php glass

মতবিনিময় সভার তথ্য

৩ বছরে ২৫৬ বাংলাদেশি বিএসএফের হাতে নিহত হয়েছে

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

আইন ও সালিশকেন্দ্রের হিসাব মতে, ২০০৮ সাল থেকে ২০১১ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত তিন বছরে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএফএস) হাতে ২৫৬ জন বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। একই সময়ে আহত হয়েছেন ১৬৮ জন এবং ১৬৭ জনকে অপহরণ করা হয়েছে।

ঢাকা: আইন ও সালিশকেন্দ্রের হিসাব মতে, ২০০৮ সাল থেকে ২০১১ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত তিন বছরে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএফএস) হাতে ২৫৬ জন বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। একই সময়ে আহত হয়েছেন ১৬৮ জন এবং ১৬৭ জনকে অপহরণ করা হয়েছে।
 
শুক্রবার রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে ‘সীমান্তে নাগরিকদের নিরাপত্তাহীনতা ও আমাদের করণীয়’ শীর্ষক মতবিনিয়ম সভায় মূল প্রবন্ধে এই তথ্য তুলে ধরা হয়। উপস্থাপন করেন আইন ও সালিসকেন্দ্রের (আসক) তদন্ত কর্মকর্তা আবু আহমেদ ফয়জুল কবির।

এতে উল্লেখ করা হয়, সীমান্ত সংক্রান্ত বিরোধ সব সময়ই নাজুক। ফলে সীমান্ত ঘেঁষা অঞ্চলের বাসিন্দারা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে আসক এবং সাউথ এশিয়ান ফোরাম ফর হিউম্যান রাইটস (এসএএফএইচআর)

আসক নির্বাহী পরিচালক সুলতানা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী এলাকার মানবাধিকারকর্মী, শিক্ষক, সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধিসহ এসএএফএইচআর নির্বাহী পরিচালক তপস বোস, পশ্চিম ভারতের মানবাধিকার সংস্থা বাংলার মানবাধিকার সুরক্ষা মঞ্চের সচিব কিরিটি রায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা বলেন, সমস্যা সমাধানে সরকারকে দ্রুত উদ্যাগ নিতে হবে। প্রয়োজনে দু’দেশের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে সীমান্ত ব্যবস্থাপনার আওতায় প্রবেশকার্ডের ব্যবস্থা করা যেতে পারে।  

তপন বোস বলেন, বাংলাদেশ ভারতের মধ্যে কোনো যুদ্ধাবস্থা চলছে না। তারপরও সীমান্তে সব সময় অস্থিরতা বিরাজ করে।  

কিরিটি রায় বলেন, প্রতিদিন বিএসএফ এর হাতে বাংলাদেশিরা নির্যাতিত হচ্ছে। গুলি করে মানুষ হত্যা করা হচ্ছে। অবৈধভাবে যাতাযাতের জন্য দু’দেশের সীমান্তে ঘাট গড়ে উঠেছে। ৩শ থেকে ৫শ টাকার বিনিময়ে মানুষ যাতায়াত করতে পারছে। ঘাট মালিকরা প্রভাবশালী। তাদের সঙ্গে যোগসাজশে বিএসএফ সদস্যরা নারীদের ধর্ষণ করছে।

ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, সীমান্তে নিরস্ত্র মানুষকে হত্যা করে ভারত বলছে অপরাধীদের মারা হয়েছে। দাবি করা হয়, সীমান্তের ওপারে চলে আসায় গুলি করা হয়। দিল্লিকে এব্যাপারে ভাবতে হবে।

স্বাগত বক্তব্যে সুলতানা কামাল বলেন, সীমান্তে সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করলেও সরকারকে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই প্রতিবাদ করতে দেখা যায় না। সীমান্তে পশুর মতো মানুষ হত্যা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। এখন আর চুপ থাকার সুযোগ নেই।    

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪০ ঘণ্টা, জানুয়ারি, ২০১১

সৈয়দপুরে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বৃদ্ধা নিহত
লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়ে আমন চাষ
‘সোনার চর’ ঘিরে হচ্ছে এক্সক্লুসিভ পর্যটন কেন্দ্র
নির্ধারিত সময়েই সম্মেলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে আওয়ামী লীগ
মেসিকে খুশি রাখতেই নেইমার ‘নাটক’!


'১১ দিনের বাচ্চা নিয়ে রাস্তায়-রাস্তায় ঘুরছি'
ফতুল্লায় অটো ও ব্যাটারির দোকানে অগ্নিকাণ্ড
ত্রিপুরায় ১৫ লাখ রুপির মাদক জব্দ
বেনাপোলে সাড়ে ১৭ লাখ ভারতীয় রুপিসহ আটক ১
নেতাজির ‘মৃত্যুদিন’ উল্লেখ করল পিআইবি, বিতর্ক ভারতজুড়ে