php glass

এতো অভিযোগ, তবুও তিনি বহাল তবিয়তে!

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

তার বিরুদ্ধে অভিযোগ বিস্তর। তার শাস্তির দাবিতে রাজধানীসহ জেলায় জেলায় একের পর এক মানববন্ধন হচ্ছে। আর সেসবে অংশ নিচ্ছে শ’য়ে শ’য়ে মানুষ। অভিযোগগুলোর সবই গুরুতর।

ঢাকা: তার বিরুদ্ধে অভিযোগ বিস্তর। তার শাস্তির দাবিতে রাজধানীসহ জেলায় জেলায় একের পর এক মানববন্ধন হচ্ছে। আর সেসবে অংশ নিচ্ছে শ’য়ে শ’য়ে মানুষ। অভিযোগগুলোর সবই গুরুতর।

তার বিরুদ্ধে যতো অভিযোগ:

  • ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ষড়যন্ত্রের সঙ্গে তিনি জড়িত। এই হামলার নেপথ্যে থেকে তিনি তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগ নেতাদের নির্মূল করতে চেয়েছিলেন।
  • তিনি জঙ্গিদের সহায়তা করছেন। তাদের সঙ্গে নিজ কার্যালয়ে বৈঠক পর্যন্ত করেছেন।
  • এক-এগারোর মাধ্যমে তিনি দেশে সামরিক শাসন প্রতিষ্ঠায় নেপথ্যে ষড়যন্ত্র করেছেন।
  • তার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ রয়েছে বলে আরেকটি জাতীয় দৈনিকে এসংক্রান্ত খবর বেরিয়েছে।
  • তিনি মাইনাস টু ফর্মুলার জনক। দেশের দুই প্রধান নেত্রীকে রাজনীতি থেকে বিতাড়িত করতে তৎপর ছিলেন। এ নিয়ে নিজের পত্রিকায় কলমও ধরেছিলেন। লেখাটি তার স্বনামে প্রথম পৃষ্ঠায় ছাপাও হয়েছিল।
  • তিনি এখন র‌্যাব ধ্বংসের চক্রান্তে লিপ্ত।


এতো এতো অভিযোগ একজনমাত্র ব্যক্তির বিরুদ্ধে। তিনি বাংলাদেশের একটি জাতীয় দৈনিকের সম্পাদক। গত মঙ্গলবারও তার বিচার দাবি করে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

সচেতন নাগরিক সমাজ ও জাতীয় সংবাদপত্র পাঠক ফোরামের ব্যানারে বিভিন্ন সময়ে হাজারো মানুষ তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, এমনকি ফাঁসিও দাবি করেছেন। রাজধানীর বাইরে জেলায় জেলায় তার বিচার চেয়ে এ পর্যন্ত শত শত মানববন্ধন হয়েছে। তাতে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ স্বত:স্ফূর্তভাবে রাস্তায় দাঁড়িয়েছে।

ঠিক এমনই এক সময়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অবঃ) তারেক আহমেদ সিদ্দিকী বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে খুব খোলাখুলিই বলেছেন, দেশের একটি জাতীয় দৈনিকের সম্পাদক জঙ্গিদের মদদ দিচ্ছেন। জঙ্গিদের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন। আর এই অভিযোগের পক্ষে প্রমাণও আছে বলে তিনি দাবি করেছেন।

উপদেষ্টা তার বক্তব্যে গণমাধ্যমের কাছে ওই সম্পাদকের নাম বলেননি। তবে তার বক্তব্য থেকে খুবই পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে, ওই সম্পাদক এবং যার বিরুদ্ধে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে তিনি একই ব্যক্তি।

আরও মজার বিষয় হচ্ছে, তারেক আহমেদ সিদ্দিকী তার বক্তব্যে বলেছেন, ‘আমাদের হাতে এ ব্যাপারে যথেষ্ট তথ্য-প্রমাণ রয়েছে, চাইলেই আমরা ওই সম্পাদককে গ্রেপ্তার করতে পারি।’

এখন দেখার বিষয় তরি বিরুদ্ধে এতো এতো অভিযোগ আর অভিযোগের পক্ষে তথ্য-প্রমাণ থাকার পরও  সর্বদা আলোচনা কেন্দ্রে থাকা ওই প্রভাবশালী সম্পাদক বরাবরের মতো বহাল তবিয়তে থেকে যান কিনা!

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫০ ঘণ্টা, মে ১৯, ২০১১

করফাঁকির অভিযোগে ৫৫০০ কেজি তামাক জব্দ
শিপিং রিপোর্টার্স ফোরামের নতুন কমিটি
কেরানীগঞ্জে উদ্ধার কদমতলীর অপহৃত নারী, আটক ১
বেনাপোল কাস্টমসে নিয়োগ পরীক্ষার্থীদের ভোগান্তি 
জ্যাঠা শ্বশুরের বিরুদ্ধে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ


শ্রীমঙ্গলে ক্রেতা সেজে দুটি ডাহুক উদ্ধার
গোলাপি বলের প্রথম দিনে ‘ব্যর্থ’ বাংলাদেশ
৪১ বছরে ইবি, শিক্ষার্থী ৩০০ থেকে ১৪ হাজার 
কৃষক-শ্রমিকের মুক্তি ছিল ভাসানীর রাজনীতির মূলমন্ত্র
ইবতেদায়ি পরীক্ষার্থীকে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