শক্তিদইয়ে ভেজাল: ড. ইউনূসের খাদ্য আদালতে হাজিরা বৃহস্পতিবার

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

গ্রামীণ-ডানোন ‘শক্তি দই’য়ে ভেজাল-- এই অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বৃহস্পতিবার ঢাকা সিটি কর্পোরশনের খাদ্য আদালতে হাজির হবেন গ্রামীণব্যাংকের কর্ণধার ড. মুহাম্মদ ইউনূস।

ঢাকা: গ্রামীণ-ডানোন ‘শক্তি দই’য়ে ভেজাল-- এই অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বৃহস্পতিবার ঢাকা সিটি কর্পোরশনের খাদ্য আদালতে হাজির হবেন গ্রামীণব্যাংকের কর্ণধার ড. মুহাম্মদ ইউনূস।

দেশের একমাত্র এই খাদ্য আদালতে মামলাটির শুনানি করবেন যুগ্ম-জজ নাজমুল আলম।

মামলাটি দায়ের করেছেন ডিসিসি’র খাদ্য পরিদর্শক কামরুল ইসলাম।

সূত্র জানায়, ডিসিসি’র পরীক্ষাগারে শক্তিদই পরীক্ষা করে তাতে ভেজাল পাওয়ার পর গত ২৭ ডিসেম্বর বিষয়টি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগকে জানানো হয়। পরে গত ১০ জানুয়ারি এটি মামলা আকারে ডিসিসির খাদ্য আদালতে আসে।  

মামলার শুনানি উপলক্ষে ঢাকা সিটি কর্পোরশনের খাদ্য আদালতের ও আশেপাশের নিরাপত্তা বাড়াতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্পোরেশনের একটি সূত্র।

গ্রামীণব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ডক্টর মুহাম্মদ ইউনূস দরিদ্রের জন্য পুষ্টি সরবরাহের নামে ফরাসি প্রতিষ্ঠান ডানোনের সঙ্গে ‘শক্তি দই’ নামে এ দইটি বাজারজাত করছে।

উল্লেখ্য এর আগে পুষ্টিমানের মিথ্যা তথ্য দিয়ে দই বাজারে ছাড়ার অভিযোগে গত ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে ফরাসি ডানোন কোম্পানিটি বড় ধরনের জরিমানা দেয়। ওই কোম্পানিটির সঙ্গেই যৌথভাবে ‘শক্তি দই’ নামে দই বাংলাদেশে বাজারজাত করছে দেশের ক্ষুদ্রঋণ ব্যবসায় জড়িত প্রতিষ্ঠান গ্রামীণব্যাংক।

গত ১৮ডিসেম্বর বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম এ যুক্তরাষ্ট্রে ডানোনের জরিমানা দেওয়ার রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। ওই রিপোর্টেই বাংলাদেশে গ্রামীণের মাধ্যমে বাজারজাত করা ‘শক্তি দই’এর বিষয়েও প্রশ্ন তোলা হয়।

‘গ্রামীণ-ডানোন’ নামের এই যৌথ উদ্যোগটিকে গ্রামীণ ফাউন্ডেশন তার ওয়েব সাইটে একটি সামাজিক ব্যবসা-উদ্যোগ বলে উল্লেখ করেছে।

২০০৬ সালে এ ‘শক্তি দই’ বাজারে আনে গ্রামীণ। তখন কিংবদন্তীর ফরাসী ফুটবলার জিনেদিন জিদানকে ঢাকায় উড়িয়ে এনে ঘটা করে এর উদ্বোধনও করা হয়। গ্রামীণ-ডানোন ফুডস লিমিটেড নামের কোম্পানিটির গ্রামীণ ব্যবসাবিকাশ, গ্রামীণকল্যাণ, গ্রামীণশক্তি ও গ্রামীণ টেলিকমের অংশীদারিত্ব রয়েছে।

তখন বলা হয়েছে, গ্রামীন ডানোনের উদ্দেশ্য হচ্ছে পুষ্টিবঞ্চিত জাতিকে বিশেষ করে নিত্য পুষ্টি সরবরাহ। একটি ব্যবসায়ী উদ্যোগের মধ্য দিয়েই দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে কাজ করাও ছিলো এর মূল বক্তব্য।

বলা হয়েছিল, গ্রামীণ-ডানোনের মাধ্যমে ফুলক্রিম দুধ থেকে শক্তি দই নামে এক ধরনের দই উৎপাদন করা হচ্ছে যাতে রয়েছে পর্যাপ্ত প্রোটিন, ভিটামিন, আয়রন, ক্যালসিয়াম, জিংক ও অন্যান্য পুষ্টিগুণ যা বাংলাদেশের শিশুদের অপুষ্টি দূর করতে সক্ষম। এ দই শিশুদের স্বাস্থ্যের উন্নয়ন ঘটাবে। আর বড়দের জন্যও এ দই হবে সমান উপযোগী।

তবে এসব বক্তব্যই মিথ্যা ও প্রতারণমূলক উল্লেখ করে গ্রামীণের বাজারজাত করা শক্তি দইকে নিতান্তই ভেজাল খাদ্য হিসেবে চিহ্নিত করে মামলাটি করেছেন ডিসিসি পরিদর্শক কামরুল ইসলাম।

বাংলাদেশ সময় ১৭২১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৬, ২০১১

রাজউক আর দুর্নীতি এখন সমার্থক: ইফতেখারুজ্জামান
ভোটগ্রহণের পরিবেশ নিশ্চিত করুন: ইসিকে তাবিথ
সেই নারীর খোঁজে হাসপাতালে স্বামী
প্রচারণার জোয়ার ভোটের বাক্সেও দেখতে চান মেনন
আমার কোনো গ্রুপ নেই, চবি ছাত্রলীগ নিয়ে নওফেল


দারুণ দুর্দশায় মাইলি সাইরাস
মোদী ঢাকায় আসছেন ১৭ মার্চ
ঢাকার ভোট পর্যবেক্ষণে থাকছেন ৬৭ বিদেশি পর্যবেক্ষক
করোনাভাইরাস আতঙ্ক প্রভাব ফেলেছে চীনের ক্রীড়াঙ্গনেও
জেরুজালেম বিক্রির জন্য নয়: আব্বাস