২০১৩ সালে স্থায়ী ক্যাম্পাস পাচ্ছে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

চট্টগ্রামের এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন ২০১৩ সালে স্থায়ী ক্যাম্পাসে যাবে। নগরীর ছলিমপুর এলাকায় নতুন ক্যাম্পাস নির্মাণের কাজ চলছে যা তিন বছরের মধ্যে শেষ হবে।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন ২০১৩ সালে স্থায়ী ক্যাম্পাসে যাবে। নগরীর ছলিমপুর এলাকায় নতুন ক্যাম্পাস নির্মাণের কাজ চলছে যা তিন বছরের মধ্যে শেষ হবে।

বৃহস্পতিবার নগরীর দামপাড়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পাসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে একথা জানানো হয়। এতে মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন ইউনিভার্সিটির ডাইরেক্টর অব অ্যাডমিশন রেহানা খান।

দণি পূর্ব এশিয়ার উন্নয়নশীল দেশগুলোর অনগ্রসর নারীদের উচ্চশিায় শিতি করার ল্েয ২০০৮ সালে ১২৯ জন দেশি-বিদেশি ছাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয়। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের সাবেক ফার্স্ট লেডি ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কর্মী শেরি ব্লেয়ারকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর নিযুক্ত করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে রেহানা খান জানান, আগামী মার্চে শুরু হচ্ছে ২০১১-২০১২ সালের ভর্তি প্রক্রিয়া। বাংলাদেশি শিার্থীদের ১২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে আবেদনপত্র গ্রহণ করতে ও জমা দিতে হবে। এবার এক’শ জন শিার্থী ভর্তি করা হবে যার মধ্যে ২৫ জন হবে বাংলাদেশি। ভর্তির ন্যূনতম যোগ্যতা হিসেবে সর্বশেষ পরীায় প্রতিটি বিষয়ে ৬০ শতাংশ নম্বর পেতে হবে।

তিনি জানান, এইচএসসি পরীায় অংশগ্রহণকারীদেরও এবার ভর্তি পরীায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।  এেেত্র শিার্থী এবং তাদের অভিভাবকদের পরীায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপরে চাহিদা অনুযায়ী ফলাফলের নিশ্চয়তা দিতে হবে। শর্তপূরণ করতে না পারলে ভর্তি বাতিল বলে গণ্য হবে।

রেহানা খান বলেন, ‘এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনে এশিয়ান স্টাডিজ, পাবলিক হেলথ, পলিটিক্স, ফিলোসপি, ইকোনমিক্স, বায়োলজিক্যাল সায়েন্স, এনভায়নরমেন্টাল সায়েন্সসহ ৫টি বিষয়ে শিার্থী ভর্তি করা হবে। এসব বিষয় দেশি-বিদেশি ছাত্রীদের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ, সামাজিক পরিবর্তন, আবহাওয়ার পরিবর্তনসহ বিভিন্ন সংকট মোকাবেলার উপযোগী করে গড়ে তুলবে।’

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বর্তমানে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনে ৪০৩ জন ছাত্রী পড়াশোনা করছেন। এদের মধ্যে বাংলাদেশি ১৮২ জন, আফগানিস্তানের ২১ জন, ভুটানের ১৬ জন, কম্বোডিয়ার ১৩ জন, চীনের ৫ জন, ভারতের ৩৬ জন, মিয়ানমারের ৩ জন, নেপালের ৪০ জন, পাকিস্তানের ১৫ জন, ফিলিস্তিনের ২ জন, শ্রীলংকার ৫৪ জন এবং ভিয়েতনামের ১৬ জন ছাত্রী রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ডিরেক্টর অব অপারেশন অ্যান্ড হিউম্যান রিসোর্স ওমর শরীফ, অ্যাডমিশন অফিসার সালমা হকসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের দেশি-বিদেশি কর্মকর্তারা।

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৭ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০১১

গ্র্যাজুয়েটদের চাকরির পথ দেখালো ইউজিসি
করোনা ভাইরাসে চীনে মৃত বেড়ে ৮০
পুকুরে মিললো পুলিশ পুত্রের মরদেহ
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত যুবক নিহত
বেলজিয়ামে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি কিশোর নিহত


মাদক মামলায় এক ব্যক্তির ১০ বছর কারাদণ্ড
সমালোচনা না করে দেশের সমস্যা সমাধানের আহ্বান তাজুলের
জনগণের জন্য কাজ করতে পারলে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করি
চীনে ভ্রমণ স্থগিতের কথা ভাবছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়
ধানের শীষে ভোট চাইলেন তাবিথের মা