রোজায় রাজধানীতে নামছে বাড়তি ২ লাখ রিকশা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

যান্ত্রিক পরিবহনের সঙ্গে অযান্ত্রিক পরিবহনের সঠিক সমন্বয় না থাকায় যানজটে আটকা পড়ে কর্মব্যস্ত জীবনের অনেকটা সময় নষ্ট হয়, রাজধানী ঢাকাকে কেন্দ্র করে নগর বিশেষজ্ঞদের বিশ্লেষণ অনেকটাই এরকম।

ঢাকা: যান্ত্রিক পরিবহনের সঙ্গে অযান্ত্রিক পরিবহনের সঠিক সমন্বয় না থাকায় যানজটে আটকা পড়ে কর্মব্যস্ত জীবনের অনেকটা সময় নষ্ট হয়, রাজধানী ঢাকাকে কেন্দ্র করে নগর বিশেষজ্ঞদের বিশ্লেষণ অনেকটাই এরকম। আর এই তীব্র যানজটের মূল কারণ হিসেবে বরাবরই দায়ী করা হয় রিকশাকে। এ অবস্থায় নতুন খবর হচ্ছে, রমজান ও ঈদকে সামনে রেখে ঢাকায় নামছে আরো দুই লাখ রিকশা।

ঢাকা শহরে বর্তমানে রিকশার সংখ্যা প্রায় পাঁচ লাখ। এর সাথে আরও দুই লাখ যুক্ত হলে বাড়তি যানজট ভোগান্তি বাড়াবে এমনটাই মত দিয়েছেন অনেকে।

তবে, বাড়তি রিকশা ও বাড়তি যানজট মোকাবেলায় পুলিশ বিভাগ প্রস্তুত আছে বলে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে  জানান ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার একেএম শহীদুল হক।

বর্তমানে ঢাকায় সিটি কর্পোরেশনের (ডিসিসি) লাইসেন্স পাওয়া রিকশা আছে মাত্র আশি হাজার। বাকিগুলোর সবই অবৈধ।

একেকটা বৈধ নম্বরের সাথে ৪/৫টি একই নম্বরের অবৈধ রিকশা চালানো হয়। ফলে প্রতিদিনই যানজট আরও প্রকট আকার ধারণ করছে। ঈদ পর্যন্ত এই প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে জানান রিকসা মালিক সমিতির সভাপতি আলী আহম্মদ।

আলী আহম্মদ বলেন, ‘দুই ঈদ ছাড়া প্রায় সারা বছর আমাদের অধিকাংশ রিকশা খালি পড়ে থাকে। রোজায় বাড়তি আয়ের আশায় সব মালিকই রাস্তায় রিকশা ছেড়ে দেন। এবছর আনুমানিক এধরনের বসে থাকা এক লাখ রিকশা রাজধানীতে নামবে।’

এছাড়া প্রতিবছর রমজান ও ঈদকে সামনে রেখে ঢাকার আশে-পাশের জেলা ও উপশহরগুলো থেকেও রাজধানীতে ঢোকে রিকশা। ধারণা করা হচ্ছে এবছরও রূপগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, কেরানীগঞ্জ, সাভার, আশুলিয়া, টঙ্গী, গাজীপুর ও অন্যান্য এলাকা থেকে এক লাখ রিকশা ঢাকায় ঢুকবে।

ফলে স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় এ বছরের আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে ঢাকায় দুই লাখ রিকশা বেশি চলবে।

ঢাকার বাইরের রিকশার ঢাকায় প্রবেশ বন্ধ করতে পারলে যানজট সমস্যা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব বলে মনে করেন রিকশাা মালিক সমিতির সভাপতি আলী আহম্মদ।

তারপরও প্রতিদিন রাজধানিতে বাড়ছে রিকশার সংখ্যা ।

রাজধানীর গ্যারেজে গ্যারেজে ঘুরে দেখা গেছে নতুন রিকশা বানিয়ে কিংবা পুরোনো রিকশা মেরামত করে রমজান ও ঈদের বাজার ধরার চূড়ান্ত প্রস্তুতি চলছে।

আর এই রিকশা চালিয়ে বাড়তি রোজগারের আশায় উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা, নদীভাঙ্গন কবলিত এলাকা, দেিণর সিডর ও আইলা কবলিত এলাকার লোকজন জড়ো হতে শুরু করেছে রাজধানীতে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘ঢাকা শহরের মোট রিকশার সংখ্যা আনুমানিক পাঁচ লাখ। এই বিরাট সংখ্যক অযান্ত্রিক যানবহনের জন্য কোনো সুনির্দিষ্ট আইন নেই। বর্তমানে আইন তৈরির প্রক্রিয়া চলছে। তারপরও রোজায় সাধারণ মানুষের যাতে সমস্যা কম হয় সে বিষয়ে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হবে।’

বাংলাদেশ সময়: ১২৩০ ঘণ্টা, আগষ্ট ১০, ২০১০।

শিক্ষককে মারধর, ভালুকা উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা
বগুড়ায় দুদকের মামলায় পৌর মেয়রসহ পাঁচজন কারাগারে
নগরবাসী পরিবর্তন চায়: হাজী মিলন
রাজধানীতে বাসের ধাক্কায় বৃদ্ধার মৃত্যু
ইসলামিক ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু করল এনআরবিসি ব্যাংক


বুধবার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করবেন তাবিথ
মৌসুমের বাইরে লবণ চাষিদের বিকল্প পেশার ব্যবস্থা করা হবে
পঞ্চগড়ে তাপমাত্রা ৯.২ ডিগ্রি, ঠাণ্ডায় কাহিল জনজীবন
বাড়িওয়ালার বিরুদ্ধে চবি ছাত্রীকে মারধরের অভিযোগ
পরীবাগে দুই সাংবাদিককে মারধর, হুমকি পুলিশের