php glass

এমভি জাহান মণি

মালিক পক্ষের ভৎর্সনার মুখে মূর্ছা গেলেন এক নাবিকের মা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

সোমালি জলদস্যুদের হাত থেকে ছেলে কবে মুক্তি পাবে, সে খবর জানতে এসে জাহান মণির মালিক পক্ষের লোকজনের ভৎর্সনার মুখে মূর্ছা গেলেন এক মা। তিনি ওই জাহাজের ইঞ্জিন ক্যাডেট শাহরিয়ার রাব্বীর মা বিলকিস জাহান।

চট্টগ্রাম : সোমালি জলদস্যুদের হাত থেকে ছেলে কবে মুক্তি পাবে, সে খবর জানতে এসে জাহান মণির মালিক পক্ষের লোকজনের ভৎর্সনার মুখে মূর্ছা গেলেন এক মা। তিনি ওই জাহাজের ইঞ্জিন ক্যাডেট শাহরিয়ার রাব্বীর মা বিলকিস জাহান।

তিনি এমভি জাহান মণির মালিক প্রতিষ্ঠানের কার্যালয়ে এসেছিলেন। কিন্তু সেখানকার এক কর্মকর্তার ভৎর্সনায় তিনি ক্ষুব্ধ হয়ে ওই অফিসের মেঝেতেই শুয়ে প্রতিবাদ জানান। ক্ষোভে, অপমানে এক পর্যায়ে তিনি মূর্ছা যান। তার কান্না আর আহাজারিতে ওই কার্যালয়ে এক হৃদয়বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

রোববার দুপুরে জাহাজটির মালিক প্রতিষ্ঠান কবির স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেডের কার্যালয়ে আসেন বিলকিস জাহানসহ জিম্মি সাত নাবিকের স্বজনরা।

বিলকিস জাহান কাঁদতে কাঁদতে বাংলানিউজকে জানান, শুক্রবার রাত ১০টায় ছেলে রাব্বী তার সঙ্গে ফোনে প্রায় ১২ মিনিট কথা বলেন। এ সময় রাব্বী তাকে জানান, খাবার শেষ হয়ে যাওয়ায় তাদের এখন শুধু পাউরুটি আর চিনি খেতে দিচ্ছে জলদস্যুরা। নাবিকদের মধ্যে দু’জনের ডায়রিয়া, একজনের হাই প্রেসার এবং একজনের কিডনির সমস্যা দেখা দিয়েছে। অসুস্থ হলেও তাদের কোনো ধরনের ওষুধ সরবরাহ করা হচ্ছে না। রাতে ঘুমানোর সময় তাদের পা শিকল দিয়ে বেঁধে রাখা হয়।’

ছেলে রাব্বীর বক্তব্য রেকর্ড করেছিলেন বিলকিস জাহান। আর সে রেকর্ডই তিনি মালিককে শোনাতে এসেছিলেন।

তিনি জানান, কবির স্টিলের নির্বাহী পরিচালক মেহেরুল করিম সবার সঙ্গে কথা বলে সান্ত্বনা দেন। কিন্তু জাহাজটির মূল পরিচালনা প্রতিষ্ঠান ব্রেভ রয়েল শিপিং ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা শাহজালাল মজুমদার খাবার সংকটের কথা শুনে বিলকিস জাহানকে বলেন, ‘আমরা কি সোমালিয়া গিয়ে খাবার দিয়ে আসব?’

