মনমোহনের সফরে ঢাকায় সর্বোচ্চ নিরাপত্তার প্রস্তুতি এসপিজির

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিংয়ের ঢাকা সফরকালে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ওই দেশটিরই ভিভিআইপির নিরাপত্তাদল ‘স্পেশাল প্রটেকশন গ্রুপ’ (এসপিজি)।



ঢাকা: ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিংয়ের ঢাকা সফরকালে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ওই দেশটিরই ভিভিআইপির নিরাপত্তাদল ‘স্পেশাল প্রটেকশন গ্রুপ’ (এসপিজি)।

মনমোহন এবং এসপিজির জন্য সেপ্টেম্বরের ২/৩ তারিখের মধ্যেই অন্তত ৩টি বিশেষ গাড়ি ঢাকা আসবে। এছাড়া এসপিজির গোয়েন্দা দলও আগামী কয়েকদিনের মধ্যে ঢাকা এসে কাজ শুরু করবে।   

বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র এসব তথ্য জানায়।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং আগামী ৬-৭ সেপ্টেম্বর ঢাকা সফর করবেন বলে ঘোষণা করেছে দু’দেশ।  

মনমোহন সিংয়ের নিরাপত্তা ও সফরসূচির বিভিন্ন খুঁটিনাটি দিক নিয়ে আলোচনা করতে এসপিজির ইন্সপেক্টর জেনারেল সুদীপ লাখতাকিয়ার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল মঙ্গলবার দুপুরের পর ঢাকা এসেছে।

সফরের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনার জন্য এলেও মনমোহনের নিরাপত্তার দিকটিই মূলত প্রতিনিধিদলটির মূল বিষয় বলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাষ্ট্রাচার অণুবিভাগ ও বাংলাদেশের স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স সূত্র জানায়।

বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত এসএসএফের সঙ্গে কাজ করলেও ওই দু’দিন মনমোহন যেখানে যাবেন, সেখানকার নিরাপত্তা ব্যবস্থার মূল দায়িত্বে থাকবে এসপিজি।
 
মনমোহনের সফরের কয়েকদিন আগে এসপিজির বিশেষ দলের অন্তত ২৪ সদস্য ঢাকা আসবেন। তারা এসএসএফের সঙ্গে মিলে মনমোহন সিংয়ের নিরাপত্তার বিষয়গুলোর দায়িত্ব বুঝে নেবেন।

সূত্রের খবর, মনমোহন সিং ঢাকায় বিশেষ বুলেটপ্রুফ একটি গাড়িতে চড়বেন। সেটিও নয়াদিল্লি থেকে সফরের কয়েকদিন আগেই ঢাকা আসবে। এছাড়া ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর গাড়ির সামনে পিছনে যাতায়াত করার জন্য এসপিজির জন্যও অন্তত ২টি বিশেষ আর্মাড ভেহিকেল আসবে।

বিশেষ এ গাড়িগুলো ভারতীয় বিমানবাহিনীর বিশেষ বিমানে সেপ্টেম্বরের ২ থেকে ৩ তারিখের মধ্যেই ঢাকা আসতে পারে বলেও সূত্র জানায়।  

ঢাকায় মনমোহন সিংয়ের নিরাপত্তায় এসপিজির সর্বোচ্চ প্রশিক্ষিত ১৪জন কর্মী কাজ করতে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে। তারা ‘ত্রি-স্তর’ বিশিষ্ট নিরাপত্তা বলয় তৈরি করে মনমোহনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে।

বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, ভিভিআইপি নিরাপত্তায় এসপিজি ও এসএসএফ মোটামুটি একই ‘ফরমেশন’-এ কাজ করে।

সূত্রটি জানায়, বিশেষ কোনও নিরাপত্তাহীনতার আশঙ্কায় নেই ঢাকা বা নয়াদিল্লি। ভিভিআইপি’র যথাযথ সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থাগ্রহণের অংশ হিসেবেই এসপিজি বাড়তি সতর্কতা নিয়ে কাজ করবে। এর বাইরে এসএসএফ বা পিজিআর ও র‌্যাব তাদের নিজস্ব পদ্ধতি-গোয়েন্দা ব্যবস্থাও কাজ করবে।

বিশেষ করে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে সফরের জন্য বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও এসএসএফের পক্ষ থেকে এরইমধ্যে এসপিজিকে আশ্বস্ত করা হয়েছে।

ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী নিহত হওয়ার পর ভিভিআইপিদের নিরাপত্তায় ১৯৮৫ সালে এসপিজি গঠন করা হয়। তবে এরপরও ১৯৯১ সালে রাজিব গান্ধী আত্মঘাতী আততায়ীর হাতে নিহত হন।

১৯৮৮ সালের জুন মাসে বিশেষ আইন করে এসপিজিকে বিশেষ আইনি কাঠামো দেওয়া হয়। এরপর ১৯৯১,  ১৯৯৪ ও ১৯৯৯ স্পেশাল প্রটেকশন গ্রুপ অ্যাক্টকে সংশোধন করা হয়।

এসপিজির ৩ হাজার নিয়মিত সদস্য রয়েছে।     

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৫ ঘণ্টা, আগস্ট ০৯, ২০১১

পঞ্চগড়ে ভাষা সৈনিক সুলতান বইমেলা শুরু
চুয়াডাঙ্গায় গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
৬ বছর পর কোন্দলপূর্ণ শিবগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সম্মেলন
'লাইটিং দ্য ফায়ার অব ফ্রিডম' দেখলেন প্রধানমন্ত্রী-রেহানা
ইতালিতে করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যু


ফেনী ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের আলোকচিত্র প্রদর্শনী
মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে প্রবেশকালে আটক ৪ 
জাতীয় হ্যান্ডবল দলের গোলরক্ষক সোহান দুর্ঘটনায় নিহত
গ্রন্থমেলায় মুহাম্মদ আসাদুজ্জামানের ‘ভালোবাসার গল্প’
কলকাতার বাংলাদেশ উপদূতাবাসে অন্যরকম একুশ