তারেক-মামুনের অর্থ পাচার মামলা

ফের পেছালো অভিযোগপত্রের গ্রহণযোগ্যতা শুনানি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার বন্ধু ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের বিরুদ্ধে বিদেশে অর্থ পাচার সংক্রান্ত মামলার অভিযোগপত্রের গ্রহণযোগ্যতার শুনানি ফের পিছিয়েছে।

ঢাকা: বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার বন্ধু ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের বিরুদ্ধে বিদেশে অর্থ পাচার সংক্রান্ত মামলার অভিযোগপত্রের গ্রহণযোগ্যতার শুনানি ফের পিছিয়েছে।

মঙ্গলবার ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ মো. জহুরুল হক তারেকের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়ার আবেদনক্রমে মামলার গ্রহণযোগ্যতা শুনানির জন্য আগামী ৩ এপ্রিল দিন ধার্য করেন।

মামলার শুনানিকালে তারেকের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া আদালতকে বলেন, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ মামলাটি ২০০২ সালের মানি লন্ডারিং আইনে চলতে পারে, ২০০৯ সালের মানিলন্ডারিং আইনে নয়- মর্মে আদেশ দিয়েছেন।
আদেশের কপি পাওয়া যায়নি জানিয়ে তিনি আপিল বিভাগের আপিল আদেশের কপি না পাওয়া পর্যন্ত মামলা মুলতবির আবেদন করেন।

দুদকের বিশেষ সরকারী কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট মোশাররফ হোসেন কাজল মামলা মুলতবির বিষয়ে আপত্তি জানান।  সেইসঙ্গে তিনি মামলাটি আমলে নেওয়ার প্রার্থনা করেন।

বিচারক শুনানি শেষে আপিল বিভাগের আদেশের কপি পাওয়া সাপেক্ষে আগামী ৩ এপ্রিল শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন।
এ নিয়ে সপ্তম বারের মতো মামলার শুনানি মুলতবি করা হলো।

গত বছরের ৬ জুলাই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ ইব্রাহিম ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে এ অভিযোগপত্র দাখিল করেছিলেন।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, টঙ্গীর বিসিক শিল্প এলাকায় একটি ৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের কার্যক্রম শুরু হলে গিয়াস উদ্দিন আল মামুন তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও ব্যবসায়িক পার্টনার তারেক রহমানের মাধ্যমে কার্যাদেশ পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে নির্মাণ কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাদিজা ইসলামের কাছ থেকে ১ জানুয়ারি ২০০৩ হতে ৩১ মে ২০০৭ পর্যন্ত সময়ে ২০ কোটি ৪১ লাখ ২৫ হাজার ৮৪৩ টাকা  নিয়ে তা বিদেশে পাচার করে।

২০০৯ সালের ২৬ অক্টোবর দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ ইব্রাহিম বাদী হয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

আসামি পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, জয়নুল আবেদীন মেজবাহ, তাহেরুল ইসলাম তৌহিদসহ জাকির হোসেনসহ কয়েকজন আইনজীবী।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন মহানগর সরকারি কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট আব্দুল্লাহ আবু, মোশাররফ হোসেন কাজল ও শাহআলম তালুকদার।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৪ ঘণ্টা, মার্চ ০১, ২০১১

Nagad
সভাপতি পদে রাহুলকে চান কংগ্রেসের সাংসদরা
নালিতাবাড়ী-ঝিনাইগাতীতে ২৫ গ্রাম প্লাবিত
বিপিও উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগের আহ্বান পলকের
বিনিয়োগ আকর্ষণে নীতিমালা সংস্কারের পরামর্শ
ভুয়া চিকিৎসকসহ ৩ জনকে কারাদণ্ড, হাসপাতাল সিলগালা


পশ্চিমবঙ্গে একদিনে করোনা আক্রান্ত ১,৫৬০ জন
নভোএয়ারে ভ্রমণ করলে ফ্রি কাপল টিকিট
‘টাউট’ শহীদুলের আইন পেশা, আছে মানবাধিকার সংগঠন!
সব বিভাগে ভারী বর্ষণের শঙ্কা, বন্যার অবনতি
অর্ধেক দামে মিলবে কৃষি যন্ত্রপাতি, একনেকে প্রকল্প