বিলকিস জাহান এ কথার প্রতিবাদ জানালে উভয়পে বাদানুবাদ শুরু হয়।

ওই কার্যালয়ে যাওয়া জিম্মি ফোর্থ অফিসার কামরুল হাসানের স্ত্রী মিনা পারভীন জানান, বাদানুবাদের এক পর্যায়ে বিলকিস জাহান মেঝেতে শুয়ে কান্না করে এর প্রতিবাদ জানান। এক পর্যায়ে তিনি উত্তেজিত হয়ে মেহেরুল করিমের টেবিলের ওপর থাকা বিভিন্ন মেশিনারিজ ছুঁড়ে ফেলে দেন।  পরে তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। ডায়াবেটিস রোগী হওয়ায় তার সুগারও কমে যায়। জ্ঞান ফেরার পর শাহজালাল মজুমদার তার আচরণের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।

এরপর বিলকিস জাহানের স্বামী এসে তাকে বাসায় নিয়ে যান।

উল্লেখ্য, শাহজালাল মজুমদারের ছোট ভাই ওই জাহাজের ফার্স্ট অফিসার আবু নাসের মো. আবদুল্লাহও বর্তমানে জিম্মি অবস্থায় আছেন।

এ প্রসঙ্গে কবির স্টিলের নির্বাহী পরিচালক মেহেরুল করিম বাংলানিউজকে বলেন, ‘রাব্বীর মা তার ছেলের সঙ্গে কী কথা হয়েছে তা আমাদের জানাতে এসেছিলেন। ছেলের জন্য তার মধ্যে উদ্বেগ, উৎকন্ঠা আছে। তিনি আমাদের কাছে এসে কেঁদেছেন। আমরা সবাইকে ধৈর্য ধরার অনুরোধ করেছি।’

জাহাজটির পরিচালনা প্রতিষ্ঠান ব্রেভ রয়েলের মেরিন সুপারিটেনডেন্ট ক্যাপ্টেন গোলাম মোস্তফা বাংলানিউজকে বলেন, ‘শনিবার রাতে জলদস্যুদের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। কোনো নাবিক অসুস্থ কিংবা খাবারের অভাবে খারাপ অবস্থায় আছে এমন কথা তারা আমাদের বলেননি।’

এর আগে গত ২৩ জানুয়ারি জিম্মি ২৫ নাবিকের পরিবারের লোকজন কবির স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শাহজাহানের সঙ্গে দেখা করে অভিযোগ করেন, জাহাজে বিশুদ্ধ পানি, গোসলের পানি, তেল, খাবার, ওষুধ কিছুই নেই। গোসল করতে না পেরে নাবিকদের শরীরে খোস পাঁচড়া হচ্ছে।

গত ৫ ডিসেম্বর জাহাজটি ছিনতাই করে সোমালি দস্যুরা। জাহাজটিতে ২৫ নাবিক ও এক নাবিকের স্ত্রী জিম্মি অবস্থায় আছেন।

নোঙ্গর করার পর গত ১২ ডিসেম্বর থেকে শুরু হয় জাহাজের মালিকপরে সঙ্গে জলদস্যুদের যোগাযোগ। এর মধ্যে কয়েক দফা যোগাযোগ করে নাবিকদের পরিবারের মাধ্যমে ১০৫ কোটি টাকা মুক্তিপণ দাবি করে জলদস্যুরা। তবে মালিকপরে প থেকে এখনো মুক্তিপণের অংকের বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।

বাংলাদেশ সময় : ১৯৩৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩০, ২০১১

প্রতিবন্ধী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান করতে লাগবে ৭৫ জন শিক্ষার্থী
ঘোলা পানিতে মাছ শিকারিদের সতর্ক করলেন চেয়ারম্যান কালাম
মানিকগঞ্জে তৈরি পোশাকের শো-রুম মালিককে জরিমানা
মিলনের সঙ্গে প্রথমবার জুটি বাঁধলেন তানহা
১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার আসামি একদিনের রিমান্ডে


সিলেট নগরে মিললো ৬ বিষধর সাপ
কমলাপুরে ট্রেনের বগিতে মিললো মাদ্রাসাছাত্রীর মরদেহ
ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যায় নিম্নগতি: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর
কোহলির ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছেন স্মিথ
কুষ্টিয়ায় মাদক মামলায় একজনের যাবজ্জীবন