এক সপ্তাহের মধ্যে শ্রম আইন সংশোধন কমিটি হচ্ছে

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

শ্রমিকদের কল্যাণের কথা চিন্তা করে ২০০৬ সালের শ্রম আইন সংশোধন করতে এক সপ্তাহের মধ্যে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করা হবে। শ্রম ও কর্মসংস্থান এবং প্রবাসী ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন সোমবার এক গোলটেবিল বৈঠকে এ কথা জানান।

ঢাকা: শ্রমিকদের কল্যাণের কথা চিন্তা করে ২০০৬ সালের শ্রম আইন সংশোধন করতে এক সপ্তাহের মধ্যে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করা হবে। শ্রম ও কর্মসংস্থান এবং প্রবাসী ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন সোমবার এক গোলটেবিল বৈঠকে এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত করা, শিল্প কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন চালু ও মালিক-শ্রমিক সম্পর্ককে সামনে রেখে নতুনভাবে শ্রম আইনকে ঢেলে সাজানো হবে।’

রাজধানীর একটি হোটেলে ‘গার্মেন্টস খাতের সহিংসতা কমিয়ে আনার কৌশল’ শীর্ষক বাংলাদেশ সামাজিক সঙ্গতির ৩য় পর্বের গোলটেবিল বৈঠকে মন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

সাংবাদিক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুলের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন  অ্যাডভোকেট লুৎফুল হাই।

নির্ধারিত বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেন, অর্থনীতিবিদ ড. খলিকুজ্জমান আহমদ, শ্রমিকনেতা রায় রমেশ, ইউরোপিয়ন ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত স্টিফেন ফ্রয়েন, ইউরোপ আমেরিকার বায়ার, বিজিএমইএ, বিকেএমইএ প্রতিনিধি, এনজিও প্রতিনিধিসহ দেশ বিদেশের বিশেষজ্ঞরা।

গার্মেন্টস কারখানায় চলমান অস্থির পরিস্থিতি কমিয়ে আনার কৌশল কী হবে এ নিয়ে বলতে গিয়ে মন্ত্রী এর সঙ্গে সম্পৃক্ত কিছু কারণ নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, এনজিওগুলো নিজেদের কাজ ফেলে ট্রেড ইউনিয়নের কাজ করা শুরু করেছে। আবার অনেকেই আছেন যারা শ্রমিকদের ব্যাপারে মানবাধিকার লঙ্গনের ধোয়া তুললেও রাস্তায় ভাঙচুর ও নৈরাজ্য সৃষ্টিতে উস্কানি দেন।

শ্রমিকদের সঙ্গে মালিকদের অসৈজন্যমূলক আচরণ, কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন না থাকা, গার্মেন্টস শিল্পে অস্থির পরিস্থিতি সৃষ্টিকারী বাহিরের শক্তিকে চিহ্নিত করতে না শ্রমিক অসন্তোষের কারণ বলে মনে করেন মন্ত্রী। এ ক্ষেত্রে তিনি ২০০৬ সালের আইন যুগোপযোগী করার ওপর জোর দেন।

শ্রমিক মালিক উভয় পক্ষের সমস্যা সম্পর্কে সরকার সম্পূর্ণভাবে অবহিত আছে বলে মত দিয়ে সরকারিভাবে শ্রমিকদের জন্য ডরমিটরি ও হাসপাতাল নির্মণে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে  বলে জানান তিনি। এছাড়াও শিল্প-কারখানায় ডরমিটরি ও হাসপাতাল নির্মাণে ১ শতাংশ সুদে ঋণ দেওয়ার ব্যবস্থা হবে বলে তিনি আশ্বাস দেন।

তবে গার্মেন্টস কারখানায় চলমান অস্থির পরিস্থিতি কমিয়ে আনার জন্য বায়ার, যোগানদাতা, শ্রমিক, মালিক, সরকার, শ্রমিক সংগঠনসহ সকলকে অংশিদারিমূলক আচরণ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বলে তিনি মত দেন।

গার্মেন্টস কারখানায় চলমান অস্থির পরিস্থিতি কমিয়ে আনতে অর্থনীতিবিদ ড. খলিকুজ্জমান শিল্প কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন চালু করার ওপর জোর দেন। তিনি বলেন, মালিকদের স্বার্থ নিয়ে কথা বলার জন্য নির্বাচিত কমিটি থাকলেও শ্রমিকদের জন্য নির্বাচিত কেউ নেই। তিনি শ্রমিকদের স্বার্থ রক্ষায় সহিংসতার পথ পরিহার করে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করার প্রতি জোর দেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ঘন্টা, জুলাই ০৯, ২০১০

রেলের বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তাকে বদলি
পারাবত এক্সপ্রেস ট্রেনের পাওয়ারকারে আগুন
ঢাকা-সিলেট ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক
৯ ঘণ্টা পর কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু
ত্রিপুরা-আসামে এখনই সিএএ চালু না করার নির্দেশ আদালতের


শেষ রক্ষা হলো না অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের
কমছে সবজির দাম
স্বস্তিতে সবজি, চড়া মাছ-মসলা-চালের বাজার
শীতেও মিলছে ইলিশ, ফিরেছে ২০ বছর আগের হারানো মৌসুম
ছোটপর্দায় আজকের খেলা