php glass

জেএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য :

সাভার, শরিয়তপুর ও কুড়িগ্রামে তিন ছাত্রীর আত্মহত্যা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় সাভার, শরিয়তপুর ও কুড়িগ্রামে তিন ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।

ঢাকা: জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় সাভার, শরিয়তপুর ও কুড়িগ্রামে তিন ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে সাভারের আশুলিয়ায় আত্মহত্যা করেছে তানিয়া (১৫) নামের এক ছাত্রী। সে জিরানী বিকেএসপি পাবলিক স্কুল থেকে পরীক্ষা দিয়েছিল।

তানিয়ার বাড়ি জিরানীর টেঙ্গুরী গ্রামে।

এলাকাবাসী জানায়, ফল প্রকাশের পর তানিয়া বাড়ি ফিরে অংকে অকৃতকার্য হওয়ায় কান্নাকাটি করে। এক পর্যায়ে ঘরের মধ্যে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে বিষয়টি টের পেয়ে দরজা ভেঙে তাকে স্থানীয় কোরিয়া মৈত্রী হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। তানিয়ার বাবার নাম মাসুদ হোসেন।

আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুর রশিদ ঘটনাটি নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শরীয়তপুরে নাদিয়া (১৪) নামে এক স্কুলছাত্রী নিজ বাড়িতে ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে। বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে সে মারা যায়।

নাদিয়া শরীয়তপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে পরীক্ষা দিয়েছিল। সে পৌরসভার আমিনবাগ এলাকার যুবলীগ নেতা সামছুল হক ঢালীর মেয়ে।

প্রতিবেশীরা বাংলানিউজকে জানান, জেএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় বিকালে মা-বাবা বকাঝকা করায় অভিমান করে নাদিয়া নিজ ঘরে গিয়ে শুয়ে থাকে। পরে রাতের খাওয়ার সময় হলে নাদিয়াকে ডাকাডাকি করা হয়। কিন্তু কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে নাদিয়ার ঘুম ভাঙাতে চেষ্টা করে ব্যর্থ হন বাবা-মা। এরপর দ্রুত শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. নির্মল চন্দ্র দাস বাংলানিউজকে বলেন, ‘মেয়েটি সম্ভবত অতিরিক্ত মাত্রায় ঘুমের ঔষধ খেয়েছিল। ময়নাতদন্ত করলে সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে।’

একই ঘটনায় কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলায় কীটনাশক পানে এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। পারিবারিক সূত্র জানায়, ভূরুঙ্গামারী উপজেলার জয়মনিরহাট উচ্চ বিদ্যালয় পড়ুয়া তহুরা খাতুন (১৩) জেএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়। লজ্জা ও অভিমানে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সবার অগোচরে সে কীটনাশক পান করে। সে খামার আন্ধারীঝাড় গ্রামের কৃষক তোফায়েল হোসেনের প্রথম কন্যা।

ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ডা. জহুরুল হক জানান, সন্ধ্যা ৬টার দিকে ছাত্রীটিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হলে অনেক চেষ্টা করেও বাঁচানো যায়নি। সন্ধা ৭টার দিকে তার মৃত্য হয়।

ভূরুঙ্গামারী থাকার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কফিল উদ্দিন জানান, থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের হয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের লোকজনের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

বাংলাদেশ সময় : ২২৪৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০১০

‘যুদ্ধে হিট অ্যান্ড রানে বিশ্বাসী ছিলাম’
ভারতে সেনা ক্যাম্প থেকে রাইফেল-গুলি চুরি, জরুরি সতর্কতা
মূল্য নিয়ন্ত্রণে ভারতের বাজার আগাম পর্যবেক্ষণ জরুরি
শিক্ষাঙ্গনে নৈরাজ্যের জন্য অসুস্থ রাজনীতি দায়ী
যেখানে মেসি-সুয়ারেজের চেয়ে এগিয়ে গ্রিজম্যান


চাকরির আবেদনে বয়সসীমা বাড়ানোর দাবি
রাঙ্গুনিয়ায় নুরুন্নাহার স্মৃতি বৃত্তি পরীক্ষা
সোনার স্বপ্ন জাগিয়েও পারলেন না আঁখি
ঘটছে দুর্ঘটনা, তবুও উল্টো পথে চলছে গাড়ি
কাতারকে হারিয়ে গালফ কাপের ফাইনালে সৌদি আরব