শক্তি দইয়ে ভেজাল

খাদ্য আদালতে ১০ হাজার টাকার মুচলেকায় জামিন নিলেন ড. ইউনূস, বললেন সুবিচার পেয়েছি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

শক্তি দইয়ে ভেজালের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ১০ হাজার টাকা মুচলেকায় জামিন নিয়েছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস।

ঢাকা: শক্তি দইয়ে ভেজালের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ১০ হাজার টাকা মুচলেকায় জামিন নিয়েছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের খাদ্য আদালতে হাজিরা দিয়ে তিনি এ জামিন নেন। আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী শুনানির তারিখ দেওয়া হয়েছে।
                                                                                                                                                                                                                   আদালতে ড. ইউনূসের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার সারা হোসেনসহ ১০ জন আইনজীবী।

দুপুর ১২টা ০৩ মিনিটে যুগ্ম জজ শেখ নাজমুল হাসানের আদালতে হাজির হন ড. মুহাম্মদ ইউনূস। তার সঙ্গে ছিলেন মামলার অপর দুই আসামি শক্তি দইয়ের বিক্রেতা আমেনা এন্টারপ্রাইজের মালিক মোহাম্মদ তুষার ও আফসার এন্টারপ্রাইজের মালিক আবুল কাশেম। এ দু’জন কাঠগড়ায় দাঁড়ানোয় স্থান সংকুলান না হওয়ায় এজলাসের সামনে দাঁড়িয়ে থাকেন ড. ইউনূস। এসময় তাকে বিমর্ষ দেখাচ্ছিলো।

প্রায় ৩৭ মিনিট ধরে শুনানি চলে। এসময় ব্যারিস্টার সারা হোসেন আদালতকে বলেন, এ মামলায় ড. মুহাম্মদ ইউনূস সরাসরি আসামি হতে পারেন না। ডানোন শক্তি দই প্রস্তুতের সঙ্গে জড়িত টেকনিশিয়ানরাই এর আসামি হতে পারেন।

আদালত শুনানি নিয়ে ড. ইউনূসকে ১০ হাজার টাকা মুচলেকায় জামিন দেন। পরবর্তী শুনানিতে তাকে সরাসরি উপস্থিত থাকতে হবে না বলেও নির্দেশনা দেন আদালত। আইনজীবীর মাধ্যমে এসব শুনানি করা সম্ভব হবে।

আদালত থেকে বের হয়ে ড. ইউনূস সাংবাদিকদের বলেন, ‘মহামান্য আদালত আমার নামে সমন জারি করেন। সে অনুযায়ী আমি আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাই। আদালত আমাকে জামিন দিয়েছে। আমি সুবিচার পেয়েছি।’

আদালতের কার্যক্রম শেষে ব্যারিস্টার সারা হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘এটি জামিনযোগ্য অপরাধ এ কারণেই আদালত থেকে ড. ইউনূসের জামিন মঞ্জুর করানো হয়েছে।’

এর আগে সকাল ১১টা ১৮ মিনিটে তিনি নগর ভবনে পৌঁছান ড. ইউনূস। বেলা ১২টায় আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়।

সূত্র জানায়, ডিসিসি’র পরীক্ষাগারে শক্তিদই পরীক্ষা করে তাতে ভেজাল পাওয়ার পর গত ২৭ ডিসেম্বর বিষয়টি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগকে জানানো হয়। পরে গত ১০ জানুয়ারি এটি মামলা আকারে ডিসিসির খাদ্য আদালতে আসে।  মামলাটি দায়ের করেছেন ডিসিসি’র খাদ্য পরিদর্শক কামরুল ইসলাম।

মামলার শুনানি উপলে ঢাকা সিটি কর্পোরশনের খাদ্য আদালত ও এর আশেপাশে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়।

গ্রামীণব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ডক্টর মুহাম্মদ ইউনূস দরিদ্রের জন্য পুষ্টি সরবরাহের নামে ফরাসি প্রতিষ্ঠান ডানোনের সঙ্গে ‘শক্তি দই’ নামে এ দইটি বাজারজাত করেন।

উল্লেখ্য এর আগে পুষ্টিমানের মিথ্যা তথ্য দিয়ে দই বাজারে ছাড়ার অভিযোগে গত ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে ফরাসি ডানোন কোম্পানি বড় ধরনের জরিমানা দেয়।

গত ১৮ডিসেম্বর বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম এ যুক্তরাষ্ট্রে ডানোনের জরিমানা দেওয়ার রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। ওই রিপোর্টেই বাংলাদেশে গ্রামীণের মাধ্যমে বাজারজাত করা ‘শক্তি দই’এর বিষয়েও প্রশ্ন তোলা হয়।

‘গ্রামীণ-ডানোন’ নামের এই যৌথ উদ্যোগটিকে গ্রামীণ ফাউন্ডেশন তার ওয়েব সাইটে একটি সামাজিক ব্যবসা-উদ্যোগ বলে উল্লেখ করেছে।

২০০৬ সালে এ ‘শক্তি দই’ বাজারে আনে গ্রামীণ। তখন কিংবদন্তীর ফরাসী ফুটবলার জিনেদিন জিদানকে ঢাকায় এনে ঘটা করে এর উদ্বোধনও করা হয়।

গ্রামীণ-ডানোন ফুডস লিমিটেড নামের কোম্পানিটির গ্রামীণ ব্যবসাবিকাশ, গ্রামীণকল্যাণ, গ্রামীণশক্তি ও গ্রামীণ টেলিকমের অংশীদারিত্ব রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৫৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০১১

সন্ত্রাসী-পুলিশি হামলার প্রতিবাদে সাংবাদিকদের মানববন্ধন
খাগড়াছড়িতে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড
খুলনায় এমপি নারায়ণ চন্দের ছেলের আত্মহত্যার চেষ্টা
মাকে নিয়ে তীর্থে নয়, ক্যাসিনোয় গেলেন অক্ষয়
শীতকালীন রোগে মৃত্যু ৫৭ জনের


মনিরামপুরের সাবেক ওসি ছয়রুদ্দিনকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ
মোদী-অমিতের মিথ্যা কথার তালিকা দিল কংগ্রেস
পুলিশকে জনগণের পক্ষে কাজ করার আহ্বান ইশরাকের
‘ই-পাসপোর্ট ডিজিটাল জগতে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে’
সিএএ স্থগিত করতে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের অস্বীকৃতি