php glass

সেমিনারে বক্তারা

সমুদ্রসীমা নিয়ে বিরোধ মীমাংসায় ঐকমত্যে পৌঁছানো দরকার

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সমুদ্রসীমা নিয়ে বিরোধ মীমাংসায় দলমত নির্বিশেষে ঐকমত্যে পৌঁছানো দরকার বলে মন্তব্য করেছেন বিশেষজ্ঞরা। এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সব উদ্যোগ নেওয়ার জন্য একজোট হতে হবে। প্রয়োজনে সংসদে গিয়ে বিরোধীদলকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে বলেও তারা অভিমত দেন।

ঢাকা: প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সমুদ্রসীমা নিয়ে বিরোধ মীমাংসায় দলমত নির্বিশেষে ঐকমত্যে পৌঁছানো দরকার বলে মন্তব্য করেছেন বিশেষজ্ঞরা। এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সব উদ্যোগ নেওয়ার জন্য একজোট হতে হবে। প্রয়োজনে সংসদে গিয়ে বিরোধীদলকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে বলেও তারা অভিমত দেন।

রোববার বিকেলে সিরডাপ মিলনায়তনে সেন্টার ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট (সিএফএসডি) আয়োজিত ‘মেরিটাইম বাউন্ডারি: ইস্যুজ অ্যান্ড কনসার্নস ফর বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন।

সেমিনারে সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী বলেন, ‘ আমাদের সমুদ্রসীমায় প্রতিবেশী দেশের আগ্রাসন থেকে দেশের প্রকৃত সমুদ্রসীমা রক্ষার জন্য বিরোধীদলের উচিত সংসদে গিয়ে এ বিষয়ে কথা বলা।’

সেমিনারে সিএফএসডির জেনারেল সেক্রেটারি মাহফুজ উল্লাহ্ পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনে বলেন, ‘আমাদের কাছে স্পষ্ট নয়, বঙ্গোপসাগরে কী পরিমান তেল-গ্যাস আছে। কিস্তু গোদাবেরিতে বিপুল পরিমান গ্যাস আবিষ্কৃত হওয়ায় ধারণা করা হচ্ছে বঙ্গোপসাগরে প্রচুর পরিমাণে তেল-গ্যাস মজুদ রয়েছে।’

তিনি জানান, এ সম্ভাবনাকে পুঁজি করেই বাংলাদেশ, ভারত ও মিয়ানমার সমুদ্রসীমা নিয়ে বিরোধে জড়িয়ে পড়েছে।

মাহফুজ উল্লাহ্ বলেন, ‘এর কারণ উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশ এবং মিয়ানমারের তেল-গ্যাসের প্রয়োজন। কিন্তু ক্রমবর্ধমান ও বৃহৎ অর্থনীতির দেশ ভারতের ভবিষ্যৎ জ্বালানি-নিরাপত্তার জন্যও তা সমান জরুরি।’

তিনি জানান, এ বিষয়ে দলমত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। আর্ন্তজাতিক আদালত থেকে আমাদের সমুদ্রসীমার অধিকার আদায় করার জন্য সব উদ্যোগ নিতে হবে।’

নিরাপত্তা ও নীতি বিশেষজ্ঞ মেজর অব. আশরাফউজ্জামান বলেন, ‘প্রতিবেশী দেশ দুটি আমাদের চেপে ধরেছে। যদিও আমরা জানি না আমাদের প্রকৃত সমুদ্রসীমা কত। তা যদি ৯০ হাজার নটিকেল মাইল হয়, তবে তারা এর অর্ধেক তাদের বলে দাবি করেছে।’

আর্ন্তজাতিক আদালতে আমাদের সমুদ্র রক্ষা করতে পারব কি-না এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটা নির্ভর করবে আমাদের জোগাড় করা তথ্য-প্রমাণের ওপর।’

ড. আসিফ নজরুল সমুদ্রসীমা নিয়ে আইন বিষয়ে বলেন, ‘ভারত ও মিয়ানমারের সঙ্গে আমাদের সমুদ্র নিয়ে যে বিরোধ তার মূলে রয়েছে আমাদের বেইজ লাইন নিয়ে দ্বন্দ্ব।’

তিনি বলেন, ‘আমরা ১৯৭৪ সালে আমাদের সমুদ্রসীমা বরাবর বেইজ লাইন তৈরি করেছিলাম। বাংলাদেশের মতো ছোট দেশের জন্য এটা লাভজনক। কিন্তু আমাদের প্রতিবেশীরা তা মানছে না।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন তথ্য কমিশনার মোহাম্মদ জমির, বিশিষ্ট সাংবাদিক সাদেক খান প্রমুখ।

সেমিনারে সভাপতিত্ব ও সঞ্চালনের দায়িত্ব পালন করেন সিএফএসডির প্রেসিডেন্ট এম আনোয়ার হাসিম।

বাংলাদেশ সময় : ১৮৫২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩০, ২০১১

ksrm
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঠেকাতে উস্কানি দিচ্ছে কিছু এনজিও
রুমায় অপহরণের চারদিন পর জিপ চালক মুক্ত
মঞ্চনাটকেই যাত্রা শুরু আমির-কন্যার
ছয় ম্যাচ খেলতে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা
উজানের ঢলে ফুলছে পদ্মা, বিপদসীমার কাছাকাছি


মোজাফফর আহমদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
দীঘিনালায় বাল্যবিয়ে থামালেন ভ্রাম্যমাণ আদালত
শিল্পকলা প্রাঙ্গণে বাউলের কণ্ঠে বঙ্গবন্ধু
সিলেটে দারাজের ‘ফ্যানমিট’
ন্যাপ সভাপতি মোজাফফর আহমদ আর নেই