৫০০ মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনে সহায়তা দেবে বিশ্বব্যাংক

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

বিদ্যুৎ সঙ্কট উত্তরণে সৌরবিদ্যুৎ তৈরির সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিনিধি দল সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে আসছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর জ্বালনি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী।

ঢাকা: বিদ্যুৎ সঙ্কট উত্তরণে সৌরবিদ্যুৎ তৈরির সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিনিধি দল সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে আসছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর জ্বালনি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী।

বুধবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলোচনাকালে তিনি বলেন, ‘প্রতিনিধি দলটি মূলত বাংলাদেশে সৌরশক্তিকে কাজে লাগিয়ে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের সম্ভাব্যতা যাচাই করবে।’

উন্নয়নশীল দেশসমুহে বিশ্বব্যাংকের সৌর বিদ্যুৎ থেকে তিন হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের উদ্যোগের অংশ হিসেবে বাংলাদেশে ৫শ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে বলে জানান তৌফিক ই-ইলাহী চৌধুরী।  

এর আগে সকালে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাষ্ট্রির উদ্যোগে সংগঠনের সভা কক্ষে ‘বিদ্যুৎ উৎপাদনে বিকল্প জ্বালানির উৎস’ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তৌফিক ই-ইলাহী চৌধুরী নবায়নযোগ্য জ্বালানি তৈরির ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি বলেন,  ‘নবায়নযোগ্য জ্বালানির দিকে অবশ্যই আমাদের জোর দিতে হবে। কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র করতে হবে। এজন্য সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। শিগগিরই কয়লানীতি চূড়ান্ত হতে যাচ্ছে। এর আগে খনি আইনের আওয়তায় বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি থেকে কয়লা উত্তোলন করেছি।’

গ্যাসের সঙ্কট নিরসণের লক্ষ্যে সরকার এলএনজি (তরলায়িত প্রাকৃতিক গ্যাস) আমদানির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা।

কয়লা উত্তোলনের জন্য কয়লানীতি বাধ্যতামুলক নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ইতিমদ্যে আমরা একটি খনি আইন করেছি। সেই আইনের মাধ্যমে বড়পুকুরিয়া কয়লা কনি উন্নয়ন করা হয়েছে।’
 
উপদেষ্টা বলেন, ‘গ্যাস সংকট সমাধানে এখন এলএনজি (তরল প্রাকৃতিক গ্যাস) আমদানির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর ফলে গ্যাস সংকট কিছুটা কমবে। এই ক্ষেত্রে শিল্প কারখানায় ব্যবহার করা পুরনো বয়লারগুলো আধুনিকায়ন করতে হবে।’  

সেমিনারে ব্যবসায়ী নেতারা বলেন, বর্তমানে শিল্প কারখানাসহ সকল সেক্টরে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া বন্ধ রয়েছে। এটা কবে চালু করা হবে সে বিষয়ে ব্যবসায়ীদের জানাতে হবে। কারণ আমরা অবকাঠামো করলাম, বিনিয়োগ করলাম, কিন্তু বিদ্যুৎ সংযোগ পেলাম না। এতে আমাদের ক্ষতি।
 
তারা বলেন, এখন দেশে নবায়ণযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারের জন্য সবার্ধিক প্রচার চলছে। কিন্তু এর নামে নিন্মমানের সোলার প্যানেল, ইক্যুপমেন্ট এদেশে আসছে। অল্প সময়ের মধ্যে এগুলো বর্জ্যে পরিণত হবে। তখন এটি জাতীয় সমস্যায় রূপান্তরিত হবে।
শিগগিরই কয়লানীতি করার জন্য জোর দাবি জানিয়ে তারা বলেন, সে সকল দেশে কয়লানীতি করা হয়েছে, যাদের কয়লা উত্তোলনে অনেকদিনের অভিজ্ঞতা রয়েছে তাদের অভিজ্ঞতা আমাদের কাজে লাগাতে হবে।

সেমিনারে তিনটি বিষয়ে উপর আলাদা আলাদা তিনটি পেপার উপস্থাপন করা হয়। ‘বিদ্যুৎ উৎপাদনে বিকল্প জ্বালানির উৎস’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-তত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. চৌধুরী কামারুজ্জামান। ‘নবায়নযোগ্য জ্বালানি: পেক্ষাপট বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মার্কস রিওন্যাবেল এনার্জি কোম্পানী লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নেছার মাকসুদ খান এবং ‘নিউকিয়ার এনার্জি: সমস্যা ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ অ্যাটমিক এনার্জি কমিশনের সদস্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ডিসিসিআই এর সভাপতি আবুল কাশেম খান।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩২ ঘণ্টা, ১১ আগস্ট, ২০১০

করোনা ভাইরাসে চীনে মৃত বেড়ে ৮০
পুকুরে মিললো পুলিশ পুত্রের মরদেহ
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত যুবক নিহত
বেলজিয়ামে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি কিশোর নিহত
মাদক মামলায় এক ব্যক্তির ১০ বছর কারাদণ্ড


সমালোচনা না করে দেশের সমস্যা সমাধানের আহ্বান তাজুলের
জনগণের জন্য কাজ করতে পারলে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করি
চীনে ভ্রমণ স্থগিতের কথা ভাবছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়
ধানের শীষে ভোট চাইলেন তাবিথের মা
ইশরাকের গণসংযোগে হামলায় ফখরুলের প্রতিবাদ