সাঈদীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের পরবর্তী শুনানি ১৮ আগস্ট

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

মানবতা বিরোধী অপরাধে গ্রেপ্তারকৃত জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের পরবর্তী শুনানি ১৮ আগস্ট নির্ধারণ করেছেন ট্রাইব্যুনাল।



ঢাকা: মানবতা বিরোধী অপরাধে গ্রেপ্তারকৃত জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের পরবর্তী শুনানি ১৮ আগস্ট নির্ধারণ করেছেন ট্রাইব্যুনাল।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হওয়া শুনানি শেষে আদালত এ সময় নির্ধারণ করেন।ওই দিনেই সাঈদীর জামিন আবেদনেরও শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে ১৬ আগাস্ট সাঈদীর সঙ্গে তার অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম ও ব্যারিস্টার তানজির আহমেদ আলামীনকে কথা বলার অনুমতি দিয়েছেন আদালত।

তবে প্রথমে ২ ঘণ্টার জন্য তাদের সময় দিলে ব্যারিস্টার তানজির আহমেদ এর বিরোধীতা করেন। পরে আদালত ওইদিন পুরো সময় সাঈদীর সঙ্গে তাদের কথা বলার অনুমতি দেন।

এ বিষয়ে তাদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করতেও আদালত জেল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন।  

শুনানিতে সাঈদীর পক্ষে অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম, ব্যারিস্টার তানজির আহমেদ আলামীন এবং রাষ্ট্রপক্ষে প্রসিকিউটর জিয়াদ আল মালুম অংশ নেন।

সাঈদীর বিরুদ্ধে তদন্ত কর্মকর্তার দেওয়া ৪ হাজার পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন রাষ্ট্রপক্ষের কৌশুলিরা যাছাই-বাচাই করে ৪শ’ পৃষ্ঠা তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন।

এর মধ্যে ৯৭ পৃষ্ঠা অস্পষ্ট বলে অভিযোগ আনেন ব্যারিস্টার তানজির আহমেদ আলামীন। এ ৯৭ পৃষ্ঠার কপি আগামী ১৪ আগস্টের মধ্যে আসামি পক্ষের আইনজীবীদের দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

ট্রাইব্যুনাল শেষে সাংবাদিকরা চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফের কাছে তদন্ত প্রতিবেদনের ৯৭ পৃষ্ঠা অস্পষ্টের কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ছাপার মেশিনে ত্রুটি থাকলে আমাদের কিছু করার নেই।’

এদিকে আদালতের শুরুতেই ট্রাইব্যুনাল চেয়াম্যান নিজামুল হক ট্রাইব্যুনালের পরিবেশ সম্পর্কে উভয় পক্ষকে সতর্ক করেন।

ট্রইব্যুনালের কার্যক্রমের পথে কোনও প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না করার জন্য তিনি সবাইকে আহ্বানও জানান।বুধবার শুনানি উপলক্ষে সকাল ৯টা ৫০ মিনিটে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারগার থেকে সাঈদীকে আদালতে নিয়ে আসা হয়।

গত ১৪ জুলাই আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আমলে নিয়ে এ শুনানির দিন ধার্য করে।এর আগে সাইদীর জামিনের জন্য পাঁচবার আবেদন করা হয়।

এদিকে ৭১’র মুক্তিযুদ্ধের সময় যুদ্ধাপরাধীর অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত জামায়াতের আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ, সিনিয়র সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ কামারুজ্জামান ও আব্দুল কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে ১ নভেম্বরের মধ্যে তদন্তকাজ শেষ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অন্যথায় তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন জমা দিতে হবে আদালতে। এর মধ্যে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিলেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অপরদিকে, বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন অথবা অগ্রগতি প্রতিবেদন ৪ অক্টোবরের মধ্যে দাখিল করার নির্দেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের জন্য ২০১০ সালের ২৫ মার্চ পুরনো হাইকোর্ট ভবনে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল স্থাপন করা হয়।

ট্রাইব্যুনাল গঠনের পর ২০১০ সালের ২৯ জুন জামায়াতের আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ ও নায়েবে আমির মাওলানা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

একই বছরের ১৩ জুলাই গণহত্যা মামলায় জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ কামারুজ্জামান ও আব্দুল কাদের মোল্লাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সর্বশেষ ১৬ ডিসেম্বর বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করা হয়।২০১১ সালের ২৭ মার্চ বিএনপির আরেক নেতা আব্দুল আলীমকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি এখন শর্তসাপেক্ষে জামিনে রয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১১২৩ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০১১

বঙ্গবন্ধু বিষয়ক দুই বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
ওপার বাংলার ‘ওরা ৭ জন’ এখন পাবনায়
দ. আফ্রিকার টি-টোয়েন্টি দলে ফিরলেন ডু প্লেসিস-রাবাদা 
জমে উঠেছে বইমেলা, চলছে আড্ডাও
মেয়েকে হত্যার অভিযোগে মা গ্রেফতার


প্রকাশিত হয়েছে সুমন রহমানের ‘নির্বাচিত কবিতা’
তিনটি উপ-নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন পেলেন যারা
শাহরুখের সিনেমায় ৮ কোটি রুপি পারিশ্রমিক চান কারিনা!
দেশে ফিরেছেন ভারতে কারাভোগ করা ৮ বাংলাদেশি 
বিমানবন্দরে বডি স্ক্যানার ‘প্রোভিশন ২’