পিলখানা হত্যাযজ্ঞ: শুনানি ১৩ জুন পর্যন্ত মুলতবি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

পিলখানায় সাবেক বিডিআর সদরদপ্তরে সংঘটিত হত্যাকাণ্ডের চার্জ গঠন বিষয়ে শুনানি আগামী ১৩ জুন পর্যন্ত মুলতবি করা হয়েছে।

ঢাকা: পিলখানায় সাবেক বিডিআর সদরদপ্তরে সংঘটিত হত্যাকাণ্ডের চার্জ গঠন বিষয়ে শুনানি আগামী ১৩ জুন পর্যন্ত মুলতবি করা হয়েছে।
 
সোমবার মহানগর দায়রা জজ জহুরুল হক আসামিদের আইনজীবীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ মুলতবি ঘোষণা করেন।
এর আগে সকাল পৌনে দশটায় চার্জ গঠন বিষয়ে শুনানির জন্য পঞ্চম দিনে বিচার কাজ শুরু হয়।

এদিন আরও ৪৬ জন আসামিকে তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ পড়ে শোনানো হয়।

এরপর আসামিদের পক্ষে অভিযোগের বিষয়ে শুনানি করতে বলা হলে তাদের আইনজীবীরা মামলা নকল পাননি জানিয়ে শুনানি মুলতবির আবেদন করেন।

এ নিয়ে প্রায় দু’ঘণ্টার মতো আদালতে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। পরে বেলা সাড়ে বারোটার দিকে তাদের আবেদন বিবেচনা করে আদালত শুনানি মুলতবি ঘোষণা করেন।

এর আগে দিনের শুরুতে রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ কৌঁসুলি মোশাররফ হোসেন কাজল আদালতকে জানান, চার্জশিটভুক্ত আসামি হাবিলদার মতিউর রহমান গত ১৫ মে মারা যান।

তিনি মৃত মতিউর রহমানকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন জানান। সেইসঙ্গে এ সংক্রান্ত মৃত্যুর সনদপত্র আদালতে দাখিল করেন।

এর আগে চার্জশিটভুক্ত ৮০৪ নম্বর আসামি পলাতক সিপাহী মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ পড়ে শোনানোর মধ্য দিয়ে দিনের কাজ শুরু হয়। সেইসঙ্গে বাকি আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ শুনানি চলছে।

ঢাকার বকশীবাজার এলাকায় কেন্দ্রীয় কারাগার ও নবকুমার ইনস্টিটিউশন সংলগ্ন আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী আদালতে এ শুনানি হচ্ছে।

বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মহানগর দায়রা জজ জহুরুল হক।

গত ২৮ মার্চ মামলার এজাহার পাঠের মধ্য দিয়ে চার্র্জ গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়। এ পর্যন্ত মোট ৮৪৮ জন আসামিকে তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ পড়ে শোনানো হয়েছে।

১২ এপ্রিল ডিএডি তৌহিদসহ ৭৯ আসামিকে, ২৬ এপ্রিল ২৬০ আসামিকে ও ৯ মে ৪৬৩ জন আসামিকে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পড়ে শোনানো হয়।

হত্যা মামলায় ৮৫০ জন অভিযুক্ত করে চার্জশিট দেওয়া হলেও ৮৫০ আসামির মধ্যে কারাগারে আটক আছেন ৮২৭ জন। বাকি ২৩ আসামির মধ্যে ২ জন মারা গেছেন এবং বাকিরা পলাতক। মামলাটির তদন্তের সময়ই মারা যান বিডিআরের উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) রহিম ও হাবিলদার শফিকুল ইসলাম।
পিলখানা হত্যাযজ্ঞ মামলার অন্যতম সরকারি কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট শাহআলম তালুকদার বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, হত্যা মামলার আসামিদের বিরুদ্ধে আজ অভিযোগ গঠনের বিষয়ে শুনানি শেষ হবে। তবে আসামিপক্ষের শুনানির জন্য অভিযোগ গঠন প্রক্রিয়া শেষ হতে আরও দু’এক দিন লাগতে পারে।

গত বছরের ১২ জুলাই হত্যা মামলায় ও ২৭ জুলাই বিস্ফোরক আইনে দায়ের করা মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার আব্দুল কাহার আকন্দ।

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালের ২৫-২৬ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর পিলখানায় বিজিবি সদর দপ্তরে সাবেক বিডিআর জওয়ানরা ৫৭ জন সেনা কর্মকর্তাসহ ৭৪ জনকে হত্যা করে।

এই ঘটনায় লালবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পুলিশের পরিদর্শক নবজ্যোতি খীসা প্রথমে লালবাগ থানায় এবং পরে নিউমার্কেট থানায় মামলা দায়ের করেন।

বাংলাদেশ সময় : ১২৪৭ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০১১

কমেছে মাছ-মুরগি-সবজির দাম
সোশ্যাল মিডিয়ার বিরুদ্ধে নির্বাহী আদেশে ট্রাম্পের স্বাক্ষর
চিকিৎসাধীন চট্টগ্রামের শীর্ষ তিন করোনাযোদ্ধা
শনির দশা কাটছে না রাজশাহীর আমের
লিবিয়ায় বেঁচে যাওয়া বাংলাদেশি যে লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন


স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা
পত্নীতলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২ ভাইয়ের মৃত্যু
দৌলতদিয়া ঘাটে বাড়ছে যাত্রীদের চাপ
ফতুল্লায় করোনা আক্রান্ত হয়ে আ’লীগ নেতার মৃত্যু
ঠাকুরগাঁওয়ে প্রথম করোনার উপসর্গ নিয়ে এক যুবকের মৃত্যু