php glass

লোডশেডিং: এবার শীত মৌসুমেই নাকাল রাজশাহীবাসী

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

রাজশাহী নগরীতে এবার লোডশেডিং শুরু হয়েছে শীত মৌসুমেই।নগরীর প্রায় এলাকাতেই পিক আওয়ারে একটানা দুই থেকে তিন ঘন্টার লোডশেডিং থাকছে। চলতি সপ্তাহের শুরু থেকেই এ অবস্থার কবলে পড়েছে মহানগরবাসী।

রাজশাহী: রাজশাহী নগরীতে এবার লোডশেডিং শুরু হয়েছে শীত মৌসুমেই।

নগরীর প্রায় এলাকাতেই পিক আওয়ারে একটানা দুই থেকে তিন ঘন্টার লোডশেডিং থাকছে। চলতি সপ্তাহের শুরু থেকেই এ অবস্থার কবলে পড়েছে মহানগরবাসী।

শীতেই বিদ্যুৎ ব্যবস্থা নাজুক হয়ে পড়ায় নগরবাসী শঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। দিনে রাতে সমানতালে বিদ্যুতের এই আসা যাওয়ায় নগরবাসী বিশেষ করে এসএসসি পরীার্থীরা পড়েছে বিপাকে। লোডশেডিংয়ের কারণে তাদের পরীার পূর্ব প্রস্তুতিতে চরম ব্যঘাত ঘটছে।

লোডশেডিংয়ের কারণ জানতে যোগাযোগ করলে রাজশাহী বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কাটাখালি উপ-কেন্দ্রের সিস্টেম কন্ট্রোলের জুনিয়র অ্যাসিসট্যান্ট এমএ হালিম বাংলানিউজকে জানান, গত ৪/৫দিন ধরে চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ পাওয়া যাচ্ছে না। তাই শীত মৌসুমে চাহিদা কম সত্বেও লোডশেডিং চলছে। জাতীয় গ্রিড থেকে সরবরাহ পাওয়া বিদ্যুৎ সিটি কর্পোরেশন এলাকা এবং গ্রামের জন্য পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিকে বণ্টনের পর ঘাটতি থাকছেই।

নগরীর মধ্য ও নিম্নাঞ্চলে বিদ্যুৎ প্রাপ্তির েেত্র বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে নগরবাসীর মধ্য থেকে। বহরমপুর, শালবাগান, ছোট বোনগ্রাম, বড় বোনগ্রাম, শিরোইল কলোনি, আসাম কলোনি, বিসিক, হড়গ্রাম, কোর্ট এলাকা, বিনোদপুর, কাজলা, রানিনগর, হাদিরমোড়, সাগরপাড়া, বেলদারপাড়াসহ নগরীর অধিকাংশ এলাকায় ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে উঠেছে।

আসাম কলোসি এলাকার জয়নাল আবেদিন বাংলানিউজকে বলেন, ‘ঘন ঘন লোড শেডিংয়ের কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সব শ্রেণীর মানুষকে। অথচ মাস শেষে গ্রাহকের হাতে ঠিকই মোটা অংকের বিদ্যুৎ বিল ঠিকই ধরিয়ে দেওয়া হবে। গ্রাহকরা এর থেকে পরিত্রাণ চায়।’
 
বিদ্যুৎ গোলযোগের কারণে সাধারণ ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি বেশি তিগ্রস্ত হচ্ছেন বিদ্যুৎ কেন্দ্রিক ব্যবসা-বাণিজ্য সংশ্লিষ্টরা। প্রায় পিক আওয়ারে বিদ্যুৎ থাকছে না বলে অভিযোগ করেন ব্যবসায়ীরা।

অপরদিকে সন্ধ্যা নামার পর নগরীর অধিকাংশ এলাকা অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়ছে লোডশেডিংয়ের কবলে পড়ে। শহরবাসীর আশঙ্কা, শীত মৌসুমেই যদি বিদ্যুৎ পরিস্থিতির এ হাল হয়, তাহলে গ্রীষ্মকালে কী হবে?
 
রাজশাহী বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী আরজাদ হোসেনকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বাংলানিউজকে জানান, বিদ্যুৎ সমস্যা চলছে দেশব্যাপী। অনেক সময় চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ না পাওয়ায় ঠিক মত সরবরাহ করা যায় না।

তিনি আরও জানান, কেন্দ্রীয় গ্রিড থেকে যে পরিমাণ বিদ্যুৎ পাওয়া যায়, মহানগর এলাকায় তা সমভাবেই বণ্টন করা হয়।

ভুক্তভোগী গ্রাহকদের মতে, কর্তৃপ যাই বলুক, রাজশাহী মহনগরীতে বিদ্যুৎ সরবরাহ কমিয়ে দেওয়া হয়েছে- এটাই হচ্ছে বাস্তবতা। আর গ্রাহকরা এর ফলে সৃষ্ট ভোগান্তি থেকে বাঁচতে চায়।

রাজশাহী নগরীতে হঠাৎ বিদ্যুৎ সরবরাহ কমিয়ে দেওয়ার প্রশ্নে প্রধান প্রকৌশলী আরজাদ হোসেন বলেন, ‘বোরো মৌসুমের সেচ শুরু হয়েছে। সরকারের নির্দেশ রয়েছে বোরো জমিতে সেচের জন্য সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে।’


বাংলাদেশ সময়: ১১৫৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৯, ২০১১

ksrm
জবিতে ভর্তি আবেদনের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ
কক্সবাজারে ছাত্রলীগ সভাপতিসহ ৪ জনকে কোপালো সন্ত্রাসীরা
চ্যানেলমুখে নাব্য সংকট, রাতে চলছে মাত্র ৪ ফেরি
ডা. জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে ভাঙচুর-মারধরের অভিযোগে মামলা
মাহিন্দ্রার পেছনে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, চালক নিহত


চার্জার মেরামতকালে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে অটোচালকের মৃত্যু
টেকনাফে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতিকে গুলি করে হত্যা
বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংকিং উন্নয়নে প্রস্তাব
রপ্তানি বেড়েছে চামড়াজাত পণ্যের, কমেছে চামড়ার
দেশ নিয়ে চাওয়া পাওয়া