পিলখানা হত্যা মামলা: আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন সম্পন্ন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

পিলখানায় বিজিবি (সাবেক বিডিআর) সদরদপ্তরে সংঘটিত হত্যাকাণ্ড মামলায় ৮৪৭ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শেষ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে ২৪ আগস্ট পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত।



ঢাকা: পিলখানায় বিজিবি (সাবেক বিডিআর) সদরদপ্তরে সংঘটিত হত্যাকাণ্ড মামলায় ৮৪৭ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শেষ করা হয়েছে।

সেইসঙ্গে ২৪ আগস্ট পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত।

পিলখানা হত্যাকাণ্ডের বাদি নবজ্যোতি খীসাকে ২৪ আগস্ট আদালতে সাক্ষ্য দিতে আসার জন্য সমন দেওয়া হয়েছে।

এদিকে বিস্ফোরক মামলায় ৮৩০ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

বুধবার বেলা পৌনে ২টায় আদালত মুলতবির ঘোষণা করা হয়।  

এদিন বেলা ১২টার দিকে এ শুনানি শুরু হয়। সকাল সাড়ে ৯ টায় শুনানি শুরু হওয়ার কথা থাকলেও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় আসামিদের আনা সম্ভব না হওয়ায় শুনানি বিলম্বে শুরু হয়।

গত ২৭ জুলাই ৩১০ আসামিসহ এ পর্যন্ত অভিযোগপত্রভুক্ত ৭৪০ জন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। এরপর ওইদিন প্রচণ্ড গরমের কারণে অভিযোগ গঠন মুলতবি করা হয়।

ঢাকার বকশীবাজার এলাকায় কেন্দ্রীয় কারাগার ও নবকুমার ইন্সটিটিউশনসংলগ্ন আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী আদালতে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। মহানগর দায়রা জজ জহুরুল হক বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এ নিয়ে অভিযোগ শুনানির এটি দশম দিন।

গত ২৮ মার্চ মামলার এজাহার পাঠের মধ্য দিয়ে অভিযোগ গঠন প্রক্রিয়া শুরু হয়।

ডিএডি তৌহিদ, ডিএডি নাসির, ডিএডি হাবিব, ডিএডি জলিল, বিএনপি নেতা ও সাবেক সাংসদ নাসিরউদ্দিন আহমেদ পিন্টু, স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা বিডিআরের সাবেক সুবেদার তোরাব আলীসহ এ পর্যন্ত ৭৪০ জন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

হত্যা মামলায় ৮৫০ জনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। ৮৫০ আসামির মধ্যে কারাগারে আটক আছেন ৮২৭ জন। বাকি ২৩ আসামির মধ্যে ৩ জন মারা গেছেন এবং ২০ জন পলাতক।

মামলাটি তদন্তের সময়ই মারা যান বিডিআরের উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) রহিম ও হাবিলদার শফিকুল ইসলাম এবং অভিযোগ শুনানি চলাকালে গত ১৫ মে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে মারা যান আসামি হাবিলদার মতিউর রহমান।

গত বছরের ১২ জুলাই হত্যা মামলায় ও ২৭ জুলাই বিস্ফোরক আইনে দায়ের করা মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার আব্দুল কাহার আকন্দ।

২০০৯ সালের ২৫-২৬ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর পিলখানায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদর দপ্তরে সাবেক বিডিআরের জওয়ানরা ৫৭ জন সেনা কর্মকর্তাসহ ৭৪ জনকে হত্যা করে।

এ ঘটনায় লালবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পুলিশের পরিদর্শক নবজ্যোতি খীসা প্রথমে লালবাগ থানায় এবং পরে নিউমার্কেট থানায় মামলা করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০১১

ইতালিতে করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যু
ফেনী ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের আলোকচিত্র প্রদর্শনী
মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে প্রবেশকালে আটক ৪ 
জাতীয় হ্যান্ডবল দলের গোলরক্ষক সোহান দুর্ঘটনায় নিহত
গ্রন্থমেলায় মুহাম্মদ আসাদুজ্জামানের ‘ভালোবাসার গল্প’


কলকাতার বাংলাদেশ উপদূতাবাসে অন্যরকম একুশ
চুনারুঘাট সীমান্তে ভারতীয় মুদ্রাসহ আটক ৫
শহীদদের ‘স্মৃতিচিহ্ন’ এঁকে পুরস্কার পেলো শিশুরা
অধিনায়কত্বটা এখন উপভোগ করি: মুমিনুল
বাবার প্রতিকৃতির সামনে প্রধানমন্ত্রীর সেলফি