চসিকের দেড় কোটি টাকার টেন্ডার নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

জলাবদ্ধতা নিরসনে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের আহ্বান করা প্রায় দেড় কোটি টাকার টেন্ডার কাজ নিয়ে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। মোট ২১টি শিডিউলে বিভক্ত এ টেন্ডারের ১২টি শিডিউলে কোনো সাধারণ ঠিকাদার অংশ নিতে পারেনি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

চট্টগ্রাম : জলাবদ্ধতা নিরসনে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের আহ্বান করা প্রায় দেড় কোটি টাকার টেন্ডার কাজ নিয়ে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। মোট ২১টি শিডিউলে বিভক্ত এ টেন্ডারের ১২টি শিডিউলে কোনো সাধারণ ঠিকাদার অংশ নিতে পারেনি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত সপ্তাহে আহ্বান করা এ টেন্ডারের শিডিউল বিক্রির শেষ দিন ছিল বুধবার। বৃহস্পতিবার এ টেন্ডারের লটারির অনুষ্ঠান হবে বলে জানিয়েছেন সিটি করপোরেশনের ডিভিশন-১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সালেহ।

কয়েকজন তালিকাভুক্ত সাধারণ ঠিকাদার অভিযোগ করেছেন, পছন্দের ঠিকাদারদের কাজ পাইয়ে দিতে বাগমণিরাম ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতা গিয়াস উদ্দিন এবং নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সালেহ সাধারণ ঠিকাদারদের কাছে শিডিউল বিক্রিতে বাধা দিয়েছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে নগরীর লালদিঘীর পাড় এলাকার বাসিন্দা এমন এক তালিকাভুক্ত ঠিকাদার বাংলানিউজকে জানান, বুধবার তিনি টেন্ডারের ২১ নম্বর শিডিউলভুক্ত বাগমণিরাম ওয়ার্ডের নালা থেকে মাটি উত্তোলন এবং সড়ক সম্প্রসারণ সংপ্রন্ত ২২ লাখ টাকার কাজের শিডিউল কিনতে গিয়েছিলেন। কিন্তু ডিভিশন-১ এর কর্মকর্তারা নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সালেহর নির্দেশের কথা বলে তাকে শিডিউল সরবরাহ করেননি। তিনি বিষয়টি নগর ভবনে এসে নির্বাহী প্রকৌশলীকে জানালে তিনি বলেন,  ‘কাজটি কাউন্সিলর গিয়াস সাহেব করবেন। এরপরও আপনারা চাইলে নিতে পারেন। কিন্তু কাজটি গিয়াস সাহেবই পাবেন।’

এ প্রসঙ্গে নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সালেহ বাংলানিউজকে বলেন, ‘সব ষড়যন্ত্র। আমি তো কাউকে শিডিউল নিতে মানা করিনি। তাদের অভিযোগ থাকলে তারা সাংবাদিককে জানাচ্ছেন কেন। তারা তো মেয়র, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, সচিবকে জানাতে পারতেন।’

একইভাবে অভিযোগ অস্বীকার করে কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, ‘আমি যদি চাপ দিতাম তাহলে একটি শিডিউলও বিক্রি হতো না। আমি তো শুনেছি তিনটি শিডিউল বিক্রি হয়েছে। আমি কি করপোরেশনের ঠিকাদার যে টেন্ডারের পেছনে দৌড়াব?’

ছালেহ আহম্মদ নামে অপর এক ঠিকাদার অভিযোগ করে বলেন, ‘শুধু ২১ নম্বর শিডিউল নয়, টেন্ডারের ৯ নম্বর থেকে ২০ নম্বর পর্যন্ত প্রায় ৭০ থেকে ৮০ লাখ টাকার কাজের শিডিউল বিক্রিই করা হয়নি।’

সিটি মেয়রকে না জানিয়ে এসব কাজ পছন্দের ঠিকাদারদের দেওয়া হবে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

বাংলাদেশ সময় : ০৩৪৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০১১ 

করোনা ভাইরাসে চীনে মৃত বেড়ে ৮০
পুকুরে মিললো পুলিশ পুত্রের মরদেহ
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত যুবক নিহত
বেলজিয়ামে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি কিশোর নিহত
মাদক মামলায় এক ব্যক্তির ১০ বছর কারাদণ্ড


সমালোচনা না করে দেশের সমস্যা সমাধানের আহ্বান তাজুলের
জনগণের জন্য কাজ করতে পারলে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করি
চীনে ভ্রমণ স্থগিতের কথা ভাবছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়
ধানের শীষে ভোট চাইলেন তাবিথের মা
ইশরাকের গণসংযোগে হামলায় ফখরুলের প্রতিবাদ