনিময় সভায় অবৈধ সংযোগ লাইন বন্ধ, লোডশেডিংয়ের সময় বেঁধে দেওয়া, টমটম গাড়ি বাতিল, জেলাভিত্তিক ব্যক্তিগত উদ্যোগে বিদ্যুৎকেন্দ্র গড়ে তোলা, জেলাভিত্তিক ট্রান্সফরমার মজুদ এবং এনার্জি বাল্ব বিনামূল্যে না দিয়ে ভর্তূকি দিয়ে দাম কমিয়ে দেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১১ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০১১

গর্বের সঙ্গে বাংলার ব্যবহার চায় ভারতের নদীয়ার প্রতিনিধিদল
ভেঙে পড়লো রাসিক মেয়র লিটনের সংবর্ধনা মঞ্চ
রামুতে বর্ণমালা হাতে হাজারো শিক্ষার্থীর কন্ঠে একুশের গান
ভাষাশহীদদের প্রতি বিরোধী দলীয়নেতা রওশনের শ্রদ্ধা
মাতৃভাষার জন্য ভালোবাসা


একুশে ফেব্রুয়ারি: বাঙালির আত্মপরিচয়ের দিন
বাংলায় দেওয়া রায়ে বঙ্গবন্ধুর সেই ভাষণ
প্রথম প্রহরেই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জনস্রোত
একুশের প্রথম প্রহরে উপচেপড়া ভিড় শহীদ মিনারে
মাতৃভাষা বাংলার জন্য আত্মত্যাগের দিন