php glass

গ্রামীণব্যাংকে থেকে যাওয়ার বিকল্প পথ খুঁজছেন ইউনূস

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

গ্রামীণব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পদ থেকে অনেক আগেই চলে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন বলে  জানিয়েছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস। তবে এতকিছুর পরও গ্রামীণব্যাংকে থেকে যাওয়ার বিকল্প পথ খুঁজছেন তিনি।

ঢাকা : গ্রামীণব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পদ থেকে অনেক আগেই চলে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন বলে  জানিয়েছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস। তবে এতকিছুর পরও গ্রামীণব্যাংকে থেকে যাওয়ার বিকল্প পথ খুঁজছেন তিনি।

বুধবার গ্রামীণব্যাংক নিয়ে গঠিত ‘রিভিউ কমিটির বৈঠকে এসব কথা বলেন ড. ইউনূস।

বৈঠকের পর কমিটির চেয়ারম্যান ড. মনোয়ার আহমেদ খান সাংবাদিদের কাছে ড. ইউনূসের বক্তব্যের কথা জানান।

বৈঠকে ড. ইউনূসের সঙ্গে ছিলেন গ্রামীণব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক নূরজাহান বেগম।

আলোচনায় ইউনূস জানান, অনেক আগেই তিনি অর্থমন্ত্রীর কাছে গ্রামীণব্যাংক থেকে চলে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন। কর্মকর্তারা যেতে দেননি। এখন বিকল্প হিসেবে কীভাবে থাকা যায় সেটা নিয়ে ভাবছি।’

ড. মনোয়ার আহমেদ খান সাংবাদিকদের বলেন, ‘ড. ইউনূস চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকার সময় ১৯৮৩ সাল থেকে কীভাবে গ্রামীণব্যাংকের সঙ্গে সম্পৃক্ত হন সে বিষয় এবং ব্যাংকের ভবিষ্যৎ কী হবে তা নিয়ে বৈঠকে কথা বলেন।’
 
রিভিউ কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, ‘সরকার কমিটির যে কার্য পরিধি দিয়েছে সেসব নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আগামী ১০ এপ্রিল কমিটি রিপোর্ট জমা দিতে পারে।’

রিপোর্ট সম্পর্কে কোনো কথা বলতে রাজি হননি তিনি।
 
উল্লেখ্য, গ্রামীণব্যাংক সম্পর্কে বিস্তারিত জানেন এমন ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলা শুরু করেছে কমিটি। তাদের কাছ থেকে ই-মেইলে তথ্যও নেওয়া হচ্ছে। বুধবার ইউনূস ছাড়াও নূরজাহান বেগমের সঙ্গে কথা বলে কমিটি। এর আগে অর্থনীতিবিদ ড. রেহমান সোবহানসহ দেশের প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ ও ব্যাংকারদের সঙ্গে কথা বলে রিপোর্ট তৈরি করা হচ্ছে।  

বাংলাদেশ সময় : ১৭০০ ঘণ্টা, মার্চ ৩০, ২০১১

ksrm
মৃত ব্যক্তির বয়স্ক ভাতা উত্তোলন করছেন নারী ইউপি সদস্য!
মুষ্টিমেয় শিক্ষক আন্দোলনের কলকাঠি নাড়াচ্ছেন
নকলায় বাসচাপায় অটোরিকশার ৩ যাত্রী নিহত
জাতীয় নারী দাবায় শীর্ষস্থানে রানী হামিদ
আন্দোলনের মুখে ইবি প্রক্টরকে অব্যাহতি


ফরিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় এনজিও কর্মকর্তা নিহত
বিজয়নগর সায়েম টাওয়ার থেকে আটক ১৭
চট্টগ্রাম বিভাগীয় ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন ছাগলনাইয়া পাইলট
ইয়েমেনের কাছে হেরে গেলো বাংলাদেশের কিশোররা
বৃক্ষরোপণে জীবনমান উন্নত হবে: এমএ মালেক