‘প্রতিমন্ত্রী নানকের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ’

বসতবাড়ি উচ্ছেদ করে রায়েরবাজারে কবরস্থান নির্মাণ না করার দাবি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

রাজধানীর রায়েরবাজার ও বসিলায় ব্যক্তি মালিকানাধীন ভূমি অধিগ্রহণ করে কবরস্থান নির্মাণের প্রকল্প প্রস্তাব বাতিলের দাবি জানিয়েছে রায়েরবাজার ও বসিলা ভূমি অধিগ্রহণ প্রতিরোধ কমিটি।

ঢাকা: রাজধানীর রায়েরবাজার ও বসিলায় ব্যক্তি মালিকানাধীন ভূমি অধিগ্রহণ করে কবরস্থান নির্মাণের প্রকল্প প্রস্তাব বাতিলের দাবি জানিয়েছে রায়েরবাজার ও বসিলা ভূমি অধিগ্রহণ প্রতিরোধ কমিটি।

এ ব্যাপারে তারা মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। একইসঙ্গে পার্শ্ববর্তী খাস জমিতে কবরস্থান করারও সুপারিশ করেছে কমিটি।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি (ডিআরইউ) মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কমিটির পক্ষ থেকে এ দাবি ও সুপারিশ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়, স্থানীয় সাংসদ ও স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক এলাকাবাসীর সঙ্গে কোনোরকম আলোচনা ছাড়াই বসতবাড়ি উচ্ছেদ করে করবস্থান নির্মাণ করতে যাচ্ছেন। ওই এলাকায় কবরস্থান করা হলে পাঁচ থেকে ছয় হাজার নিম্ম আয়ের পরিবার বাস্তুহারা হয়ে পড়বে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান আফু।

এ সময় সংগঠনের সভাপতি হাজী মো. ইউসুফ বলেন, ‘আমরা যাতে সংবাদ সম্মেলন না করি, সেজন্য নানক ও তার অনুসারীরা প্রশাসনকে দিয়ে আমাদের হুমকি দিয়েছেন। তারা বলছেন, মন্ত্রীর সিদ্ধান্ত আমাদের মেনে নিতে হবে।’

মোহাম্মদপুর থানার ওসির বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, ‘তিনি গত রাত থেকে বারবার আমাদের টেলিফোনে সংবাদ সম্মেলন বন্ধ করার কথা বলেছেন। সংবাদ সম্মেলন করা হলে আমাদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হবে বলেও তিনি হুমকি দেন।’

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, ২৯০ বিঘা ব্যক্তি মালিকানা জমিতে কেন কবরস্থান করার উদ্যোগ নেওয়া হলো। পাশেই শত শত একর খাস জমি পরে আছে। সেখানে করা হলে নিরীহ মানুষকে মাথা গোঁজার জায়গা হারাতে হবে না। আবার সরকারের বিপুল পরিমাণ অর্থও সাশ্রয় হবে।

এসময় আরও বলা হয়, আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু স্থানীয় সাংসদ নানক আমাদের বলেন তার কাছেই স্মারকলিপি দিতে। কিন্তু অদ্যবধি সে এ ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। বরং প্রশাসন দিয়ে আমাদের হুমকি দিচ্ছেন।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আবেদন জানিয়ে বলা হয়, রায়ের বাজারে যেন আড়িয়াল বিলের পুনরাবৃত্তি না ঘটে। আমরা জীবন দিবো, তবু জমি দিবো না।

সংবাদ সম্মেলনে প্রায় শতাধিক জমির মালিক উপস্থিত ছিলেন। তারা অনেকেই হতাশা প্রকাশ করে বলেন, ঢাকায় যেখানে মানুষের মাথা গোঁজার ঠাই নেই। সেখানে আমাদের নূন্যতম সম্বলটুকু কেড়ে নিলে আমাদের আর কিছুই থাকবেনা।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৫ঘণ্টা, মে ০৩, ২০১১

Nagad
ইউআইটিএস ও গুলশান ক্লিনিকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক
সিরাজগঞ্জে বেড়েই চলেছে যমুনার পানি, প্লাবিত নতুন এলাকা
বসুন্ধরা গ্রুপের সিনিয়র ডিএমডি বেলায়েত হোসেন আর নেই
পাটুরিয়া ঘাটে পারের অপেক্ষায় সাড়ে তিন শতাধিক যানবাহন
সূচকের মিশ্র প্রবণতায় পুঁজিবাজারে লেনদেন চলছে


খুমেক হাসপাতালে বিক্রি হচ্ছে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট!
প্রভাতী ইন্স্যুরেন্সের লভ্যাংশ ঘোষণা
নিউইয়র্কে পাঠাওয়ের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম খুন
ছোটপর্দায় আজকের খেলা
কথায় কথায় অনলাইনে খাবার অর্ডার করেন, নিরাপদ তো?