php glass

বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাঙচুরের প্রতিবাদে আয়োজিত মানবন্ধন থেকে আটক ৭

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

জাতীয় প্রেসকাবের সামনে রোববার সকালে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুরের প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মঞ্জুরুল আলমসহ ৭ জনকে আটক করেছে শাহবাগ থানা পুলিশ।

ঢাকা: জাতীয় প্রেসকাবের সামনে রোববার সকালে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুরের প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মঞ্জুরুল আলমসহ ৭ জনকে আটক করেছে শাহবাগ থানা পুলিশ।

তবে শাহবাগ থানার ডিউটি অফিসার মো. মাহবুবুর রহমান আটককৃতদের যে তালিকা দিয়েছেন তাতে মঞ্জুরুলের নাম নেই।

তিনি জানান-উসমান, সোহরাব, মাহিন, কাউছার, ফারুক, উজ্জ্বল ও মিজানকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে প্রেসকাবের সামনে মানববন্ধন করার সময় তাদের আটক করা হয়।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল করিম বাংলানিউজকে জানান, আটকৃতদের মধ্যে ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মঞ্জুরুল আলম রাজিবও আছেন।

আটকৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান ওসি রেজাউল করিম।

ছাত্রলীগ নেতারা জানান, গত ৬ ফেব্রুয়ারি বিকেলে মঞ্জুরুল আলম রাজিবের হেমায়েতপুরের বাসায় যান সাভার থানার ওসি মাহবুবুর রহমান। এসময় তিনি রাজিবের বড় ভাই কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমের খোঁজ করেন।

তাকে না পেয়ে ওই বাড়িতে ভাঙচুর চালিয়ে দেওয়ালে টানানো বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুর করেন তারা। এ ঘটনায় পরদিন ৭ ফেব্রুয়ারি ওসির বিরুদ্ধে মামলা করেন রাজিব।

রোববার সকালে ওসি মাহবুবুর রহমানের বিচারের দাবিতে সাভারের সাবেক সাংসদ আশরাফুদ্দিন খান ইমু ও সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি হাছিনা দৌলার নেতৃত্বে মানববন্ধনের চেষ্টা করে ঢাকা জেলা ছাত্রলীগ।

এ সময় শাহবাগ থানা পুলিশ ওই ৭ জনকে আটক করে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৪ ঘণ্টা,ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১১

সৌমনা দাশগুপ্ত'র একগুচ্ছ কবিতা
ধামরাইয়ে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
সরকার আবার আগুন নিয়ে খেলা শুরু করেছে: রিজভী
জনসনের জয়ে ট্রাম্পের নজর বাণিজ্যে!
একাত্তরে চট্টগ্রামজুড়ে গণহত্যা


ইয়োগা অনুশীলনের আগের সতর্কতা
চলে গেলেন অভিনেতা-চিত্রনাট্যকার গোলাপুডি মারুতি রাও
পাটকল শ্রমিকের জানাজা সম্পন্ন, উত্তপ্ত খুলনার শিল্পাঞ্চল
আসামির সেলফিকাণ্ড, ঘটনা তদন্তে ডিবি
৪০ বছরের অভিজ্ঞতায় এত ভয়াবহ বার্ন দেখিনি: সামন্ত লাল