php glass

মহাকাশ বিজয়ের ৫০ বছর

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

১৯৬১ সালের ১২ এপ্রিল, প্রথম মানুষ হিসেবে মহাকাশে পৌঁছলেন নভোচারী ইউরি গ্যাগারিন। আর সেদিনই রচিত হলো মহাকাশে মানুষের বিজয় গাঁথা। রাশিয়ার নাগরিক, মহাকাশের কলম্বাস নামে খ্যাত এই অমর মানুষের মহাকাশ জয়ের অমর কীর্তি আজও মহিমান্বিত করে তোলে মানুষের শ্রেষ্ঠত্বকে।

ঢাকা: ১৯৬১ সালের ১২ এপ্রিল, প্রথম মানুষ হিসেবে মহাকাশে পৌঁছলেন নভোচারী ইউরি গ্যাগারিন। আর সেদিনই রচিত হলো মহাকাশে মানুষের বিজয় গাঁথা। রাশিয়ার নাগরিক, মহাকাশের কলম্বাস নামে খ্যাত এই অমর মানুষের মহাকাশ জয়ের অমর কীর্তি আজও মহিমান্বিত করে তোলে মানুষের শ্রেষ্ঠত্বকে।

ইউরি গ্যাগারিনের সেই মহাকাশ জয়ের স্মৃতি স্মরণ করে গর্বিত হয় পৃথিবীর মানুষ। আজ সেই স্মৃতির বয়স অর্ধশত পূর্ণ হওয়ায় তা শুধু গর্বের বিষয় না থেকে পরিনত হয়ে উঠেছে উৎসবে।

রাশিয়া থেকে প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার কিলোমিটার দূরের বাংলাদেশেও বিভিন্ন আয়োজনের মধ্যে দিয়ে উদযাপিত হচ্ছে ইউরি গ্যাগারিনের মহাকাশ বিজয়ের পঞ্চাশ বছর পূর্তি।

ইউরি গ্যাগারিনের মহাকাশ বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে রোববার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করে রশিয়ান কালচারাল সেন্টার।

এ উপলক্ষে বাংলাদেশ-রাশিয়া ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটি এবং বাংলাদেশে অ্যাস্ট্রোনোমিক্যাল সোসাইটির সহযোগিতায় রাশিয়ান কালচারাল সেন্টার তাদের কার্যালয়ে আয়োজন করে এক আলোকচিত্র প্রদর্শনী ও ফিল্ম শো।

এক্সিবিশন হলে ইউরি গ্যাগারিন ও তার সেই দুঃসাহসিক অভিযানের বিভিন্ন মুহূর্তের আলোকচিত্র প্রদর্শনের পাশাপাশি মিলনায়তনে প্রদর্শন করা হয় রাশিয়ান ফিল্ম ‘বেলকা অ্যান্ড স্ট্রেলকা : স্টার ডগ’।

আলোকচিত্র প্রদর্শনী ও ফিল্ম শো উদ্বোধনের সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান স্বাধীনতা যুদ্ধসহ বাংলাদেশের ব্যাবসাবাণিজ্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবং সার্বিক অবকাঠামোগত উন্নয়নের ক্ষেত্রে রাশিয়ার অবদান তুলে ধরেন।’

ইউরি গ্যাগারিনকে বিশ্ব বীর হিসেবে আখ্যা দিয়ে তার এ কীর্তি বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মকেও মহাকাশ জয় করার প্রেরণা যুগিয়ে আসছে বলে দাবি করেন তিনি।  

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে রাশিয়ান রাষ্ট্রদূত গেনেডি পি. ট্রটসেনকো ভবিষ্যতে বাংলাদেশের সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্ক উন্নয়ন এবং তথ্য-প্রযুক্তি ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে পারস্পরিক ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়ানোর আশ্বাস দেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ-রাশিয়া ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটির সভাপতি সৈয়দ শামসুল হক বলেন, ‘এ ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মকে মহাকাশ সম্পর্কে জানতে আরও আগ্রহী করবে।’

এছাড়া বাংলাদেশ-রাশিয়ার সম্পর্কের আরও উন্নয়ন ঘটাবে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।

এ সময় আলোকচিত্র দেখতে আসা ধানমণ্ডির বাসিন্দা লুবনা চৌধুরী বাংলানিউজকে জানান, ‘ইউরি গ্যাগারিন ও মহাকাশের এসব আলোকচিত্র  মহাকাশ সর্ম্পকে আমাদের নতুন করে আরও বেশি তথ্য জানার সুযোগ করে দিচ্ছে। নতুন এমন প্রদর্শনী দেশের প্রত্যেকটি জেলায় আয়োজন করা উচিত।

মহাকাশ বিজয়ের পঞ্চাশ বছর পূর্তি উপলক্ষে রাশিয়ান কালচারাল সেন্টার দেশব্যাপি আয়োজন করে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও রচনা অলিম্পিয়াড।

অনুষ্ঠান শেষে ২০১১ সালের পুরো এপ্রিল ও জুন মাসব্যাপী একেরপর এক আয়োজনের মধ্যে দিয়ে এ পঞ্চাশ বছরপূর্তি পালিত হবে বলে জানান বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রেনোমিক্যাল সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক মাসহুরুল আমিন।

বাংলাদেশ সময় : ০৭০০, এপ্রিল ১১, ২০১১

ksrm
আখাউড়ায় রেলস্টেশনের পাশ থেকে এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার
হাইকোর্টে এনামুল বাছিরের জামিন আবেদন
প্রকৌশল গবেষণা কাউন্সিল আইন অনুমোদন মন্ত্রিসভায়
ব্যক্তিগত অস্ত্র অন্যের নিরাপত্তায় ব্যবহার নিষিদ্ধ
স্মিথের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছেন কোহলি, এগিয়েছেন সাকিব


তিনদিনের সফরে কাতার যাচ্ছেন সেনাপ্রধান
বগুড়ায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
দিল মনোয়ারা মনুর মৃত্যুতে আর্টিকেল নাইনটিনের শোক
নাম করা হাউসের শর্মা এবার ঘরেই হবে 
পেঁয়াজের দামে লাগাম টানতে ফের অভিযান: ডিসি