‘মুক্তিযুদ্ধের সিনেমায় নারীর ভূমিকাও তুলে আনা উচিৎ’

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সিনেমায় শুধু নির্যাতিতা নারীর চিত্র নয়, মুক্তিযুদ্ধে নারীর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভূমিকাও তুলে আনা উচিৎ।

ঢাকা: মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সিনেমায় শুধু নির্যাতিতা নারীর চিত্র নয়, মুক্তিযুদ্ধে নারীর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভূমিকাও তুলে আনা উচিৎ।

সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লেকচার থিয়েটারে বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ ও মুক্তবুদ্ধি চর্চা কেন্দ্র আয়োজিত ‘মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্রে নারী-নির্মাণ’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তারা এ কথা বলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. কাবেরী গায়েন সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

ড. গায়েন বলেন, ‘একাত্তরের অব্যবহিত পরে নির্মিত মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্রে মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদান যথাযথভাবে ফুটে ওঠেনি, এসব চলচ্চিত্রে নারীকে কেবল নির্যাতিতা কিংবা ধর্ষিতা হিসেবে চিত্রিত করা হয়েছে। অনেক নির্মাতা মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচ্চিত্রে নারীকে বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার এবং নারীকে ধর্ষিতা দেখিয়ে দর্শক টানার চেষ্টা করেছেন। তবে আশির দশক থেকে মোর্শেদুল ইসলাম, তানভীর মোকাম্মেল ও নাসিরউদ্দীন ইউসুফের মতো কয়েকজন নির্মাতা নারী চরিত্রকে যথাযথভাবে উপস্থাপন করেছেন।’

বিশিষ্ট চলচ্চিত্রকার মোর্শেদুল ইসলাম বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে বিপুল সংখ্যক নারী নির্যাতিত ও ধর্ষিত হয়েছিলেন, এ কারণেই মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্রে নারী চরিত্রকে ধর্ষিতা দেখানো হয়েছে। তিনি ড. গায়েন উপস্থাপিত প্রবন্ধের প্রশংসা করে বলেন, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্রকে আরো সুন্দর ও সমৃদ্ধ করতে এ ধরণের গবেষণা সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে।’

বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ-এর মহাপরিচালক বেগম কামরুন নাহার-এর সভাপতিত্বে সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক সোনিয়া নিশাত আমিন।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪২ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০১১

বেনাপোলে প্রায় আড়াই মাস আটকা ১৯ ভারতীয় ট্রাকচালক
মোরা ত্রাণ চাই না, বেড়ি চাই
রবীন্দ্র সরোবর যেন সবুজের গালিচা
ফলন ভালো হলেও বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় পাহাড়ের কৃষক
করোনায় মারা গেলেন প্রথম কোনো ফুটবলার


শ্বাসকষ্ট নিয়ে চবি শিক্ষকের মৃত্যু
প্রথম ইউরোপীয় দেশ হিসেবে ‘করোনামুক্ত’ মন্টেনিগ্রো
উল্লাপাড়ায় ঘুড়ি কেনাবেচা নিয়ে সংঘর্ষে নিহত এক
ইডিইউতে হারমনি অব আর্টস আজ ও কাল
বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস রোববার